সূর্যকে সকল শক্তির উৎস বলা হয়। আর এই সূর্যের আলো থেকে বাঁচার জন্যই আমরা কত কিছু না করি! ছাতা, সানগ্লাস, সানব্লক। কত ব্যবস্থা! কিন্তু জানেন কি সূর্যের আলো আমাদের শরীরের কত উপকার করে?

প্রাচীনকাল থেকে শুরু করে আধুনিক চিকিৎসাশাস্ত্রে এখনো সূর্যের ওপর নির্ভরশীল অনেককিছু। সূর্যের আলো মানবশরীরের জন্য রীতিমতো প্রয়োজনীয়। এমনকি সূর্যের আলোতে বেশকিছু শারীরিক ও মানসিক রোগ সারে। আর এর অভাবে ঘটতে পারে বিপদ।

প্রাকৃতিকভাবে সূর্যের আলো আমাদের শরীরের জন্য কতভাবে প্রয়োজনীয় আসুন জেনে নেই।

সকালের মিষ্টি রোদ
সকাল ৮টার আগে রোদ আমাদের কোনো ক্ষতি করে না। কারণ এই সময় রোদে আলট্রাভায়োলেট রে বা অতিবেগুনি রশ্মি থাকে না। তাই এই সময় আপনি উপভোগ করতে পারেন উপকারী রোদের আলো।

ভিটামিন-ডি
সূর্যের আলোতে যে ভিটামিন ডি আছে এটা তো আমরা সবাই জানি। কিন্তু এটা কি জানি প্রাকৃতিকভাবে পাওয়া ভিটামিন কৃত্রিম ভিটামিন থেকে বহু গুণে ভালো। এই ভিটামিন-ডি নানারকম হাড়ের রোগ, মাল্টিপল স্ক্লেরোসিস, অস্টি অপোরোসিস এবং সাধারণ ফ্লু এর ঝুঁকি কমায়।

ভালো ঘুমের জন্য
সূর্যের আলো আমাদের শরীরের সার্কডিয়ান রিদম ঠিক রাখে। এর ফলে আমরা সহজে ঘুমাতে পারি। আর ঘুম হয় তৃপ্তিকর।

মন ভালো রাখতে
সূর্যের আলোর কারণে আমাদের শরীরে বেটা-এন্ড্রফিন নামের হরমোন নিঃসৃত হয়। যার কারণে আমাদের মন-মেজাজ থাকে ফুরফুরে ও প্রফুল্ল। আর এ কারণেই শীত ও বর্ষায় যখন রোদের আলো কম থাকে, তখন অল্পতেই মেজাজ বিগড়ে যায়, মন খারাপ ভাব বেশি থাকে।

ব্রণ কমাতে
সূর্যের আলো ব্রণ তৈরির জন্য দায়ী ব্যাক্টেরিয়া ধ্বংস করে। তাই প্রতিদিন কিছু সময় হলেও রোদে থাকুন। এ সময় আপনি চোখে ভেজা তুলা বা টিস্যু দিয়ে রাখতে পারেন, এতে আরাম পাওয়া যাবে।

রোগ প্রতিরোধ
সূর্যের আলো আমাদের দেহের ছোটখাটো অনেক জীবাণুকে ধ্বংস করে দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

রক্তচাপ কমায়
সূর্যের আলো মানবদেহের উচ্চ রক্তচাপ কমায়। এর কো.কিউ-১০ মানব দেহের সেলুলোজ ও হার্ট শক্তিশালী করতে সাহায্য করে।

উচ্চতা বৃদ্ধিতে
নবজাত শিশুদের সকালে রোদে রাখতে দেখা যায় প্রায়ই। এর কারণ সূর্যের আলোতে যে ভিটামিন ডি আছে, তা শিশুর হাড়ে ক্যালসিয়াম পরিপূর্ণ করে হাড়ের গঠন ও উচ্চতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

টিপস · সকাল ৯ টা থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত রোদ থেকে দূরে থাকুন। এই সময়ের মধ্যে রোদে যেতে হলে সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন।

· সূর্যের আলট্রাভায়োলেট রে থেকে বাঁচার সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে ভারি ছাতার ব্যবহার।

· শিশুদের দিনে অন্তত আধা ঘণ্টা রোদে খেলতে দিন।

· নবজাত শিশুকে রোদে রাখার সময় মাথা বিশেষ করে চোখ ছায়াতে রাখার চেষ্টা করুন।

· সকালের হাঁটাচলা ও ব্যায়ামগুলো রোদেই করার চেষ্টা করুন।

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.