কর্মশালায় বিভিন্ন স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অংশ নেয়

ঢাকার ডেফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিয়ে আয়োজিত হলো বেসিক আরডুইনো কর্মশালা। মাকসুদুল আলম বিজ্ঞানাগার (ম্যাসল্যাব) এর এই আয়োজনে সহায়তা করে বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতি (বাবিজস) ও বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক (বিডিওএসএন)। শিক্ষার্থীরা রোবটিক্স গবেষণার পাশাপাশি বিভিন্ন ছোট সমস্যা সমাধানের জন্য ইলেক্ট্রনিক্সের বহুল পরিচিত কিট আরডুইনো ব্যবহার করে থাকে । বর্তমান সময়ে রোবটিক্স কিংবা প্রোগ্রামবেজ প্রজেক্ট তৈরির ক্ষেত্রে আরডুইনো ডেভেলপমেন্ট কিটটি ক্রমশ জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। সারা দিনের প্রায় ৭ ঘণ্টাব্যাপী এই কর্মশালায় হাতে-কলমে দেখানো হয়েছে কীভাবে এই ওপেনসোর্স হার্ডওয়্যারটি কাজ করে।

রোবটিক্স গবেষণার পাশাপাশি বিভিন্ন ছোট সমস্যা সমাধানের জন্য ইলেক্ট্রনিক্সের বহুল পরিচিত কিট আরডুইনো

ঢাকা ও আশেপাশের কয়েকটি জেলার বিভিন্ন স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট ৪০ জন শিক্ষার্থী এই কর্মশালায় অংশ নেয়। উপস্থিত শিক্ষার্থীদের বারোটি গ্রুপে ভাগ করে আরডুইনো পিন কনফিগারেশন , মাইক্রোকন্ট্রোলার, বেসিক ইলেকট্রনিক্স, সিরিয়াল কমুনিকেশন, লেড জ্বালানো নিয়ন্ত্রন, ডিজিটাল পিনের ব্যবহার, এনালগ পিনের ব্যবহার ,পালস উইথ মডুলেশন (পিডাবলুএম), টেমপারেচার সেন্সর , সোনার সেন্সর , সারভো মোটর , পুশ বাটন, পটেনশিওমিটার, এলসিডি ডিসপ্লে এবং বাযারের ব্যবহার শেখানো হয়। মোট ১০ টি বেসিক প্রোজেক্টের সাথে অংশগ্রহণকারীদের পরিচিত করা হয়। প্রতিটি ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের কাছে লজিক এবং কোডগুলিও সঙ্গে সঙ্গে ব্যাখ্যা করা হয়েছে।  বাবিজস ও বিডিওএসএনের একাডেমিক সদস্যগণ কর্মশালাটি পরিচালনা করেন।

কর্শালার অভিজ্ঞতা নিয়ে মানিকগঞ্জের হলি চাইল্ড স্কুলের ৩য় শ্রেণির শিক্ষার্থী অনন্য যারিফ আকন্দ   জানায়, ‘আরডুইনো দিয়ে কাজ করা খুব সহজ। একটু প্রোগ্রামিং জানা থাকলেই যেকোনো বয়সের যেকেউ আরডুইনো নিয়ে কাজ করতে পারে।আজকে নিজের হাতে এখানে এটার ব্যবহার শিখতে পাওয়া ছিল দারুন এক নতুন অভিজ্ঞতা।’ বাংলাদেশে ইন্টারনেট অব থিংসকে(আইওটি) জনপ্রিয় করার জন্য এই কর্মশালা আয়োজন করা হয়েছে বলে জানান বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্কের প্রোগ্রাম কোঅর্ডিনেটর মোশাররফ হোসেন টিপু। তিনি আরও জানান ভবিষ্যতে সারাদেশে আরও বেসিক আরডুইনো কর্মশালা আয়োজিত হবে এবং ইন্টারনেট অব থিংস নিয়ে তাদের বিশাল কর্মপরিকল্পনা আছে, যা খুব দ্রুত ঘোষণা করা হবে।

কর্মশালার মেন্টর ওয়ালটনের হেড অব ইলেকট্রিকাল রেদওয়ান ফেরদৌস জানান প্রতিটি ওয়ার্কশপ থেকে সেরা ৪ জনকে নির্বাচিত করা হচ্ছে এডভান্স আরডুইনো ওয়ার্কশপের জন্য। তাদের উচ্চতর প্রশিক্ষণ দিয়ে ইন্টারনেট অব থিংস নিয়ে বাস্তবমুখী সমস্যা সমাধানে উদ্বুদ্ধ করা হবে বলেও তিনি জানান।

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.