রসায়ন অবশ্যই মজার একটি বিষয়। আর সে মজাটাকে উপভোগ্য করার জন্য এখন আপনাদের শিখিয়ে দেয়া হবে, বাসায় সাবান প্রস্তুত করার কৌশল। মনে হয়তো প্রশ্ন জাগতে পারে যে বাজার থেকেইতো সাবান কেনা যায় বাসায় বানানোর ঝামেলা করার দরকার কি? কেনা জিনিস আর নিজে বানানো জিনিস এর মধ্যে কিছুটা হলেও পার্থক্য আছে। আর নতুন একটা জিনিস শিখলেও মন্দ কি? তো চলুন শুরু করা যাক…

যা যা লাগবেঃ

  • ৫০ মিঃ লিঃ নারিকেল তেল ( প্যারাসুট নারিকেল তেলের ৫০ মিলির প্লাস্টিক বোতল পাওয়া যায় ) ,
  • ৫০ গ্রাম সোডিয়াম হাইড্রক্সাড NaOH ( এতো কঠিন নাম মনে রাখার দরকার নাই, দোকানে গিয়ে কস্তিক সোডা বললেই দিয়ে দিবে )
  • লবন।

কি করতে হবেঃ

১. ছোট একটি কড়াই বা পাতিল নিন।

২. তাতে তেল ঢেলে দিন ।

৩. একটু গরম করুন ( ১ মিনিট হলে হবে )

BEA-2৪. সাবধানে তেলের সাথে কস্তিক সোডা মেশান ।

৫. কিছুক্ষন গরম করুন।

৬. যখন দেখবেন করাই এ সাদা সাদা শক্ত বস্তু ( সাবান ) দেখা যাচ্ছে তখন করাই নামিয়ে ফেলুন।

৭. এবার পাত্রে হাল্কা পরিমান লবন দিন ( গ্লিসারিন থেকে সাবান আলাদা করার জন্নে লবন দিতে হবে, লবন না দিলে ও হবে – এ লাইন টুকু না বুজলে ও চলবে )

৮. সাবান রোঁদে শুকিয়ে নিন।

৯. সাবানের নির্দিষ্ট আকার দিন।

ব্যাস , প্রস্তুত হয়ে গেল সাবান। বাসায় প্রস্তুত করা এ সাবান অধিক ক্ষার যুক্ত , তাই ব্যবহার করার সময় সাবধান থাকুন ।

সতর্কতাঃ

১. করাই এ কস্তিক সোডা ঢালার সময় সাবধান থাকতে হবে ।

২. এ সাবান অধিক ক্ষার যুক্ত, তাই বাচ্চাদের হাতে দিবেন না ।

পোস্টটি পছন্দ হলে বলবেন। পরবর্তীতে আরও অনেক কিছু প্রস্তুত করা নিয়ে লেখার ইচ্চে আছে। তবে অবশ্যই এমন কিছু যার উপকরন দোকানে কিনতে পাওয়া যাবে।

comments

15 কমেন্টস

  1. “তাই ব্যবহার করার সময় সাবধান থাকুন”
    সবধানতার পিছনে কি ক্ষতি থাকতে পারে?
    সুন্দর পোষ্টের জন্য ধন্যবাদ

    • প্রথম কমেন্ট এর জন্যে ধন্যবাদ । সাবান ক্ষার তো…। তাই একটু সাবধান হতে হবে । বাচ্চাদের হাতে দিবেন না দয়াকরে…।

    • যেসব দোকানে কাপর রঙ করার জিনিস পত্র কিনতে পাওয়া যায় । সেইসব দোকানে কস্তিক সোডা পাওয়া যাবে ।
      আর সোডা আগে পানিতে গলিয়ে নিতে হবে । তেলে দেবার পর দুটি স্তর দেখা যাবে । যতক্ষণ পর্যন্ত স্তর দুটি এক না হয় ততক্ষন পর্যন্ত গরম করতে হবে ।
      ,……।আপনাকে অনেক ধন্যবাদ ।

  2. ভাই আরো লিখেন। চরম লিখসেন। আমরা অবশ্য কেমিস্ট্রি ল্যাবেই সাবান বানিয়েছি অনেক বার

    • লেখব ভাই , সব লেখা হয়ে গেছে । বিষয় খুজে পাচ্চি না । একটা আইডিয়া দেন ……।
      ,……।আপনাকে অনেক ধন্যবাদ

  3. হেহে, এবার আমি সাবান বানিয়ে সবাইকে উপহার দেব। 😀
    ধন্যবাদ শেয়ার করার জন্য…..
    এধরনের আরও পোস্ট এর আশায় রইলাম।

    • আগে আমার জন্যে পাঠিয়ে দিয়েন ……
      আপনার কথা ফেলতে পারব না । তাই আবার লিখব……।
      ……ধন্যবাদ।।

    • অধিক ক্ষার কমানোর জন্যে অনেক গুলো প্রক্রিয়া আছে । মুলত সাবানের সাথে আরও অনেক কিছু মিশিয়ে সেটা বাজারে বিক্রির উপযুক্ত করা হয় । সকালে যে পেস্ত দিয়ে দাত ব্রাশ করেছেন সেখানে ও সাবান আছে । সাথে আছে ছক পাউডার । আরও ……ধন্যবাদ।।

  4. কি যে বলেন শাওন ভাই ,……।আপনাকে অনেক ধন্যবাদ ।

  5. যখন স্কুলে পড়ছিলাম তখন বানাতে চাইছিলাম । পরে আর হয়ে উঠে নাই । দেখি বানাব:-)

  6. কস্টিক সোডা বা NaOH কি পরিমাণে দিতে হবে?
    এছাড়া সুগন্ধি যোগ করার উপায় কি?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.