এই যুগে অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহার করা খুব সাধারন ব্যাপার। আরো কিছু পদ্ধতির মাধ্যমে এটিকে আরও উপভোগ্য করে তুলতে পারেন। অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীদের জন্য বেশ কিছু মোবাইল টিপস নিয়ে আজ আমাদের এই লিখা।

Google now ব্যবহার: ‘Google now’কে ব্যবহারকারীদের পারসোনাল অ্যাসিস্ট্যান্ট বলতে পারেন। এ অ্যাপটির সাহায্যে নিজের পছন্দ জানা, বিভিন্ন খবর, মানচিত্রের সাহায্যে পথ খোঁজাসহ সবকিছুই করতে পারবেন। এছাড়াও এটি বিভিন্ন ইভেন্টের ব্যাপারে আপনাকে মনে করিয়ে দেবে আগেই।

সব অ্যাপ ভিন্ন ভিন্ন ফোল্ডারে সংরক্ষণ : মোবাইল ডিভাইসটি গোছালো রাখতে সব অ্যাপসগুলো বৈশিষ্ট্যভেদে ভিন্ন ভিন্ন ফোল্ডারে সংরক্ষণ করুন। এতে প্রয়োজনের সময় সংশ্লিষ্ট অ্যাপ সহজেই খুঁজে পাওয়া যাবে। এছাড়া ভিন্ন ভিন্ন ফোল্ডারে বৈশিষ্ট্যভেদে অ্যাপ সংরক্ষণ অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারের অভিজ্ঞতায় নতুন মাত্রাও যোগ করবে।

লঞ্চার এবং লক স্ক্রিন রিপ্লেসমেন্ট ব্যবহার : অ্যান্ড্রয়েড ইন্টারফেসের গতানুগতির লঞ্চার এবং লক স্ক্রিনের পরিবর্তে ফোনটিকে সুন্দর করে সাজাতে গুগল প্লে স্টোর বিভিন্ন আকর্ষণীয় লঞ্চার ও স্ক্রিন লক অ্যাপ ব্যবহার করুন।

পাওয়ার সেভিং মোড ব্যবহার : বেশিরভাগ অ্যান্ড্রয়েড ফোনেই পাওয়ার সেভিং অপশনটি রয়েছে। মোবাইলের ব্যাটারি যাতে বেশি ব্যয় না হয় সেজন্য ফোনের সেটিংস মেন্যু থেকে পাওয়ার সেভিং মোড অপশনটি চালু রাখুন। কিছু মোবাইল ডিভাইসে উচ্চমাত্রায় পাওয়ার সেভিংয়ের অপশন থাকে। এর মাধ্যমে মোবাইল ডিভাইসের চার্জের অপব্যবহার বন্ধ রাখুন।

অতিরিক্ত ব্যাটারি ব্যবহার : অ্যান্ড্রয়েড ফোনে বিভিন্ন অ্যাপস ব্যবহারের কারণে সাধারণত চার্জ দ্রুত শেষ হয়। সব সময় হাতের কাছে চার্জার নাও থাকতে পারে বা ভ্রমণের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত ব্যাটারি সঙ্গে রাখুন। এখন পাওয়ার ব্যাংক নামের একটি পোর্টেবল ব্যাটারি চার্জার বাজারে পাওয়া যায়। সেটি ব্যবহার করতে পারেন।

গুগল ক্রোম ব্যবহার : গুগল অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করার ক্ষেত্রে অ্যান্ড্রয়েড ফোনে গুগল ক্রোম ব্রাউজার ব্যবহার করা হলে, কম্পিউটারে গুগল ক্রোম ব্যবহার করলে সেখান থেকে আপনার বুকমার্ক পেজগুলো ক্রোমের মোবাইল অ্যাপটিতে স্বয়ংক্রিয়ভাবে যোগ হয়ে যাবে।

থার্ড পার্টি কিবোর্ড ব্যবহার : অ্যান্ড্রয়েড ফোনে গুগলের নির্দিষ্ট কিবোর্ডটি ব্যবহারের পরিবর্তে নিজের পছন্দমতো কিবোর্ড ব্যবহার করার সুযোগ রয়েছে। এজন্য গুগল প্লে স্টোর থেকে থার্ড পার্টি কিবোর্ড অ্যাপ ডাউনলোড করে নতুনত্ব আনতে পারেন।

ক্রোমের ডাটা সাশ্রয়ী ফিচার ব্যবহার : অ্যান্ড্রয়েড ফোনের ক্রোম ব্রাউজারটিতে ‘Reduce Data Usage’ অপশনটি ব্যবহার করুন। এটি কম সময়ে ও নিরাপদে পেজ লোড নিতে এবং ব্যান্ডউইথ সাশ্রয় করতে সাহায্য করবে। এটি ব্যবহার করুণ।

ডিফল্ট অ্যাপস বদলান : কোনো লিংকে ক্লিক করলে যে ব্রাউজারে তা ওপেন হয় তা কি বদলাতে চান?

এ ধরনের কাজে ব্যবহৃত ডিফল্ট অ্যাপ যদি বদলাতে চান তাহলে সেটিংসে গিয়ে অ্যাপ-সংলগ্ন ক্লিয়ার ডিফল্ট বাটনে চাপ দিন। বর্তমানে স্মার্ট ফোনের জন্য ইউসি ব্রাউজার বেশ নাম করেছে।

সবচেয়ে বড় কথা প্রযুক্তির সঙ্গে এগিয়ে যেতে হলে নিজেকেও সবসময় আপডেট রাখতে হবে। আজকের টিউন কেমন হল তা জানাতে ভুলবেন না যেন।

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.