যুক্তরাষ্ট্রের বোস্টনে গত ১০ ও ১১ মে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল দুইদিনের লিংকড ডেটা (এলডিফোর) সম্মেলন। হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের জোসেফ বি মার্টিন সম্মেলন কেন্দ্রে সম্মেলনের শুরু হয় ১০ মে (শুক্রবার) সকালে। এতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ডেটা নিয়ে কাজ করা অনেকেই যোগ দেন। মূলত লিংকড ডেটা কোন কোন বিষয়ে কিভাবে কাজ লাগতে পারে সে বিষয়গুলো নিয়েই সম্মেলনে নানা ধরনের পেপার প্রেজেন্টেশন, সেমিনার, কর্মশালা ও আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। 
সম্মেলনের শুরুতে এলডিফোর শীর্ষক এ সম্মেলনের বিস্তারিত তুলে ধরেন সম্মেলনের কো-চেয়ার স্ট্যানফোর্ড ইউনিভার্সিটির ল্যাথরোপ লাইব্রেরির ম্যানেজার মিশেল ফুটোরনিক। তিনি বলেন, সারাবিশ্বের লিংকডেটাকে কিভাবে নানা মাধ্যমে কাজে লাগানো যায় এ বিষয়ে দীর্ঘ গবেষণা চলছে। এ সম্মেলনের মাধ্যমে এমন বিষয়গুলো নিয়ে কাজ করা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের অনেকেই অংশ নিয়েছেন এবং এ বিষয়ে নানা ধরনের কার্যক্রম যা এখন আছে এবং ভবিষ্যৎতে করা যাবে সে বিষয়গুলো নিয়ে নানা আলোচনা থাকবে। 
সম্মেলনের আরেকজন কো-চেয়ার কর্ণেল ইউনিভর্সিটি জ্যাসন কোভারি বলেন, আমরা চেষ্টা করেছি লিংকড ডেটা নিয়ে কাজ করেন এমন মানুষদের এক ছাদের নীচে এক জায়গায় করার যেখানে লিংকড ডেটা ভবিষ্যৎতে আরো কোন কোন মাধ্যমে কিভাবে যুক্ত হতে পারে সে বিষয়গুলো জানা যায়। 
উদ্বোধন শেষে অনুষ্ঠিত হয় একাধিক সেশন। ছবি: সিসি-বাই-এসএ ৪.০

সম্মেলনের প্রথম দিনে উদ্বোধনী পর্ব শেষে একাধিক সেশন অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্যে ছিল লিংকড ডেটা ফর প্রোডাকশন, লিংকিং দ্য ওয়াল্ড নলেজ থ্রো উইকিডেটা-এ ভিশন ফর কানেক্টেড কালচারাল হেরিটেজ উইথ ক্রাউড, ইম্প্লেমেন্টিং স্কেমা ইন স্ট্যানফোর্ড ডিসকভারী ইনভারনমেন্ট, ইউটিলাইজড বিবলিউগ্রাফিক লিংকড ডেটা অ্যাড গুগল, লিংকড ডেটা ইন দ্য মিড-সাইজড ইউনিভার্সিটি, ভিজু্যয়াল ওয়ার্কফ্লো ফর কনট্রিবিউটিং অ্যান্ড অ্যাকসেসিং লিংকড ডেটা, টুলস অ্যান্ড মেথডস ফর কালেকশন ডিসকভারী অ্যান্ড মডেলিং ইত্যাদি।

সম্মেলনে যোগ দেওয়া এক অংশগ্রহণকারী জানান, বর্তমানে ডেটা জার্নালিজমের বিষয়টিও বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। এখানে ডেটাই যেহেতু মুখ্য বিষয় তাই লিংকড ডেটা কিভাবে ডেটা জার্নালিজমে সহায়তা করতে পারে সে বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনায় যোগ দেওয়ার ইচ্ছে থেকেই সম্মেলনে যোগ দেওয়া। 
লিংকড ডেটা বিষয়ক নানা ধরনের আলোচনা, কর্মশালা এবং নতুন নানা ধরনের অংশীদারি কাজের বিষয়ে একমত হওয়ার মধ্য দিয়ে দ্বিতীয় দিন ১১ মে (শনিবার) শুরু হয় আয়োজন। 
 
সম্মেলনে বিভিন্ন দেশের লিংকড ডেটা নিয়ে কাজ করা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, গবেষক, লাইব্রেরি প্রফেশনার, ওপেন সোর্স অ্যাডভোকেট, তথ্যপ্রযুক্তি সাংবাদিকসহ অনেকেই যোগ দিয়েছেন। সম্মেলনে যোগ দেওয়া ইউনিভার্সিটি অব ওরিগনের ডিজিটাল মেটাডেটা লাইব্রেরিয়ান ও ওরিগন ডিজিটাল নিউজপেপার প্রোগ্রামের প্রোগ্রাম ম্যানেজার সারাহ ই সেমোর জানালেন, ‌’এক ছাদের নীচে বিভিন্ন পেশাজীবিদের এমন সম্মেলনে সত্যিকার অর্থেই অনেক কিছু যেমন শেয়ার করা সুযাগ হয় তেমনি জানার সুযোগও হয়। ভালো লেগেছে সম্মেলনে যোগ দিয়ে।’ সম্মেলন শেষে যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে আরেকটি সম্মেলনে যোগ দেওয়ার কথাও জানান তিনি। 
 
সম্মেলনের শেষ দিনে দুপুরে অনুষ্ঠিত হয় বিশেষ তিনটি সেশন। প্রথম দিনে অংশগ্রহণকারীদের কাছ থেকে পছন্দের বিষয় জানতে চাওয়া হয় যা পরেরদিন দুপুরে আয়োজনের কথা জানান আয়োজকেরা। অংশগ্রহণকারীদের নানা পছন্দের মধ্য থেকে সবচেয়ে বেশি ভোট পাওয়া তিনটি বিষয় নিয়ে হয় উন্মুক্ত আলোচনা। সেখানে অংশগ্রহণকারী নানা বিষয় তুলে ধরেন। 
 
প্রথম দিন শেষে দ্বিতীয় দিনে আরেক অংশগ্রহণকারী জানালেন, যে কোন ডিজিটাল ফাইলের জন্য মেটাডেটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। লিংকড ডেটার সাথে মেটাডেটার দারুণ সম্পর্ক। সে বিষয়গুলো এবার কয়েকটি সেশনে আলোচনা হয়েছে। বেশ ভালো লেগেছে। 
 
সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনেও ছিলো জমজমাট নানা আয়োজন। ছবি: সিসি-বাই-এসএ ৪.০

শেষ দিনে ভিডিও গেম কন্ট্রোলড ভকাবুলারি ইন উইকিডেটা, লিংকড ডেটা ডিসক্রিপশন ফর স্ক্যানড কার্টোগ্রাফিকস ম্যাটারিয়েলস, লিংকড ডেটা অ্যাপ ফর অথোরিটি কন্ট্রোল, মেকিং লিংকড ডেটা ডেভলপমেন্ট মোর ওপেন অ্যান্ড লেস সেন্ট্রালাইজড, আইডিয়েশন টু প্রটোটাইপ ইত্যাদি বিষয়ে বিশেষ পর্ব অনুষ্ঠিত হয়েছে। এছাড়াও ছিলো লিংকড ডেটা বিষয়ে বিশেষ প্রশিক্ষণ পর্ব। 

 
সম্মেলনের কো-চেয়ার স্ট্যানফোর্ড ইউনিভার্সিটির ল্যাথরোপ লাইব্রেরির ম্যানেজার মিশেল ফুটোরনিক জানান, এ ধরনের সম্মেলন আমরা নিয়মিত করার চেষ্টা করছি। যাতে করে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের একই রকম কাজ করা মানুষদের আমরা একটি নেটওয়ার্কর মাধ্যমে একসাথে যুক্ত করতে পারি। তিনি এ সম্মেলনে প্রোগ্রাম কমিটির সদস্য হিসেবে কাজ করায় এ প্রতিবেদককে ধন্যবাদ জানান। 
comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.