আমরা সচারাচর সে সমস্ত সেতুগুলি দেখিয়া থাকি তাহারা নট নড়ন-চড়ন হইয়া স্থির পরিয়া থাকে। কিন্তুক কিছু কিছু সেতু রহিয়াছে যাহারা নট নড়ন-চড়ন হইয়া পরিয়া থাকে না মোটেই, বরং বেশ নড়ন-চড়ন দিয়া থাকে। আজিকের এই লেখা সেই সমস্ত নড়ন-চড়ন সেতুদিগকে লইয়াই

যাহাদের নজরে আগের তিনটি পর্ব আসে নাই তাহারা চাইলে নিচের লিংকে ক্লিক করিয়া দেখিয়া আসিতে পারেন।

নড়ন-চড়ন সেতু ০১, নড়ন-চড়ন সেতু ০২, নড়ন-চড়ন সেতু ০৩

যাহাহক, আজ আমরা আলোচনা করিবো নড়ন-চড়ন সেতুর আরো একটি ধরন লইয়া। এই সেতু নাম- “টেবিল সেতু” বা “Table bridge”। কিন্তু কি কারণেযে এই সেতুখানিকে টেবিল সেতু বলা হইতে তাহা এই অধমের জানা নাই। নিচের ছবি দেখিয়া আপনরাই বিচার করেন নামের কোনো স্বার্থকতা রহিয়াছে কিনা।


ছবি দেখিয়া অনেকে ভাবিতে পারেন গতপর্বের “উত্তলন সেতু” আর এই পর্বের “টেবিল সেতু” এই বস্তু। মানিয়া লইতেছি বস্তু সেই একই। ইহার পরেও নজর করিয়া চাহিলে তিক্ষ্ণ দৃষ্টি সম্পন্ন ব্যাক্তির চোখে কিঞ্চিত বৈসাদৃশ্য ধরা পরিবে। এই কিঞ্চিত বৈসাদৃশ্যের জন্যই আলাদা ভাবে ইহাদের নাম করণ করা হইয়াছে। মনে করিয়া দেখেন গতপর্বের উত্তলন সেতু খানিকে উপর দিক হইতে টানিয়া তোলা হইতো, কিন্তু আজিকের এই টেবিল সেতুখানিকে উপর হইতে টানিয়া তুলিতে হয়না। বরং এই টেবিল সেতু খানি নিচ হইতে ঠেলিয়া উপরে তুলিয়া ধরা হয়। উপরে তুলিয়া ধরার পরে তাহার নিচদিয়া নৌযান জলিয়া যাইবার পরে সেতুখানি আবার পথের সমান্তরালে নামিয়া আসিয়া মটরজানবাহন গুলিকে চলিতে দেয়।

এই ধরনের সেতুর বাস্তব অস্তিত্ব থাকিবার সন্দেহ থাকিলেও প্রকৃতপক্ষে ইহাদের একখানি আমার দৃষ্টিগোচর হইয়াছে। সেই সেতু খানি রহিয়াছে বেলজিয়ামে। তাহার নাম হইলো Tournai Pont levant Notre Dame, ছবি দেখিয়া লন।

১।

যখন সেতুখানি পথের উচ্চতায় পথের সহিত মিলিয়া রহিয়াছে।

২।

জলযান আসিতেছে বলিয়া সেতু খানি উপরে তোলা হইয়াছে।

৩।

সেতুর নিচ দিয়া জলযান চলিয়া যাইতেছে।

অনেক খুঁজিয়াও আর কোনো টেবিল সেতু আমি পাই নাই। আপনাদের খোঁজে থাকিলে অধমকে জানাইতে ভুলিবেন না। ভালো থাকিবেন সকলে।


এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের ঝিঁঝি পোকার বাগানে নিমন্ত্রণ।

comments

6 কমেন্টস

  1. প্রথম সেতুটি রাস্তার সাথে এতই মিশিয়া আছে যে তাকে চিহ্নিত করা বড়ই দুষ্কর হইয়া পড়িয়াছে
    সুন্দর প্রতিবেদন প্রদানে আমরা ধন্য

  2. জটিল হইছে । প্রথমে তো কিছুই বুজতে পারি নাই……। আরও লিখেন……

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.