কেমন আছেন সবাই? অনেকদিন পর আজ বিজ্ঞান প্রযুক্তি তে লিখতে বসা। তো কথা না বাড়িয়ে চলুন শুরু করা যাক। অনেক সময় আমাদের পিসিতে নীল রঙের স্ক্রীনে এরর ম্যাসেজ আসে এবং এরপর পিসি রিস্টার্ট নেয়। আজকের এই পোষ্টে এই রকম সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করা হল। আশা করি কাজে লাগবে, যদি সমস্যা হয়ে থাকে। উল্লেখ্য, এক্ষেত্রে আমি রিস্টার্ট সংক্রান্ত সমস্যার কারণ ও তার সমাধানের চেষ্টা করেছি যার মধ্যে স্ক্রীন নীল হওয়া বা এরর ম্যাসেজ সহ রিস্টার্ট নেয়া সমস্যার কারণ ও তার সমাধান নিয়েও আলোচনা করা হয়েছে।

2011-02-16_122208

পিসিতে এ ধরনের সমস্যা হতে পারে ভাইরাসের জন্য অথবা পিসিক্যাল কোনো সমস্যার জন্য।আপনাকে নিশ্চিত হতে হবে এটা কোনো ভাইরাস ঘটিত সমস্যা কিনা। এজন্য ভাইরাস দূর করার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিন (*)।

দ্বিতীয়ত,পিসি রিস্টার্ট অথবা শাটডাউন হওয়ার মত সমস্যা হতে পারে, যদি আপনার পিসির প্রসেসর খুব গরম হয়ে যায়।(এক্ষেত্রে করণীয় পদক্ষেপ আমার পূর্ববর্তী পোষ্টে উল্লেখ করা হয়েছে বিধায় পুণরোউল্লেখ করা হল না)

এতেও যদি কাজ না হয় অথবা যদি নিশ্চিত হন সমস্যাটি প্রসেসরের গরম হওয়ার জন্য নয়,তাহলে দেখুন কোন সফটওয়ার ইন্সটল করার পর থেকে এমনটি হচ্ছে।কারন,অনেক সময় সফটওয়ারের ইন্সটলেশন ঠিক মত না হওয়ায় এ সমস্যা হয়।এক্ষেত্রে উল্লেখ্য,সফটওয়ার ঠিকমত ইন্সটল না হওয়ার অর্থ এই নয় যে,আপনি তা ঠিকমত ইন্সটল করেননি।অনেক সময় সিস্টেম ইনকম্প্যাটিবিলিটির জন্যও এমনটি হয়।অর্থাৎ এমন কোনো সফটওয়ার যা ইন্সটল করতে যতটুকু সিস্টেম রিকয়ারমেন্ট দরকার ততটা আপনার সিস্টেমে নেই অথবা সফটওয়ারটি আপনার পিসির কনফিগারেশনের তুলনায় যথেষ্ট ভারী।অনেক সময় লেটেস্ট ড্রাইভার বা লেটেস্ট ভার্সনের সফটওয়্যার আপনার সিস্টেমের উপযোগী নাও হতে পারে।

কখনো কখনো ভারী কোনো সফটওয়ার লোড হতে গেলে তা র‍্যামে যথেষ্ট জায়গা দখল করে অর্থাৎ তা র‍্যামে যথেষ্ট লোড দেয়। ধরুন,আপনি উইন্ডোজ সেভেন ইউজ করেন(উইন্ডোজ সেভেন, উইন্ডোজ এক্সপি বা অন্য ভার্সনের তুলনায় র‍্যাম এ বেশী জায়গা নেয়,সেই সাথে র‍্যামের আরো কিছু জায়গা গ্রাফিক্স মেমোরী হিসেবে শেয়ার করে যার ফলে এক্সপি এর চেয়ে উইন্ডোজ সেভেনের গ্রাফিক্স বেশী কিন্তু এর ফলে সিস্টেম কর্তৃক ব্যবহার করা র‍্যামের পরিমানও বেশী ), সেই সাথে আপনার পিসিতে ভারী কোনো এন্টিভাইরাস ইন্সটল করা আছে(উল্লেখ্য,যে কোনো এন্টিভাইরাসই পিসি অন করা থেকে অফ করা পর্যন্ত র‍্যামে একটা নির্দিষ্ট জায়গা নেয়,যে এন্টিভাইরাস যত ভারী তা তত বেশী জায়গা নেয়), আপনার র‍্যাম এক গিগা।এ অবস্থায় আপনি যদি কোনো ভারী গেম লোড করতে যান তবে সেই গেমের ডাটা র‍্যামের কোন জায়গায় লোড হবে?র‍্যামের এ ধরণের ওভারলোডেড সিচুয়্যেশন এড়ানোর জন্যও পিসি রিস্টার্ট নিতে পারে।উল্লেখ্য,সিস্টেমের বা র‍্যামের কার্যক্রমে অ্যাবনর্মালিটি দেখা দিলে মাঝে মাঝে সিস্টেম নিজে থেকেই রিস্টার্ট নেয় যা মাইক্রোসফটের অপারেটিং সিস্টেমগুলোতে এ ধরনের ব্যবস্থা করে দেয়া হয়েছে (অবশ্য এ ধরণের অহেতুক রিস্টার্ট নেয়া ম্যানুয়ালি অফ করা যায়।এ জন্য আমার পূর্ববর্তী পোষ্ট দ্রষ্টব্য)

অনেক সময় দেখা যায়,র‌্যাম পুরো ওভারলোডেড হয় না, শুধুমাত্র ৭০%-৯০% লোড হলেই পিসি রিস্টার্ট নেয় যা মোটামুটি অস্বাভাবিক কারন। এক্ষেত্রে আপনি যদি সিউর থাকেন যে,আপনার সিস্টেমে সব সফটওয়ারই ঠিকমতো ইন্সটল করা আছে তাহলে আপনি ধরে নিতে পারেন,আপনার র‌্যামে কোনো ফল্ট আছে(যাকে আমরা ব্যাড মেমরী হিসেবে অভিহিত করি),অথবা এও হতে পারে যে,পিসির সিপিউর ইন্টারনাল হার্ডওয়্যার সিস্টেমের সাথে এটি সামঞ্জস্যপূর্ণ হচ্ছে না। এক্ষেত্রে বলে রাখা প্রয়োজন সব মাদারবোর্ড সব bus speed এর র‌্যাম সাপোর্ট করে না।এক্ষেত্রে দেখে নিন আপনার র‌্যাম bus speed ঠিক তত কিনা, যতটা আপনার মাদারবোর্ড সাপোর্ট করে।যদি সাপোর্টেবল হয়,তাহলে র‌্যাম খুলে অন্য স্লটে লাগিয়ে দেখুন অথবা অন্য কোনো র‍্যাম আপনার আগের স্লটটিতেই লাগিয়ে দেখুন। এ থেকেই বুখতে পারবেন আপনার মাদারবোর্ডের র‌্যাম এ প্রোবলেম নাকি স্লটে প্রবলেম।

সর্বশেষ যে কারণে পিসি রিস্টার্ট নিতে পারে তা হল,পিসি চালাতে যতটা পাওয়ার প্রয়োজন ততটা পাওয়ার সাপ্লাই না হওয়া অর্থাৎ এক্ষেত্রে পাওয়ার সাপ্লাই বক্সটি আপনার চেক করে দেখা উচিত।হয়ত এটি যে পাওয়ার সাপ্লাই দিচ্ছে তা যথেষ্ট নয়।এক্ষেত্রে এটি খুলে অন্য একটি লাগিয়ে চেক করে দেখতে পারেন।

এরপর যে কারনটি আপনার সমস্যার জন্য দায়ী হতে পারে তা হল,মাদারবোর্ডের ক্যাপাসিটরে প্রবলেম অথবা ব্যাড সোল্ডারিং।সেই সাথে ভিজিএ কার্ডেও প্রবলেম হতে পারে(যদি মনিটরের স্ক্রীনে কালারের তারতম্য ঘটে)।এক্ষেত্রে মাদারবোর্ড রিপেয়ারিং করতে দেয়া ছাড়া আর কিছু করার নেই,যদি আপনি উপরোল্লিখিত টেষ্টগুলো করার পরে নিশ্চিত হয়ে যান যে,এটিই আপনার সমস্যার কারণ।

*ভাইরাস দূর করার জন্য ভাইরাস দূরীকরণ সম্পর্কিত নিম্নোক্ত পোষ্ট দ্রষ্টব্য

১) কোনো এন্টিভাইরাসই সব ভাইরাস ডিলিট করতে পারে না,সুতরাং এন্টিভাইরাস ছাড়াই কিভাবে কম্পিউটারকে রাখবেন পুরোপুরি ভাইরাস মূক্ত

২) এক্সপি সেটাপ করেও ভাইরাস দূর করতে পারছেন না,আবার ভাইরাসের জন্য এন্টিভাইরাসও ইন্সটল করতে পারছেন না,সুতরাং পিসি ফরম্যাট না করে ভাইরাস দূর করবেন কীভাবে?

৩) ইন্টারনেটের ভাইরাস থেকে মুক্ত থাকুন কোনো প্রকার এন্টিভাইরাস ছাড়াই

comments

8 কমেন্টস

  1. ভালো লাগলো, মিঠু ভাই আমার কম্পিউটারে একটা সমস্যা বুজতে পারছিনা। আমার ক্যাফেতে যেই কম্পিউটারটা সার্ভার হিসেবে ব্যবহার করি।এইটার সিপিউ ইউস মাঝে মাঝে ১০০% হয়ে যায়।এবং ইজি ক্যাফি প্রোগ্রামটা হ্যাং করে ।কিন্তু ইহাতে তেমন কোন ভারি শফট ইন্সটল নাই। নতুন করে ফরমেট দিয়েছি,এন্টীভাইরাস eset node32 ইউজ করি।আমার মতে কোন ভাইরাস নাই ।এখন ইহার কি সমস্যা হতে পারে একটু পরামর্শ দিন। Ram 1 Gigabyte, cpu 2.00 Ghz windows xp.

    • এটা কোনো ভাইরাস সমস্যা না,আপনার প্রসেসরের হিট সিঙ্ক ক্রীম নষ্ট হয়ে গেছে অর্থাৎ প্রসেসরের গায়ে লাগানো ক্রীমের তাপ পরিবাহীতা নষ্ট কমে গেছে ।আরো নিশ্চিত হওয়ার জন্য আপনি বায়োস সেটিং থেকে cpu temperature দেখতে পারেন।তাপমাত্রা ৮০/৯০ এর উপরে উঠলে অবশ্যি তা খারাপ,এক্ষেত্রে বাজার থেকে ক্রীম কিনে প্রসেসরে লাগান।cpu use 100% হওয়ার আরেকটি কারন হতে পারে তা হল,পিসিতে হয়তো এমন কিছু সফট ইন্সটল করা আছে যা পিসি স্টার্ট করার পর নিজে থেকেই চালু হয় ফলে তা চালাতে র‍্যামেও কিছু জায়গা দখল করে আর এগুলো রান হতে প্রসেসরেরো পার্সেন্টেজ ইউজ হয়,যাই হোক এই প্রোগ্রামগুলো আনইন্সটল করে দেখুন।এর পরেও যদি কাজ না হয় তাহলে এর আগের পন্থা যেটা বললাম( ক্রীম কিনে লাগান) অবলম্বন করুন।

  2. ধন্যবাদ ভাইয়া……… কিন্তু আমার আরো জটিল সমস্যা। কোন ভারি কাজ যেমন 3d Studio max বা Maya বা কোন ভারি Game সেটআপ দিলে আমার পিসি শ্লো হয়ে যায়। আর হ্যাং করে লিং রং হয়ে যায়। রিস্টার্টও নেয় না। আমার Ram 1GB আর প্রোসেসর Intel Caloron 2.53 MHz । আমার বন্ধুর পিসি আমার থেকেও নিম্ন, কিন্তু তার পিসিতে অনেক ভারি ভারি সফটওয়্যার সেটআপ দিলে আর কাজ করলে কোন সমস্যাও হয় না।কত কম্পিউটার এক্সপার্টদের যে দেখিয়েছি তার কোন হিসেব নেই। এখন কী করবো জানালে খুশি হতাম।

    • ভাই,মায়া বা থ্রি ডি ম্যাক্স কত ভারী আপনি তা চিন্তাও করতে পারবেন না।আপনি তো আপনার কথা বললেন,আমার কথা বললে হয়ত আমার সাথে তুলনা করে শান্তি পাবেন।শুনুন,আমার পিসি ডুয়েল কোর,২ . ৮ গিগাহার্জ ক্লকস্পীড,১ গিগা র‍্যাম,বিল্ট ইন গ্রাফিক্স ১২৮মেগা,এতে মায়া চালিয়ে আমি এক মাসের ব্যবধানে দুট পাওয়ার সাপ্লাই বক্স নষ্ট করছি।কেন এমন হইছে জানেন,কারন,এগুলো চালাতে অনেক হাই কোয়ালিটির গ্রাফিক্স কার্ড লাগে(গেম চালাতেও এত লাগে না)।আর গ্রাফিক্স কার্ড বেশী হলে পাওয়ার সাপ্লাইও দিতে হয় বেশী,তাই যে সকল প্রোগ্রাম চালাতে অনেক বেশী গ্রাফিক্স লাগে তারা পাওয়ার ও টানে বেশী যা সাপ্লাই দিতে ১০০০ থেকে ১৫০০ টাকার পাওয়ার বক্স লাগে,আমরা কয়জনে এত টাকার বক্স কিনি বলেন?এজন্যই তো মায়ার মায়া ছেড়ে ফটোশপ নিয়ে আছি।আর আপনি দেখুন আপনার যে সফট এ পিসি স্লো হয় ঠিক ঐ সফটেই আপনার বন্ধুর পিসি চলে কিনা ঠিকমত,আপনার os ar ওর os কি?কারন,os ভারী হলে তা নিজেই বেশী জায়গা নিয়ে র‍্যাম এর ফ্রি জায়গা কম রাখে,তবে আপনার যেহেতু celeron তাই মনে হয় আপনি এক্সপি ইউজারআর আপনার পিসিতে এমন সব সফট ইন্সটল করা আছে যা পিসি স্টার্টের সময়ই রান করে র‍্যামের কিছু অংশ দখল করে,ফলে অন্য সফট চালানোর মত র‍্যামে জায়গা থাকে না,হয় সেগুলোকে আনইন্সটল করুন,নয়তো প্রসেস বন্দ রাখুন।দেখুন কি হয়।

  3. টপিকস্ টা খুব সুন্দর হয়েছে লেখাটাও চমৎকার অনেকের কাজে দিবে।
    আমারও একটা সমস্যা এর সাথে মিলে কিন্তু সমাধান হয়না।
    আমার ল্যাপটপটি এ ধরনের ডিসটাব দেবার পর নতুন করে আবার সেটআপ দেই খুলে ফ্যান পরিস্কার করি প্রসেসর হিট কেমন টেস্ট করি কোন লাভ হয় না। শেষ পযর্ন্ত দেখলাম ব্যাটারিতে চলে । কারেন্টের লাইনে দিলেই এই সমস্যা গুলো করে বার বার রিস্টার্ট, হ্যাং ইত্যাদি । আমার কি কোন প্রতিশোধক আছে ?

    • জহির ভাই, ব্যাটারি খুলে এসি লাইন দিলে কি চলে ? যদি চলে তাহলে ব্যাটারি তে সমস্যা, আর যদি না চলে , তাহলে ল্যাপটপ এর পাওয়ার সাপ্লাই এ সমস্যা।
      সবচেয়ে বড় সমস্যা হচ্ছে, ল্যাপটপ এ পাওয়ার সাপ্লাই আলাদা না। মাদারবোর্ড এ বিল্ট ইন । দেখেন কোন ভালো দোকানে দেখিয়ে ঠিক করে নেয়া যায় কি না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.