সামাজিক যোগাযোগের জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ফেসবুক ইসরায়েলের বিরুদ্ধে ফিলিস্তিনে নতুন অভ্যুত্থানের ডাক দিয়ে তৈরি করা একটি পেজ মুছে দিয়েছে। পেজটিতে সাড়ে তিন লাখের বেশি মানুষ যোগ দিয়েছিল(সাইন-আপ)। পেজটিকে থার্ড প্যালেস্টিনিয়ান  ইনতিফাদা অর্থাৎ তৃতীয় ফিলিস্তিনি অভ্যুত্থান হিসেবে অভিহিত করা হয়েছিল। এর আগের দুটি অভ্যুত্থান হয়েছিল ইসরায়েলি দখলদারির বিরুদ্ধে।

ফেসবুকের একজন মুখপাত্র বলেন, সহিংসতার ডাক দেওয়ায় পেজটি ফেসবুক থেকে মুছে দেওয়া হয়েছে। পেজটির ব্যাপারে ইসরায়েলও উদ্বেগ প্রকাশ করেছিল। কেননা সম্প্রতি আরবদেশগুলোয় বিক্ষোভ ছড়িয়ে দিতে ফেসবুক ব্যাপক ভূমিকা রেখেছে।
থার্ড প্যালেস্টিনিয়ান ইনতিফাদা পেজে আগামী ১৫ মে শুক্রবার জুমার নামাজের পর বিক্ষোভ সমাবেশের ডাক দেওয়া হয়। তবে পেজটি মুছে ফেলার পর ওই পেজের মতো দেখতে তিনটি পেজ ফেসবুকে দেখা যায়। এসব পেজে সব মিলিয়ে সাত হাজার ফিলিস্তিনি সাইন-আপ করে। ইসরায়েলের পাবলিক ডিপ্লোমেসিবিষয়ক মন্ত্রী ইউলি এডেলস্টেইন গত সপ্তাহে ফেইসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জুকারবার্গকে একটি চিঠি পাঠান।
তাতে তিনি বলেছেন, ‘থার্ড প্যালেস্টিনিয়ান ইনতিফাদা পেজে ইহুদিদের হত্যার ডাক দেওয়া হয়েছে। আমরা এতে উদ্বেগের মধ্যে আছি। এ ব্যাপারে আমরা আপনার হস্তক্ষেপ কামনা করি।’
এই চিঠি পাঠানোর এক সপ্তাহের মধ্যে ফিলিস্তিনি পেইজটি মুছে ফেলা হয়। ফেইসবুকের পাবলিক পলিসি কমিউনিকেশনস ম্যানেজার অ্যান্ড্রু নয়েস বলেন, ‘সহিংসতাকে উসকে দেয়, এমন কোনো কিছু আমরা আমাদের ওয়েবসাইটে রাখব না। আমরা এ ধরনের পেজ পেলেই তা মুছে ফেলি।’—বিবিসি অবলম্বনে রোকেয়া রহমান, প্রথম আলোতে প্রকাশিত সংবাদ

facebooklogo

আলোচনাঃ

এই খবরটির প্রেক্ষিতে বেশ কিছু কথা বলবো, একান্তই আমার নিজস্ব মতামত, আপনাদের মতামতও জানান।

১. যে কোন ব্যক্তি বা গোষ্ঠিকে হত্যা করার বেপারে প্রচারণাকে ঘৃণার চোখে দেখি। তবে এই প্রচারনা বন্ধ করা কি ফেসবুকের পক্ষে সম্ভব?

২. ফেইসবুক একটি আমেরিকান প্রতিষ্ঠান এবং এটি রাজনৈতিক কারনে মুছে দিয়েছে। এর আগে অনেক পেজের বেপারেই ফেসবুক কর্তৃপক্ষ চুপ ছিল।

৩. ইসরাইলসহ অনেক দেশের প্রেসিডেন্ট পর্যায়ের লোকজন সরাসারি সামাজিক নেটওয়ার্ককে গুরুত্ব দেয় এবং তাদের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বেপারে সামাজিক নেটওয়ার্কের অংশগ্রহণকে নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করে।

৪. ফেইসবুক টুইটারসহ সামাজিক নেটওয়ার্কের তথ্য সমুহ কখনোই নিরাপদ নয়। যে কোন সময় আমেরিকা বা তার পক্ষের লোকজন তাদের স্বার্থ রক্ষায় এটা কাজে লাগাতে পারে।

comments

5 কমেন্টস

  1. যে কোন দেশের সোশ্যাল মিডিয়াই রাজনীতির কাছে মাথা করতে বাধ্য। ইসলাম বিরোধী, উস্কানীমূলক অনেক পেইজ রয়েছে ফেইসবুকে যেগুলো তারা ডিলিট করেনি আর করবে বলেও মনে হয় না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.