গত সপ্তাহ ধরেই ইন্টারেনেটের সবচেয়ে আলোচিত ঘটনা হলো উইকিলিকসের তথ্য ফাঁস। এর আগের খবর আপডেটের সময় সাইটটি দেখা গেলেও এখন আর সাইটটি দেখতে পাবেন না। বিশ্বরাজনীতিতে উইকিলিকসের তথ্য যুদ্ধ শুরু হয়ে গেছে। গত সপ্তাহে এটি বিশ্বের ৭৫ নম্বর আলেক্সা ট্রাফিক র‌্যাংক অর্জন করে। তাতেই বুঝা যায় কিরকম হিট হয়েছিল সাইটটিতে। এখন সাইটটি বন্ধ, আপাততঃ উইকিলিকসের অফিসিয়াল টুইটার এবং ফেসবুক ঠিকানাটা মনে রাখা যেতে পারে। একএকটা ডোমেইনে হোষ্ট করা হবে আর সেগুলোকে আমেরিকা বিভিন্ন চাপ প্রয়োগের মাধ্যমে বন্ধ করে দেবে এটাই সাধারন নিয়ম। এখন উইকিলিকসের সাম্প্রতিক খবর নিয়ে আলোচনা করছি।

আমাজান উইকিলিকসের জন্য তাদের হোষ্টিং সার্ভিস বন্ধ করলোঃ

আমাজান তাদের ডাটা সেন্টার থেকে উইকিলিকসের সাইটটি বন্ধ করে দিয়েছে। আমাজান জানিয়েছে গোপনীয় ও অন্যর তথ্য প্রচারের জন্য তারা তাদের সার্ভিসটি বন্ধ করে দিয়েছে। আমেরিকা আমাজানের এ সিদ্ধান্তকে স্বাগতঃ জানিয়েছে। আমাজানের ভাষায়,

“It’s clear that WikiLeaks doesn’t own or otherwise control all the rights to this classified content. Further, it is not credible that the extraordinary volume of 250,000 classified documents that WikiLeaks is publishing could have been carefully redacted in such a way as to ensure that they weren’t putting innocent people in jeopardy.”

উইকিলিকসের পক্ষ থেকে জানানো হয় কোন রাজনৈতিক কারনে উইকিলিকসকে বন্ধ করা যাবে না। কয়েক ঘন্টার মধ্যেই সুইডেন এবং ফ্রান্সের Bahnhof এর মাধ্যমে ফিরিয়ে আনা হয় সাইটটি। তবে অনেকেরই অভিযোগ আমাজান অনেক অনেক তথ্য সরবরাহ করছে যার মালিকানার বেপারে আদৌ কোন সার্টিফিকেট নেই। আপনার মতামত কি?

ডিএনএস সার্ভিস প্রোভাইডার বন্ধ করলো উকিলিকসের ডোমেইন

শুধু তাই নয়, এবার ডিএনএস প্রোভাইডারও বন্ধ করলো তাদের উইকিলিকস। EveryDNS.net এ তাদের ডিএনএসটিও বন্ধ করে দেওয়া হলো। তাদের মতে প্রচুর DDoS attack এর কারনে তারা এটি বন্ধ করেত বাধ্য হয়।

জুলিয়ান এসাঞ্জ

বর্তমানে শুধুমাত্র http://wikileaks.info নামে সাইটটি বেচে আছে।

পে-পাল একাউন্ট জব্দ

আন্তর্জাতিক অনলাইন টাকা আদানপ্রদানকারী সংস্থা পে-পাল স্থায়ীভাবে উইকিলিকসের একাউন্ট বন্ধ করে দিয়েছে। ব্যাপক জনপ্রিয় হয়ে ওঠা ওয়েবসাইটটিতে কোন বিজ্ঞাপন ছিল না এবং তারা পে-পালের মাধ্যমে অর্থ সংগ্রহ করতো। পেপাল তাদের নিজেদের ব্লগে এ বেপারে বলেছে-

“PayPal has permanently restricted the account used by WikiLeaks (Wikileaks) due to a violation of the PayPal Acceptable Use Policy, which states that our payment service cannot be used for any activities that encourage, promote, facilitate or instruct others to engage in illegal activity,”

নিজেদের রক্ষায় পদক্ষেপ নিয়েছে উইকিলিকস কর্তৃপক্ষ

উইকিলিকস প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ বলেছেন, তাঁর জীবন ঝুঁকির মুখে রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র সরকারের গোপন বার্তা প্রকাশের পর থেকে তাঁকে হত্যার হুমকি দেওয়া হচ্ছে। অ্যাসাঞ্জ বলেন, তিনি ও তাঁর সহকর্মীরা যেকোনো হুমকি থেকে নিজেদের বাঁচাতে যথাযথ পদক্ষেপ নিয়েছেন। গত শুক্রবার অজ্ঞাত স্থান থেকে অনলাইনে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ এসব কথা বলেন। তাঁর এ সাক্ষাৎকার ব্রিটেনের প্রভাবশালী দৈনিক গার্ডিয়ান-এর ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে। এদিকে অ্যাসাঞ্জ নতুন করে আরও তথ্য প্রকাশের ঘোষণা দিয়েছেন। গার্ডিয়ানকে তিনি বলেছেন, ভিনগ্রহের প্রাণী (এলিয়েন) ও অজ্ঞাত উড়ন্ত বস্তু (ইউএফও) সম্পর্কিত যুক্তরাষ্ট্রের গোপন তথ্যও তিনি প্রকাশ করবেন। তিনি তরুণ মার্কিন সেনা ব্রাডলি ম্যানিংকে ‘অপ্রতিদ্বন্দ্বী নায়ক’ বলে আখ্যায়িত করেছেন। ধারণা করা হচ্ছে, মার্কিন সেনাবাহিনীর গোয়েন্দা শাখার এই সেনাই সে দেশের গোপন দলিলপত্র উইকিলিকসের কাছে পাচার করেছেন। পুলিশ চলতি বছরের মে মাসে ম্যানিংকে গ্রেপ্তার করে। (বিস্তারিত প্রথম আলো)

উইকিলিকসের ফাঁস করা তথ্যের সত্যতা নিয়ে সন্দিহান কারজাই

আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট হামিদ কারজাই উইকিলিকসের ফাঁস করা মার্কিন কূটনৈতিক তথ্যের সত্যতা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন। গতকাল শনিবার কাবুলে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই সন্দেহ প্রকাশ করেন। এ সময় সফররত পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রী ইউসুফ রাজা গিলানি তাঁর সঙ্গে ছিলেন। উইকিলিকসের ফাঁস করা তথ্যে উল্লেখ রয়েছে, ‘মার্কিন কূটনীতিকেরা বলেছেন, কারজাইয়ের একজন সহযোগী সুটকেসে করে পাঁচ কোটি ২০ লাখ ডলার দেশ থেকে সরিয়েছেন।’ এই তথ্যের সত্যতা নাকচ করে দিয়ে কারজাই বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের সরকারি কর্মকর্তারা প্রতিদিন আমাদের সঙ্গে আলোচনা করছেন। প্রতিদিন তাঁরা এসে আমাদের কাছে এসে এ ব্যাপারে উদাহরণ তুলে ধরছেন। এমনকি পাঁচ হাজার ডলারের কোনো দুর্নীতির ঘটনা ঘটলেও তাঁরা এ বিষয়ে বলছেন। সে ক্ষেত্রে পাঁচ কোটি ২০ লাখ ডলার পাচারের মতো বড় ধরনের ঘটনার কথা তাঁরা বলবেন না কেন? একারণেই এসব তথ্যের সত্যতার ব্যাপারে আমার সন্দেহ আছে।’ (প্রথম আলো)

আলোচনাঃ

উইকিলিকসের তথ্য ফাঁসের বেপারটা প্রকৃত অর্থেই একটি উদ্বেগজনক ঘটনা। প্রতিটি সরকারেরই নিজস্ব কিছু তথ্য থাকে সেটা প্রকাশ করা যায় না। তবে এখন অবশ্য আরেকটি বেপারও দেখার বিষয় আছে। বিশ্ব রাজনীতিতে কারা দেশ ও বিশ্বের জন্য ভাল কাজ করছে এবং কারা বিশ্বের জন্য ক্ষতিকর কিছু সিদ্ধান্তে পৌছেছে তাও দেখার বেপার। উইকিলিকসের খবর থেকে অনেক বিশ্বশান্তি বিরোধী আমেরিকার মতৈক্য আমেরিকার ভবমুর্তি ক্ষুন্ন করছে। তবে সেটা মৌলিক বেপার না, মূল কথা বিশ্ব মানবতা বিরোধী সব সিদ্ধান্তকেই আমি ব্যক্তিগতভাবে ঘৃনা করি, যদিও সেটা নিজের দেশের জন্য ভাল হয়। আপনাদের মতামত কি?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here