অনসূয়া অয়ন্তীঃ অনেকেরই একটানা তিন কাপ ব্রুড কফি কিংবা সাত কাপ সাধারণ কফি খাওয়ার অভ্যাস আছে। কিন্তু আপনি কী জানেন, অতিরিক্ত কফি পান করার কারণে হেল্যুসিনেশন বা দৃষ্টিভ্রম হতে পারে?

একটি গবেষণায় দেখা গেছে, অতিরিক্ত কফি নিয়মিত পান করলে হেল্যুসিনেশন হতে পারে। অর্থাৎ, আপনি এমন কোনো অবাস্তব বস্তু দেখতে পারেন অথবা কোনো অবাস্তব শব্দ শুনতে পারেন যা শুধুই আপনার কল্পনা। এতে মানসিক সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন।

সাত কাপ কফিতে ৩১৫ মিলিগ্রাম ক্যাফিন থাকে। অর্থাৎ,তা ছয় চাপ কড়া চা, ৯ বোতল কোলাস, ৪ বোতল রেড বুলস এবং আধা কাপ বুটিক ক্যাফে পান করার সমতুল্য।

jbkj

ক্যাফিন কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্রে প্রভাব ফেলে যা সাময়িকভাবে ঘুম নিবৃত করে এবং সতর্কতা পুনরুদ্ধার করে। ক্যাফিন একটি বিশ্ববিখ্যাত ড্রাগ। এটি পান করার  ৪৫ মিনিট পরই তা পাকস্থলী এবং ছোট অন্ত্র দ্বারা শোষিত হয়। কফি পান করলে মানসিক এবং শারীরিক কর্মদক্ষতা বৃদ্ধি পায়। কিন্তু অতিরিক্ত কফি পান করলে, শরীরে বিষক্রিয়া, স্নায়ুবিক দুর্বলতা, রোষপ্রবণতা, পেশিতে টান, দুশ্চিন্তা, মাথাব্যথা, দ্রুত বক্ষস্পন্দন প্রভৃতি মানসিক ও শারীরিক সমস্যা হতে পারে।

ইউনাইটেড কিংডম ইউনিভার্সিটির অর্থনৈতিক ও সামাজিক গবেষণা কেন্দ্র এবং মেডিক্যাল গবেষণা কেন্দ্রের সম্মিলিত গবেষণায় ২০০ জন ছাত্র অংশগ্রহণ করে। ক্যাফিন ধারণকারী পণ্যের ( যেমন – কফি, এনার্জি ড্রিংক্স, চকলেট বার এবং ক্যাফিন ট্যাবলেট) প্রতি তাদের আসক্তির মাত্রা পরীক্ষা করা করা হয়। তাদের মানসিক ও শারীরিক কর্ম চাপের প্রভাব এবং দৃষ্টিভ্রমসম অভিজ্ঞতার প্রবণতা মূল্যায়ন করা হয়। অবাস্তব কোনো বস্তু দেখা বা অবাস্তব শব্দ শোনা, কোনো মৃত মানুষের অস্তিত্ব অনুভব করার অভিজ্ঞতা কিছু সংখ্যক অংগ্রহণকারীর ক্ষেত্রে দেখা যায়। অর্থাৎ, ক্যাফিন মানুষের শারীরিক চাপের সৃষ্টি করে। মানুষ যখন কর্ম চাপে থাকে, তখন “করটিসল” নামক এক প্রকার হরমোন নিঃসৃত হয়। এই হরমোনটি মূলত অতিরিক্ত কফি পান করার কারণে নিঃসৃত হয়। অতিরিক্ত করটিসল হরমোন নিঃসৃত হওয়ার কারণে হেল্যুসিনেশন বৃদ্ধি পায়।

দারহাম ইউনিভার্সিটির গবেষক জনস এবং তার সহকর্মীরা সাইকোটিক সমস্যার কারণ মূল্যায়ন করেন। মানসিক রোগীদের ক্ষেত্রে হেল্যুসিনেশনের কারণ “চাইল্ডহুড ট্রমা”। কিন্তু সাধারণ মানুষের ক্ষেত্রে হেল্যুসিনেশনের কারণ ক্যাফিন। দারহাম ইউনিভার্সিটির অন্য এক গবেষক চার্লস ফার্নিহাগ বলেন, “কিছু সংখ্যক ব্যক্তি মানসিক চাপ হতে মুক্ত হওয়ার জন্য অতিরিক্ত কফি পান করেন। কিন্তু এতে হিতে বিপরীত হয়। যার কারণে হেল্যুসিনেশন হয়। এই ব্যাপারে সকলের সচেতন হওয়া জরুরী।”

 

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.