ভিডিও চ্যাটিংয়ের জনপ্রিয় অ্যাপ্লিকেশন স্কাইপের লন্ডন অফিস বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান মাইক্রোসফট। এর ফলে প্রায় ৪০০ কর্মী তাঁদের চাকরি হারাবেন। এ খবর জানিয়েছে প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েবসাইট দ্য ভার্জ।

মাইক্রোসফটের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, বৈশ্বিকভাবে স্কাইপের কার্যক্রম আরো গতিশীল করতেই এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। লন্ডন অফিসে কর্মরত প্রকৌশলীদের অন্য অফিসগুলোতে কাজে লাগানো হবে।

লন্ডন অফিস ছাড়াও যুক্তরাষ্ট্রের পালো অলটোর রেডমন্ড, কানাডার ভ্যাঙ্কুভার ও ইউরোপের বেশ কিছু দেশে অফিস রয়েছে স্কাইপের। সেখান থেকেই কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে স্কাইপে।

স্কাইপের লন্ডন অফিসের কয়েকজন কর্মী নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানিয়েছেন, স্কাইপেতে মাইক্রোসফটের কর্তৃত্ব বাড়ানোর জন্যই এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এর মাধ্যমে স্কাইপের পুরোনো কর্মীদের ছাঁটাই করা হবে।

ভিডিও কলিংয়ের ধারণার একদম শুরুতে বেশ জনপ্রিয় ছিল স্কাইপে নামের অ্যাপ্লিকেশনটি। মূলত তখন ভিডিও চ্যাটিংয়ের জন্য স্কাইপে ছিল একমাত্র ভরসা। তবে দিন দিন প্রতিদ্বন্দ্বী বাড়তে থাকায় স্কাইপের জনপ্রিয়তায় ভাটা পড়েছে। হোয়াটসঅ্যাপ ও ফেসবুক মেসেঞ্জারের মতো অ্যাপের জনপ্রিয়তা বাড়তে থাকায় স্কাইপের অস্তিত্ব হুমকির মুখে পড়েছে।

স্কাইপেতে ভিডিও কনফারেন্স কল করার সুবিধা রয়েছে। ডেস্কটপ ও ল্যাপটপের জন্য উইন্ডোজ, ম্যাকিন্টোশ, লিনাক্স অপারেটিং সিস্টেম এবং ফোন ও ট্যাবের জন্য অ্যানড্রয়েড, ব্ল্যাকবেরি, আইওএস ও উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমের জন্য রয়েছে স্কাইপের আলাদা সংস্করণ।

২০০৩ সালে যাত্রা শুরু করেছিল স্কাইপে। ২০০৫ সালে ২৬০ কোটি মার্কিন ডলারের বিনিময়ে স্কাইপে কিনে নেয় ইবে। ২০১১ সালে ৮৫০ কোটি মার্কিন ডলারের বিনিময়ে স্কাইপে কিনে নেয় মাইক্রোসফট।

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.