সংসদসদস্যদের মধ্যকার যোগাযোগ সহজ করতে এবং সকল সংসদ সদস্যকে আরও সক্রিয় করতে এবার অ্যাপ বানানোর পদক্ষেপ নিয়েছে সংসদ সচিবালয়।

সংসদ সচিবালয়ের এই সংক্রান্ত একটি নথিতে বলা হয়, বিশ্বের অন্যান্য দেশের পার্লামেন্টের মত বাংলাদেশের সংসদ সদস্যদের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে আরও সম্পৃক্ত করতে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী নিজস্ব মোবাইল অ্যাপ তৈরির মৌখিক নির্দেশনা দেন। এই পরিপ্রেক্ষিতে ভারত ও সিঙ্গাপুরের পার্লামেন্টের আদলে নতুন অ্যাপ তৈরির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে নথিতে উল্লেখ করা হয়েছে। ওই অ্যাপের মাধ্যমে প্রথম থেকে সর্বশেষ সংসদের সব সদস্যের তথ্য পাওয়া যাবে।এছাড়া সংসদ সচিবালয়ের বিভিন্ন শাখার কর্মকর্তা ও অধিবেশনকালীন জরুরি তথ্যওঅ্যাপে থাকবে।

সংসদ সচিবালয়ের সিনিয়র সিস্টেম অ্যানালিস্ট মো. আশীফ ইকবাল বলেন, “অ্যাপ তৈরির বিষয়ে একটি নথি মাননীয় স্পিকারের অনুমোদনের জন্য দেওয়া হয়েছে। স্পিকারের অনুমোদনের পরপরই সংশ্লিষ্ট কাজ শুরু হবে।”

 প্রত্যেক স্থায়ী কমিটির নিজস্ব ওয়েবসাইট, লাইব্রেরি ইনফরমেশন সিস্টেম, ইনট্রানেটপোর্টাল, ল্যান সম্প্রসারণ, অফিস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমসহ বিভিন্ন তথ্যপ্রযুক্তি সেবা ক্রমান্বয়ে চালু করার পরিকল্পনার কথাও ওই নথিতে বলা আছে।

সংসদ সচিবালয়ের এক কর্মকর্তা জানান, প্রথম অবস্থায় শুধু মাত্র অ্যানড্রয়েড অ্যাপ তৈরির জন্য আনুমানিক আড়াই লাখ টাকা খরচ ধরা হয়েছে। তবে অ্যাপ বানানোর জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ সংসদ সচিবালয়ের নিজস্ব বরাদ্দ থেকে খরচ করার পরিকল্পনা রয়েছে বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

অবশ্য সংসদের নিজস্ব ওয়েবসাইট, ফাইল শেয়ারিং, ডিডিএমএস, ডিজিটাল সাউন্ড রেকর্ডিং সিস্টেম এবং সফটওয়্যার নির্ভর বিভিন্ন সেবা গত নবম সংসদেই চালু হয়েছে।

নবম সংসদের ‘মাননীয় সংসদ সদস্যগণের কানেকটিভিটি সৃজন ও জাতীয় সংসদে ইন্ট্রানেট এপ্লিকেশন তৈরির কর্মসূচি’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় ২০১৪ সালে সংসদসদস্যদের ল্যাপটপও দেওয়া হয়েছে।

প্রথম পর্যায়ে কেবল অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের জন্য এই অ্যাপ তৈরি করা হবে বলে সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা  জানিয়েছেন।

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.