জিএনইউ ইমেইজ ম্যানুপুলেশন প্রোগ্রাম (জিম্প) বিভিন্ন ছবি সম্পাদনার জন্য দারুন একটি মুক্ত সফটওয়্যার। অনেকে একে গিম্প নামেও চেনেন। অ্যাডবি ফটোশপের সমতুল্য এই সফটওয়্যারটি দিয়ে ছবি আঁকা, লোগো বানানো, রিসাইজ, ক্রপ, ছবি একসাথে মেলানো, ছবির ধরন পরিবর্তন ইত্যাদি কাজ ছাড়াও ছোটখাট অ্যানিমেটেড ইমেজ জিপ ফরম্যাটে সহজেই করা যায়। জিম্পের ইন্টারফেস বা সফটওয়্যারের অবয়বটিকে নিজের মতো করে তৈরী করা যায়। এমনকি উইজেটের আকার, থিমের সাথে সাথে টুল বক্সের বিভিন্ন আইকনের চেহারা পরিবর্তন করা সম্ভব। রয়েছে প্রায় ৫২টি ভাষায় যার সবগুলোই বিনামূল্যে ডাউনলোড করা যাবে।

স্পেনসার কিমবেল ও পিটার ম্যাটিস নামে দুই জন ১৯৯৫ সালে নিজেদের বিশ্ববিদ্যালয়ের সেমিষ্টারের প্রকল্প হিসেবে জেনারেল ইমেজ ম্যানুপুলেশন প্রোগ্রামটি তৈরী করেছিলেন। পরের বছরের প্রথম মাসেই এটি উš§ুক্ত করেন তারা। পরবর্তী ১৯৯৭ সালে এটি জিএনইউ প্রজেক্টে আসলে এর আদ্যক্ষরের অর্থ জেনারেল থেকে জিএনইউ হয়ে যায়। বর্তমানে জিম্প জিনোম প্রজেক্টের অধীনে একদল স্বেচ্ছাসেবক দ্বারা এটি পরিবর্তন, পরিবর্ধন ও পরিমার্জিত হয়ে থাকে। জিম্পের অন্যতম একটি সুবিধা হচ্ছে এটি নিজের মতো তৈরী করে নেয়ার সুবিধা। আর এটি অন্যান্য ছবি সম্পাদনার সফটওয়্যারের চেয়ে অনেক হালকা। জিম্পের ইন্টারফেস বা সফটওয়্যারের অবয়বটিকে নিজের মতো করে তৈরী করা যায়। এছাড়াও এর উইজেটের আকার, থিমের সাথে সাথে টুল বক্সের বিভিন্ন আইকনের চেহারা পরিবর্তন করা সম্ভব। এই সফটওয়্যারে একজন ব্যবহারকারী ফুল স্ক্রিন মুডে কাজ করার সুবিধা পাবেন। এতে নিজের ছবিকে বড় আকারে দেখার পাশাপাশি ছবি সম্পাদনার ক্ষেত্রে বাড়তি সুবিধা পাওয়া যায়। জিম্পে সাধারণত টুলবক্স উইন্ডো, ইমেজ উইন্ডো এবং ডায়ালগ ডোকিং উইন্ডো নামে তিনটি উইন্ডো থাকে। জিম্পের প্রধান উইন্ডো হল টুলবক্স উইন্ডো।

কোন ছবি খোলা বা জিম্প থেকে বেরিয়ে আসার মতো জরুরী কাজগুলো এই উইন্ডো থেকেই সম্পন্ন করতে হয়। এই উইন্ডোর মধ্যে একটি মেনুবার, টুল বাটন এবং কিছু প্রয়োজনীয় কন্ট্রোল আছে যা জিম্পকে সুচারুভাবে চালনা করতে সাহায্য করে। টুলবক্সকে নিজের ইচ্ছামত রিসাইজ করা যায়। টুলবক্স যেভাবে রিসাইজ হবে টুল বাটনগুলো সেভাবে স্বয়ংক্রিয়ভাবে রিসাইজ হয়ে যায়। প্রত্যেকটি টুলের কি কাজ, সেটি সেই টুলটির ওপর মাউস রাখলে যে টুলটিপ আসবে তাতে লেখা থাকে। উল্লেখ্য, জিম্প পুরোটাই ড্র্যাগ অ্যান্ড ড্রপ সাপোর্ট করে। যে কোন ছবিকে জিম্পে খুলতে হলে ছবিটিকে টুলবক্সের ওপর ড্র্যাগ করে ড্রপ করলেই হয়। জিম্পের একটি বৈশিষ্ট্য হল ছবি খোলার জন্য জিম্প একটি আলাদা উইন্ডো তৈরী করে, এই উইন্ডোটিকেই ইমেজ উইন্ডো বলা হয়। এছাড়া এতে প্রচুর প্রয়োজনীয় ডায়ালগ উইন্ডো আছে। প্রত্যেকটি ডায়ালগ উইন্ডোকে আলাদাভাবে বলা হয় ডক। অনেকগুলি ডককে একসাথে একত্রে ব্যবহার করার ব্যবস্থাকে বলা হয় ডোকিং। জিম্পের ডোকিং উইন্ডোতে দুটি ডায়ালগ থাকে কিন্তু ইচ্ছা করলে আরও অনেকভাবে নিজেদের সুবিধামত এদেরকে পরিবর্তন করে নেয়া যায়। এই সফটওয়্যারটির কমান্ড লাইনেও কাজ করা যায়। ফটোশপের আদলে তৈরি করা এ সফটওয়্যারের রয়েছে ফাইল ফরম্যাট এবং এফেক্ট ফিল্টার ব্যবহার করার জন্য অসংখ্য প্লাগিনস । ওপেনসোর্স অপারেটিং সিস্টেম লিনাক্সের সঙ্গে ছবি সম্পাদনার সফটওয়্যার হিসেবে জিম্প ডিফল্টভাবে দেয়া থাকে। এছাড়াও উইন্ডোজের এক্সপি, ভিসতা, সান ওপেন সোলারিস, ম্যাকের জন্য রয়েছে এর আলাদা সংস্করন। সবগুলোই বিনামূল্যে নামানো যাবে।

জিম্প ডাউনলোড করা যাবে জিএনইউ ইমেজ ম্যানুপুলেশন প্রোগ্রাম ঠিকানার ওয়েবসাইট থেকে।

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.