বৈশ্বিক স্মার্টফোন বাজারে ডিভাইস সরবরাহ অপরিবর্তিত রয়েছে। স্যামসাং শীর্ষ ভাণ্ডার হিসেবে বাজারটিতে আধিপত্য বাড়াতে সমর্থ্য হয়েছে। সংকুচিত হয়ে পড়েছে অ্যাপলের বাজার দখল।বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইন্টারন্যাশনাল ডাটা করপোরেশন(আইডিসি)এর গত বৃহস্পতিবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এমন তথ্যই উঠে এসেছে।

২০১৬ সালের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (এপ্রিল জুন) সামগ্রিকভাবে ভেন্ডর কোম্পানিগুলোর স্মার্টফোন সরবরাহ দাঁড়িয়েছে ৩৪ কোটি ৪৩ লাখ ইউনিট, যা গত বছরের একইসময়ের তুলনায় দশমিক ৩ শতাংশ বেড়েছে। চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে(জানুয়ারি-মার্চ) স্মার্টফোন সরবরাহ হয়েছিল ৩৩ কোটি ৩১ লাখ ইউনিট, যা দ্বিতীয় প্রান্তিকে এসে ৩ দশমিক ১ শতাংশ বেড়েছে। ৩০ জুন সমাপ্ত প্রান্তিকে দক্ষিণ কোরিয়া ভিত্তিক স্যামসাংয়ের ডিভাইস সরবরাহ দাঁড়িয়েছে ৭ কোটি ৭০ লাখ ইউনিট,যা ২০১৫ সালের দ্বিতীয় প্রান্তিকের ৭ কোটি ৩০ লাখ ইউনিটের তুলনায় ৫ দশমিক ৫শতাংশ বেশি। বৈশ্বিক স্মার্টফোন বাজারে কোম্পানিটির দখল ২১ দশমিক ৩ শতাংশথেকে বেড়ে ২২ দশমিক ৪ শতাংশে পৌঁছেছে। স্যামসাংয়ের সর্বশেষ ফ্ল্যাগশিপ ডিভাইস গ্যালাক্সি এস৭ এবং গ্যালাক্সি এস৭ এজের ব্যাপক সাফল্য স্মার্টফোন বাজারে নির্মাতা কোম্পানিটির দখল বাড়াতে ইতিবাচক ভূমিকা রেখেছে।

মার্কিন প্রযুক্তি কোম্পানি অ্যাপল স্মার্টফোন বাজারে খুব একটা ভালো পরিস্থিতিতে নেই। চলতি বছরের এপ্রিল-জুন প্রান্তিকে আইফোন সরবরাহ হয়েছে ৪ কোটি ৪০ লাখইউনিট, যা গত বছরের একই সময়ের ৪ কোটি ৭৫ লাখের তুলনায় ১৫ শতাংশ কম।এ নিয়ে জনপ্রিয় আইফোন ডিভাইস বিক্রি টানা দ্বিতীয় প্রান্তিকের মতো কমল। যদিও জুনে সমাপ্ত প্রান্তিকে পূর্বাভাসের চেয়ে বেশি ডিভাইস বিক্রিতে সমর্থ্য হয়েছে কোম্পানিটি। এ সময় অ্যাপলের মুনাফা ও রাজস্ব কমেছে যথাক্রমে ২৭ শতাংশ ও ১৪দশমিক ৬ শতাংশ। স্মার্টফোন বাজারে ঘুরে দাঁড়াতে সাশ্রয়ী ৪ ইঞ্চি ডিসপ্লের আইফোনএসই উন্মোচন করে অ্যাপল। কিন্তু কোম্পানিটির এ পরিকল্পনা খুব একটা সাফল্যদিতে পারেনি।

বৈশ্বিক স্মার্টফোন বাজারে তৃতীয় অবস্থান ধরে রেখেছে চীনভিত্তিক হুয়াওয়ে টেকনোলোজিস কোম্পানি লিমিটেড। স্থানীয় বাজারের পাশাপাশি ইউরোপে এ কোম্পানির ডিভাইসের ক্রমবর্ধমান চাহিদা সরবরাহ বৃদ্ধিতে ইতিবাচক ভূমিকা রেখেছে। কোম্পানিটির ডিভাইস সরবরাহ চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে এক বছর আগের একই সময়ের তুলনায় ৮ দশমিক ৪ শতাংশ বেড়েছে। হুয়াওয়ে এ বছরের শুরুতে উচ্চপ্রযুক্তির প্রিমিয়াম ডিভাইস পি৯ ও মেট ৮ উন্মোচন করে। বৈশ্বিকস্মার্টফোন বাজারে এ দুই ডিভাইস ব্যাপক সাড়া ফেলে, যা সরবরাহ বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখে।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, স্মার্টফোন বাজারে সবচেয়ে বড় পরিবর্তন এসেছে শীর্ষ পাঁচ ভেন্ডর তালিকার চতুর্থ ও পঞ্চম অবস্থান ঘিরে। বৈশ্বিক স্মার্টফোন বাজারে এবারই প্রথম শীর্ষ পাঁচে জায়গা করে নিয়েছে চীনভিত্তিক ভেন্ডর অপো ইলেকট্রনিকস করপোরেশন ও ভিভো মোবাইল কমিউনিকেশনস কোম্পানি লিমিটেড। স্থানীয় প্রতিদ্বন্দ্বী লেনোভো গ্রুপ লিমিটেড ও শাওমি ইনকরপোরেশনকে হটিয়ে চতুর্থ ও পঞ্চম অবস্থানে স্থলাভিষিক্ত হয়েছে ডিভাইস নির্মাতা দুই কোম্পানি।

এপ্রিল-জুন প্রান্তিকে ২ কোটি ২৬ লাখ ইউনিট স্মার্টফোন সরবরাহ করেছে অপো, যাএক বছর আগের একই সময়ের ৯৬ লাখ ইউনিটের তুলনায় ১৩৬ দশমিক ৬ শতাংশবেড়েছে। বলা হচ্ছে, স্থানীয় বাজারের পাশাপাশি বৈশ্বিক বাজারে আর ৯ স্মার্টফোনঘিরে আগ্রাসী বিপণন নীতি কোম্পানিটিকে এ সাফল্য দিয়েছে।

ভিভো চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে ১ কোটি ৬৪ লাখ ডিভাইস সরবরাহ করেছে, যা গত বছর একই সময়ের ৯১ লাখ ইউনিটের তুলনায় ৮০ দশমিক ২ শতাংশ বেড়েছে।

আইডিসির প্রোগ্রাম বিভাগের ভাইস প্রেসিডেন্ট রায়ন রেইথ বলেন, স্মার্টফোন বাজারে ধারাবাহিক পরিবর্তন লক্ষ করা যাচ্ছে। বেশকিছু ভেন্ডর কোম্পানি ব্যবসা কৌশলপরিবর্তন ও আগ্রাসী বিপণননীতি অনুসরণের মাধ্যমে অস্থিতিশীল বাজারে সুবিধা নিচ্ছে।

 

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.