প্রোডিজি বলা হয় তাদেরকে যারা খুব ছোট বেলা থেকেই বিশেষ একটা বিষয়ে দক্ষ হয়ে বড়দের মতই দক্ষতা দেখাতে সক্ষম হয়। Gennady Korotkevich তেমনই একজন, যিনি তাবৎ দুনিয়ার কম্পিউটার প্রোগ্রামারদের কাছে ট্যুরিস্ট(tourist) হিসেবে পরিচিত। ২০০৬ সালে মাত্র ১১ বছর বয়সে যিনি ‘ইন্টারন্যাশনাল অলিম্পিয়াড ইন ইনফরমেটিক্স’ এ সবচেয়ে কমবয়সী প্রতিযোগী হিসেবে সিল্ভার মেডাল অর্জন করে হুলস্থুল বাধিয়ে ফেলেন। এরপর আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে। একই প্রতিযোগিতায়  ২০০৭ থেকে ২০১২ টানা ৬ বার গোল্ড মেডাল অর্জন করে পিছনে ফেলেন প্রোগ্রামিং দুনিয়ার সকল তুখোড় প্রোগ্রামারদের।

p4646বেলারুসে ১৯৯৪ সালে জন্ম নেয়া বিস্ময় বালক ট্যুরিস্টের বাবা মা দুইজনেই ছিলেন প্রোগ্রামার। ৬ বছর বয়স থেকেই বাবার কাজ দেখে অনুপ্রানিত হোন ট্যুরিস্ট। ছেলের উৎসাহ দেখে বাবা তার ছেলের প্রোগ্রামিং শেখার জন্যে একটি গেম বানিয়ে দেন।

মাত্র ২১ বছর বয়সেই অর্জনের ঝুলিটা একটু বেশিই ভারি। জয় করেন ফেসবুক হ্যাকার কাপ দুইবার, গুগল কোডজ্যাম দুইবার,টপকোডার একবার। তার টিম নিয়ে প্রতিযোগিতা করে ওয়ার্ল্ডের সবচেয়ে মর্যাদাপুর্ন প্রোগ্রামিং প্রতিযোগীটা এ.সি.এম আই.সি.পি.সিতে দুইবার চ্যাম্পিয়ন হোন।

প্রোগ্রামিং এর দুনিয়া কাঁপানো এই প্রোগ্রামারের শখ শুধুমাত্র কম্পিউটারেই সীমাবদ্ধ নয়। ফুটবল আর টেবিল টেনিস তার মূল পছন্দের বিষয়। তাকে সবাই প্রোগ্রামিং প্রোডিজি বা জিনিয়াস বললেও তার ধারনা, সে জিনিয়াস না, পরিশ্রমই তাকে সাফল্য এনে দিচ্ছে। আর এই পরিশ্রমের জন্যে বরাদ্দ রাখেন দিনের মাত্র তিন বা চার ঘন্টা। এতোটা কম সময়ের পরিশ্রমে লিজেন্ড হয়ে ওঠাটা ট্যুরিস্টের পক্ষেই সম্ভব। এই তরুনের আপাতত ভবিষ্যৎ নিয়ে পরিকল্পনা নেই। পড়াশুনা করছেন রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবার্গ ইউনিভার্সিটিতে। আগে পড়াশুনাটা শেষ করতে চান তারপর ভাববেন ক্যারিয়ার নিয়ে।

 

 

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.