দারিদ্র্যপীড়িত আফ্রিকা মহাদেশের জন্য সুখবর বয়ে নিয়ে এসেছে সৌরশক্তিচালিত কম্পিউটার ওয়াটলি। এই কম্পিউটার দেবে পানি, বিদ্যুৎ আর ইন্টারনেট সুবিধা। অনেকটা মহাকাশ ক্যাপসুলের মতো দেখতে ১৫ টন ওজনের এই কম্পিউটারে আছে ১৪০ কিলোওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন ব্যাটারি।সেই সাথে আছে পানি বিশুদ্ধকরণ যন্ত্র, যা প্রতিদিনে পাঁচ হাজার লিটার সুপেয় পানি ফুটিয়ে ও ছেঁকে সরবরাহ করতে পারবে। এ ছাড়া ওয়াটলির আশপাশের ৮০০ মিটার এলাকা পর্যন্ত ওয়াই-ফাই ইন্টারনেট সেবা দিতে সক্ষম। সেই অর্থে মোবাইল ও ল্যাপটপ চার্জ করার জন্য পোর্টও সংযুক্ত আছে এই কম্পিউটারে। একেকটি কম্পিউটার ১৫ বছর নিরবিচ্ছিন্ন সেবা দিতে পারবে। এই ১৫ বছরে একেকটি ওয়াটলি কম্পিউটার ২৫০০ টন পর্যন্ত গ্রনহাউস গ্যাস নিঃসরণ কমাতে পারবে।সাব-সাহারান আফ্রিকার প্রায় ৬২ কোটি মানুষ বিদ্যুৎ সুবিধা থেকে বঞ্চিত। সেই সাথে ৩৯ শতাংশ মানুষ সুপেয় পানির অভাবে ভুগে থাকে। ওয়াটলির প্রতিষ্ঠাতা মার্কো আত্তিসানির মতে, ‘আমাদের এই কম্পিউটার প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষদের কাছে পানি, বিদ্যুৎ আর ইন্টারনেটের সংযোগ সেবা নিশ্চিত করবে। অন্যভাবে বলা যায়, তাদের কাছে একবিংশ শতাব্দীর প্রযুক্তিকে পৌঁছে দেবে।

আপাতত আফ্রিকার ঘানাতে পরীক্ষামূলকভাবে এই কম্পিউটার ব্যবহৃত হচ্ছে। এর পর সুদান আর নাইজেরিয়াতেই ওয়াটলি স্থাপন করার পরিকল্পনা রয়েছে এর নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের।স্প্যানিশ আমেরিকান প্রতিষ্ঠান ওয়াটলির নামানুসারে এই কম্পিউটারের নাম রাখা হয়েছে। সাব সাহারান আফ্রিকার প্রায় ৮০ কোটি মানুষের জন্য প্রয়োজনীয় সেবা প্রদানের লক্ষ্য নিয়েই এই কম্পিউটার নির্মাণ করা হয়েছে। নির্মাতাদের মতে, এটি বিশ্বের বৃহত্তম সৌরশক্তিচালিত কম্পিউটার।

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.