মহান মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ও যুদ্ধের ঘটনাগুলোকে এক জায়গায় আনা এবং মুক্তিযুদ্ধের সর্ববৃহৎ ডিজিটাল আর্কাইভ তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে প্রিয় লিমিটেড। ‘প্রিয় মুক্তি পিন’ নামের এ উদ্যোগের অংশ হিসেবে ডিসেম্বরজুড়ে দেশের ৬৪ জেলায়  মানুষের অংশগ্রহণে ও প্রিয় ডট কমের সরাসরি তত্ত্বাবধানে চলছে মুক্তিযুদ্ধের ঘটনাগুলোকে শনাক্ত করার কাজ। মুক্তিযুদ্ধের সে ঘটনা ও ইতিহাস লিপিবদ্ধ করা হচ্ছে বাংলাদেশের ডিজিটাল মানচিত্রের। প্রিয় লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জাকারিয়া স্বপন বলেন, ‘সর্বস্তরের বাংলাদেশি নাগরিককে এই উদ্যোগে সংযুক্ত করতে ডিসেম্বর থেকে প্রিয় মুক্তি পিন সফটওয়্যারটি সবার জন্য উন্মুক্ত করে রাখা হবে। উন্মুক্ত করা হবে মোবাইল অ্যাপ।’ বাংলাদেশসহ বিশ্বের যে কোনো প্রান্ত থেকে আগ্রহী যে কেউ মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে মুক্তি পিন ম্যাপের মাধ্যমে প্রকাশ করতে পারবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

যে কেউ পিন করার পর প্রিয় ডট কমের নিজস্ব বিচারক প্যানেল পিনদাতাদের দেয়া প্রতিটি পিনের সত্যতা নিশ্চিত করা হবে। সাধারণ মানুষের দেওয়া পিনগুলোর সত্যতা ও যথার্থ যাচাই করার জন্য গঠন করা উপদেষ্টা পরিষদে আছেন অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান, অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ কায়কোবাদ, অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ জাফর ইকবাল, ড. গওহর রিজভীসহ অনেকে। উদ্যোক্তারা জানিয়েছেন, যারা সঠিক পিন দেবেন তাদের পিনগুলোকে ম্যাপেই ভ্যারিফাই করে দেয়া হবে। ১ ডিসেম্বর থেকে শুরু হওয়া এ প্রকল্পটি চলবে আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

মার্চে আড়ম্বরপূর্ণ এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সর্বোচ্চ সংখ্যক সঠিক মুক্তি পিনদাতাদের মধ্য থেকে প্রথম ১০০ জনের প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে পুরস্কার ও অন্যান্য সৌজন্য সামগ্রী উপহার দেয়া হবে।

পিন করার প্রক্রিয়া সম্পর্কে বলা হয়েছে, যেকোন স্মার্টফোনটিতে প্রিয় অ্যাপটি ডাউনলোড করুন অথবা ব্রাউজার থেকে মুক্তিপিন ওয়েব পেজটি ভিজিট করুন। ওয়েব পেজ বা অ্যাপটি লোড হওয়ার পর আপনার সামনে উন্মুক্ত হওয়া স্ক্রিনটিতে পিন করুন নামক বাটনটি ক্লিক করুন। একটি উইন্ডো প্রদর্শিত হবে, সেখানে আপনার প্রাথমিক সব তথ্য (নাম, ফোন নম্বর এবং ইমেইল) দেয়ার পর আপনার পিন সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য দিন। মুক্তিপিনের টাইটেল, ওই ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ছবি (এক বা একাধিক ছবি ব্যবহার করা যাবে), ঘটনার বিবরণ, সময়কাল (বাধ্যতামূলক নয়) লিখে সঠিক স্থানটি ম্যাপে সংযুক্ত করে পোস্ট বাটনে ক্লিক করুন। ঘটনা সংশ্লিষ্ট সঠিক জায়গাটি ম্যাপে পিন করার সুবিধার্থে ম্যাপের সঙ্গে সংযুক্ত সার্চ অপশনে জায়গাটির নাম লিখে এন্টার ক্লিক করুন। এরপর সঠিক জায়গাটি ম্যাপের মধ্য থেকে খুঁজে বের করে পিন করুন। পোস্ট করার পর আপনার পিনটি প্রাথমিকভাবে ম্যাপে সংরক্ষিত হবে। কিছু সময় পর যাচাই-বাছাই (ভেরিফিকেশন) প্রক্রিয়া শেষে আপনার পিনটি আমাদের মুক্তি পিন ম্যাপে স্থায়ীভাবে প্রকাশ করা হবে। পিন প্রদানের জন্য আপনার দেয়া তথ্যগুলো অবশ্যই বাংলায় হতে হবে। এক্ষেত্রে ইউনিকোড কিংবা অভ্র, অংকুর ইত্যাদি ফন্ট ব্যবহার করা যাবে। ঐতিহাসিক জায়গাটির যুদ্ধের সময়কার তৎকালীন ছবি দেয়া বাধ্যতামূলক নয়। বর্তমানে ওই স্থানটি যেমন অবস্থায় আছে, সেই ছবিটিও প্রদান করা যাবে।

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.