মার্ক জাকারবার্গ

সান ফ্রান্সিসকোর একটি সম্মেলনে তারা বললেন এই শতাব্দীর শেষভাগে তারা যত রোগবালাই আছে, তা থেকে মুক্ত করবেন মানুষদের। তাদের কাজ হবে মানুষকে আরোগ্যদান করা, সকল রোগ থেকে দূরে রাখা এবং তা যেন না হয় তা সম্পর্কে যাতে তারা ঠিকভাবে নিজেদের বাঁচিয়ে রাখতে পারে তা সম্পর্কে জানিয়ে রাখা।

বলছিলাম ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ ও তার সহধর্মিনী প্রিসিলা চ্যানের কথা। এটি সম্ভব করতে যত অর্থ লাগবে তার অর্থায়ন করা হবে দ্য চ্যান জাকারবার্গ ইনিশিয়েটিভ থেকে। এটি দুজন মিলে প্রতিষ্ঠা করেছিলেন ২০১৫ সালের ডিসেম্বরের দিকে। প্রযুক্তিগত বিষয়ে যত শীর্ষ নেতারা রয়েছেন তারা বর্তমানে এই স্বাস্থ্য খাতটি নিয়ে বেশ ভাবছেন বলেই এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

কয়েকদিন আগেই মাইক্রোসফট ঘোষণা দিয়েছে যে তারা ক্যান্সার রোগের মোকাবিলা করবে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বিষয়ক যন্ত্রের সাহায্যে। গুগলের যারা বড় বড় কর্তাব্যক্তিরা আছেন, তারা কাজ করছেন NHS নিয়ে যার ফলে কম্পিউটারের সাহায্যে কি করে আরো কম সময়ে ও নিখুঁতভাবে রোগ নির্ণয় করা যেতে পারে।

IBM ও MIT  একসাথে কাজ করতে চাচ্ছে বয়স্ক ব্যক্তিবর্গের যে সকল রোগ রয়েছে তা নির্ণয়ে সাহায্য করা ও তাদের সকল ধরণের চিকিৎসা বিষয়ক সাহায্য দেয়া। চ্যান ও জাকারবার্গ তাদের লক্ষ্য পূরণে  এ বিষয়টিও মাথায় রেখেছেন। কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে তাদের এ লক্ষ্য পূরণে ধার্য করা হয়েছে ৩ বিলিয়ন ডলার। এই অর্থ কি পর্যাপ্ত যথেষ্ট তাদের লক্ষ্যে পৌছবার জন্য?

ব্রিটিশ একটি চ্যারিটি প্রতিষ্ঠান, ক্যান্সার রিসার্চ ইউকে, তারা মাত্র একটি রোগের পেছনেই বছরে প্রায় অর্ধ বিলিয়ন টাকা ব্যয় করে থাকে। এটি গবেষণা কার্যে ও রোগ নির্ণয়ে আরো অর্থ ব্যয় করে থাকে। ওয়েলকাম ট্রাস্ট নামের একটি প্রতিষ্ঠান, যেটি হচ্ছে পৃথিবীর মাঝে সবচেয়ে বড় চিকিৎসা গবেষণা বিষয়ক দাতব্য সংস্থা। এটি আগামী পাঁচ বছরের মাঝে প্রায় ৬.৫ বিলিয়ন টাকা ব্যয় করবে।

এটি সন্দেহের কোন অবকাশ নেই যে জাকারবার্গ ও চ্যান দম্পতি তাদের লক্ষ্য পূরন করতে পারলে খুব বড় ধরণের একটি ভূমিকা হবে পৃথিবীর মাঝে। যেমনটি বিল ও মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন তাদের লক্ষ্য পূরণ করতে পেরেছিল ম্যালেরিয়া রোগ দূরীকরণে। এর পেছনে প্রচুর অর্থ ব্যয় করা হচ্ছে, নিত্য নতুন প্রযুক্তি আসছে ও বিজ্ঞানীরাও তাদের শ্রম দিচ্ছেন। ঢালা হচ্ছে কাঁড়ি কাঁড়ি টাকা।

কিন্তু রোগ সম্পূর্ণরুপে দূর করা- এই লক্ষ্য কি আসলেই বাস্তবায়িত হবে? সেটাই দেখবার বিষয়।

 

সূত্রঃ বিবিসি নিউজ

 

 

 

 

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.