২০১৭ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশের সকল এয়ারপোর্ট সমূহের ফ্লাইট ক্যালিব্রেশনের জন্য বিশ্বখ্যাত ইউকে ফ্লাইট ইনস্পেকশন ইউনিটের (এফসিএসএল) কারিগরী সহায়তার আলোকে সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ, বাংলাদেশ এবং স্মার্ট টেকনোলজিস (বিডি) লিমিটেডের (এসটিবিএল) মধ্যে একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। উড়োজাহাজ সমূহের নিরাপদ উড্ডয়ন ও অবতরন সম্পূর্ণ অটোমোটেড যন্ত্র নির্ভরও আইসিএও’রর নির্দেশনা অনুসারে পরিচালিত। এ সকল যন্ত্রপাতীর ক্যালিব্রেশন হারালে বা নষ্টের কারণে অধিকাংশ দুর্ঘটনা ঘটে থাকে। সুতরাং উড়োজাহাজ সমূহের নিরাপদ উড্ডয়ন ও অবতরনের জন্য আইসিএও তার সদস্যভূক্ত দেশ সমূহের এয়াপোর্টের এসব যন্ত্রপাতী ক্যালিব্রেশনের সঠিকতা নূন্যতম প্রতি বছর রুটিন চেক এর মাধ্যমে বাধ্যতামূলক আইন ও ধারা দ্বারা নিয়ন্ত্রন করে।
তিন বছর আগেও ১৩ কোটি টাকা বাজেটে এ ক্যালিব্রেশন সম্পন্ন করা হতো। এবছর এ কাজের জন্য খোলা দরপত্রের অধীনে এভিয়েশন অথরিটি, ইন্ডিয়া; এভিয়েশন অথরিটি, পাকিস্তান; এভিয়েশন অথরিটি, থাইল্যান্ড; এভিয়েশন অথরিটি, ইরান ও একমাত্র বাংলাদেশী কোম্পানী এসটিবিএল অংশ গ্রহন করে। দেশীয় লোকাল কোম্পানী এসটিবিএল ৫ কোটি ৮ লক্ষ টাকা দরে রেসপনসিভ সর্বনিম্ন নির্বাচিত হওয়ার গৌরব অর্জন করে।
বাংলাদেশে এই প্রথম ইউরোপিয়ান মানে ক্যালিব্রেশন সম্পন্ন করা হবে বলে জানান এফসিএসএল পরিচালক । এসটিবিএল স্বল্পমূলে উন্নত সেবা প্রদানের মাধ্যমে বাংলাদেশে সকল নিরাপদ উড্ডয়নের প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন। এ উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠঅনে উপস্থিত ছিলেন ব্রিটিশ নাগরিক এফসিএসএলের পরিচালক তৈয়ব ও এসটিবিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালখ মোঃ জহিরুল ইসলাম। এ চুক্তি ও বাস্তবায়ন বাংলাদেশের সকল এয়াপোর্ট সমূহের নিরাপদ উড্ডয়ন নিশ্চিত করবে।

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.