‘ওভারসিজ ওয়ার্ল্ড টাইম’

‘ওভারসিজ ওয়ার্ল্ড টাইম’। এটি আসলে তৈরি করা হয়েছে এ সময়ের ব্যবসায়ী, কর্মকর্তা, ভ্রমণকারীদের কথা চিন্তা করে। যাদের নানান কাজে দেশের বাইরে ভ্রমণ করতে হচ্ছে অহরহ, আর তাল মিলিয়ে চলতে হচ্ছে বিভিন্ন দেশের আলাদা আলাদা সময়ের সঙ্গে একটি মাত্র ডায়াল, অথচ জটিল সব সমস্যার সমাধান করে দিচ্ছে অনায়াসেই। অফিস কিংবা ব্যবসায়ের কাজেই হোক বা ভ্রমণকারী— সবার জন্য খুব কাজের এ সময়যন্ত্র। কেবল ক্রাউনটিকে ঘুরিয়ে নিন, এর পর ঘড়ির ৬টার ঘরে নিজের শহরের নাম নিয়ে আসুন, তাহলে ৩৭টি টাইম জোনের বর্তমান সময় দেখিয়ে দেবে সেই ঘড়ি। এখানেই শেষ নয়, বিশ্বের অন্যান্য দেশের সেই মুহূর্তের দিন-রাতের হিসাবও দেখিয়ে দেবে সেই ঘড়ি! ডায়ালের মাঝখানে যে পৃথিবীর মানচিত্রটি এঁকে দেয়া আছে, সেটির দিকে এক নজর চোখ দিলেই বুঝে নেয়া যাবে পৃথিবীর কোন অংশে দিন ও কোন অংশে সে মুহূর্তে রাত বিরাজ করছে। চমক আছে আরো, এর ওপর ছায়া পড়লেই রাত আলাদা করে দেখায় ঘড়িতে অবস্থিত নীলরঙা ডিস্কটি। বলতে গেলে, এটা অনেকটা আলাদিনের চেরাগের মতো। এ সময়যন্ত্র আপনাকে নিয়ে যাবে যখন যেখানে খুশি। সুইস ঘড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ভাশ্চেরৌ কনস্ট্যান্টিনের ‘ওভারসিজ কালেকশন’-এর ষষ্ঠ সংস্করণ এটি। এর প্যাটার্নটি স্পোর্টস প্যাটার্নের সঙ্গে অনেকটাই মিলে যায়। যার নাম ‘ওভারসিজ ওয়ার্ল্ড টাইম’

ফ্যাশন সচেতন কর্মজীবী মানুষের কথা মাথায় রেখে স্বনামধন্য সুইস ঘড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ভাশ্চেরৌ কনস্ট্যান্টিন তাদের প্রথম ওভারসিজ কালেকশনটি নিয়ে হাজির হয় নব্বইয়ের দশকে। তখন কর্মক্ষেত্রে ঘড়ির ব্যবহারের যে নতুন ধারার চল হয়েছিল, তাকে পুরোপুরি আত্মস্থ করে নিয়েছিল প্রতিষ্ঠানটি। সে ধারাবাহিকতা এখনো বজায় রেখেছে তারা। তবে যুগের হাওয়ায় গ্রাহকদের চাহিদাতে এসেছে পরিবর্তন। গতানুগতিক ধারা থেকে বেরিয়ে ভিন্ন কিছু তাদের চাওয়া। সেই চাওয়া পূরণে কর্মজীবী ফ্যাশন সচেতনদের জন্য ওভারসিজ কালেকশনে ফিউশন ঘটানোর চেষ্টা করেছে ব্র্যান্ডটি।

ঘড়ি নির্মাণে এ ব্র্যান্ডের বিবর্তনগুলো বেশ সূক্ষ্ম। তবে এ সময়ে ব্র্যান্ডটি নতুন নতুন যে সংযোজন করছে, তা হলো ভিন্ন ভিন্ন কারুকার্যের ডায়াল আর ব্রেসলেটের সঙ্গে পানি প্রতিরোধী ক্ষমতা, চৌম্বকবিরোধী বৈশিষ্ট্যসহ নানা বৈশিষ্ট্য।

ভাশ্চেরৌ কনস্ট্যান্টিন ব্র্যান্ডের সব ঘড়ির ওপরেই একটি মল্টিয় ক্রসচিহ্ন দেখা যায়। এবারের সংস্করণে ঘড়িগুলোর নানা স্থানে এটি রয়েছে অত্যন্ত সুপ্তভাবে, ব্যাজেলের সূক্ষ্ম কোণে, ঘড়ি আটকানোর বগলসে, রাবার স্ট্রাপের নকশায় বাঁ ধাতব ব্রেসলেটের সংযুক্তিগুলোতে। এছাড়াও এতে ব্যবহার করার সুযোগ আছে একাধিক স্ট্র্যাপ। চামড়ার, রাবারের বাঁ স্টিলের স্ট্র্যাপে পরিবর্তিত করে নেয়া যাচ্ছে একে। শুধু পছন্দমতো ছোট্ট কয়েকটি পরিবর্তন করেই এর ব্যবহারকারী নিজের আবির্ভাবে আনতে পারেন বিরাট পরিবর্তন।

 

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.