ডিজিটাল যুগে নতুন ট্রেন্ড ‘সেলফি’বা ‘সেলফিপ্রেম’। আর ক্রমশ বেড়েই চলেছে এই সেলফিপ্রেম। প্রথমটায় ব্যাপারটা একটু ঝামেলা লাগলেও এখন মোটামুটি ছেলেমেয়েরা অভ্যস্ত। কিভাবে ক্যামেরা ধরতে হবে, কতটা অ্যাঙ্গেলে তাকাতে হবে, এসব এখন তাদের নখদর্পণে। কিন্তু চিকিৎসকেরা বলছেন এই সেলফিই নাকি ডেক আনছে বিপদ। জন্ম দিচ্ছে নতুন রোগের।চিকিৎসকদের মতে, মানুষের শারীরিক গঠনের সঙ্গে খাপ খায় না এই সেলফি। এর ফলে লিগামেন্টে চাপ পড়ে। সেলফি তোলার পুরো পদ্ধতিটাই নাকি বিপদ ডেকে আনছে। চিকিৎসকরা রীতিমত এই সমস্যা দেখে বিভ্রান্ত। সাধারণত স্পোর্টস যারা খেলেন তাদের ক্ষেত্রে যে সমস্যাগুলো হয়, সেই ধরনের সমস্যা নিয়ে উপস্থিত হচ্ছেন তরুণ-তরুণীরা। সেলফি তোলার সময় হাতটা সামনে এগিয়ে দিতে হয়। এরপর আঙুল দিয়ে বেশ কষ্ট করে স্ক্রিনের উপর চাপ দিতে হয়। ঘাড়টাও বাঁকিয়ে রাখতে হয় ফ্রেমে আসতে। সব মিলিয়ে এমন ভঙ্গি প্রায়ই করতে থাকলে তা শরীরকে কষ্ট দিতে শুরু করে বলেও মনে করছেন চিকিৎসকেরা। আর সেইজন্যই সেলফি রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়ছেন সবাই। অনেক তরুণ-তরুণীই এই সেলফি-এলবো সমস্যায় ভুগছেন। কারও শুরু হচ্ছে কাঁধে ব্যাথা, কারও কনুইতে। বেশিক্ষণ হাত উঁচু করে রাখার ফলে হাতের উপর চাপ পড়তে থাকে।বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, এই ধরনের রোগীর সংখ্যা ক্রমশ বাড়ছে।তবে দু’হাতে ঘুরিয়ে ফিরিয়ে সেলফি তুললে চাপ কমতে পারে। সেলফি স্টিক ব্যবহার করলেও আরাম মিলতে পারে। সাধারণত টেনিস খেলায় যে সমস্যা হয়, সেটাই দেখা যাচ্ছে সেলফি-প্রেমীদের মধ্যে।তাই সেলফি থেকে দূরে থাকুন এবং সুস্থ্ থাকুন।

 

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.