নেটে ঘুরতে ঘুরতে নানান সময় নানান ধরনের মজার ছবি চোখে পড়ে। এর কোন কোনটি হয়তো সুন্দর, রহস্যময় বা উদ্ভট। কখনো ইচ্ছে করে সবার সাথে তা শেয়ার করি। এরই ধারাবাহিকতায় আজ আপনাদের সাথে শেয়ার করছি টুথপিক দিয়ে তৈরি করা অদ্ভুত কিছু শিল্পকর্মের ছবি।

১। ট্রেন

১৯২০সালের ট্রেনটির ৫৮ × ১৮ × ১৩ সেন্টিমিটার মাপের এই মডেলটি তৈরি করতে সময় লেগেছে এক বছর, আর এতে ব্যবহার করা হয়েছে ৮০০টি টুথপিক।

২। জাহাজ

পালতোলা এই জাহাজটির সাইজ ৫৭ × ৫৬ × ১৩ ইঞ্চি। ২৫,০০০টিরও বেশি টুথপিক লেগেছে এই মডেলটি তৈরি করতে। ১৯৯১ সালে এটির তৈরির কাজ শুরু হয়, কাজ যখন শেষ হয় তখন ক্যালেন্ডারের পাতা ১৯৯৩এর ঘরে।

৩। ঘোড়া

একবার অনুমান করুনতো এই ঘোড়াটি তৈরি করতে কতটি টুথপিক লাগতে পারে? মাত্র দেড় মিলিয়ন টুতপিক লেগেছে এই কর্মসাধন করতে। ৮ বর্গ মিটারের এই ত্রিমাত্রিক টুথপিক কর্মটি ২০০৭ সালে ৪০দিনে তৈরি হওয়ার সাথে সাথেই তা GuinnessWorldRecords এ সবচেয়ে বড় ত্রিমাত্রিক টুথপিক চিত্র হিসেবে স্থান করে নেয়।

৪। কাবাঘর

পৃথিবীর সবচেয়ে বড় মসজিদের এই টুথপিক রেপ্লিকা তৈরিতে কোয়াটার মিলিয়ন টুথপিক লেগেছে। ১৫ ফুট লম্বা এই মডেল তৈরিতে সময় লেগেছে তিন মাস।

৫। নিউওর্ক সিটির

নিউওর্ক সিটির ১.৪ মাইল লম্বা যায়গার টুথপিক রেপ্লিকাটি তৈরি হয়েছে ২১ ফুট যায়গায়। ৫০,০০০টি টুথপিক দিয়ে এই মডেল তৈরিতে সময় লেগেছে এক মাস।

৬। সিডনি অপেরা হাউস

এই অপেরা হাউসটি তৈরিতে ব্যবহার হয়েছে ৩৫,০০০টি টুথপিক।

৭। তাজমহল

১৫,০০০ টি টুথপিক ব্যবহার করা হয়েছে এই তাজমহলটি তৈরি করতে।

৮। “পিটার’স স্কয়ার”

ভেটিকান সিটির পিটার’স স্কয়ারের ১০ ফুট লম্বা এই রেপ্লিকা তৈরিতে সময় লেগেছে ৩ মাস। প্রায় ১,৫০,০০০টি টুথপিক লেগেছে এটি তৈরিতে।

আগামীতে আবার দেখা হবে অন্য কিছু ছবির সাথে, ততোদিন সকলেই ভালো খাকবেন।


এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের ঝিঁঝি পোকার বাগানে নিমন্ত্রণ।

comments

14 কমেন্টস

  1. চরম হইছে ভাই। আপনার নামের সাথে পোষ্টগুলানের সার্থকতা হচ্ছে। দলদস্যুর মত খুজে বেড়ান। হেহ হেহ 😉 😉

  2. সব কটা ছবি ই অসাধারন
    সুন্দর পোষ্ট
    তবে ভুমিকাটা কমোন

  3. অসাধারন পোস্ট! simply অসাধারন……………..জলদস্যু ভাই

  4. অসাধারন মানে অসাধারন । আরও লেখা চাই ………

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.