প্রাকৃতিক দূর্যোগ, ঝড়-জলোচ্ছাসে লন্ডভন্ড হয়ে যাওয়ার পরও প্রতিবারই ঘুরে দাড়ায় সুন্দরবন। এবারই প্রথম প্রকৃত অস্তিত্ব সংকটে পড়েছে ওয়ার্ল্ড হ্যারিটেজ একক বৃহত্তম ম্যানগ্রোভ বন সুন্দরবন। এবার প্রাকৃতিক দূর্যোগ নয়-খোদ নৌ পরিবহন মন্ত্রণায়ের খামখেয়ালীপনার শিকার হয়ে বাঁচামরার মুখোমুখি হয়েছে সুন্দরবন। বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের শ্যালা নদীর মৃগমারী এলাকায় মঙ্গলবার ভোরে এমভি টোটালের ধাক্কায় তলা ফেটে ৩ লাখ ৫৭ হাজার ৬শ ৬৮ লিটার ফারনিস অয়েল বোঝাই অয়েল নিয়ে ডুবে যায় ট্যাংঙ্কার ‘এমভি ওটি সাউদার্ন স্টার সেভেন’।

এই তেল দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে পূর্ব সুন্দরবনের নদ-নদী-খাল ও বন অভ্যান্তরে। দিনে দু’বার করে জোয়ারে তেলের আস্তারন ঢুকে পড়ছে সুন্দরবনের মাইলের পর মাইল। সুন্দরবনের শুধু বনজ সম্পদই নয়, ছড়িয়ে পড়া তেলের কারনে বিলুপ্ত প্রায় ইরাবতী ডলফিনসহ ৬ প্রজাতির ডলফিন, কুমির, বিভিন্ন প্রজাতির মাছ ও কাকড়াসহ বিভিন্ন জলজ প্রানী হুমকীর মুখে পড়েছে।

সুন্দরবনে তেলের প্রভাবে যে অপূরণীয় ক্ষতি হবে

সুন্দরবনে ৬ হাজার ১৭ বর্গ কিলোমিটার আয়তনে বাংলাদেশ অংশে স্থল ভাগের পরিমান ৪ হাজার ১শ ৪৩ বর্গ কিলোমিটার। আর ৪শ ৫০টি ছোট-বড় নদী ও খাল নিয়ে জল ভাগের পরিমান ১ হাজার ৮শ ৭৪ বর্গ কিলোমিটার। অষ্টাদশ শতাব্দীর শুরুতে সুন্দরবনের আয়তন ছিল বর্তমানের প্রায় দ্বিগুন। মানুষের কারনে সুন্দরবনের আয়তন আজ এখানে এসে ঠেকেছে। সুন্দরবনে রয়েছে ৩শ ৩৪ প্রজাতির গাছপালা, এ উদ্ভিদকুলের ৭৩ ভাগই হচ্ছে সুন্দরী গাছ, ১৬ ভাগ গেওয়া। ১শ ৬৫ প্রজাতির শৈবাল, ১৩ প্রজাতির অর্কিড। রয়েল বেঙ্গল টাইগার ও চিত্রল হরিনসহ ৩২ প্রজাতির স্তন্যপায়ী, ৩৫ প্রজাতির সরিসৃপ, ৮ প্রজাতির উভচর, ৩শ প্রজাতির পাখি। বিলুপ্ত প্রায় ইরাবতী ডলফিনসহ ৬ প্রজাতির ডলফিন, কুমির, ২শ ১০ প্রজাতির মাছ, ১৩ প্রজাতির কাঁকড়া, ২৬ প্রজাতির চিংড়ি, ১ প্রজাতির লবস্টার ও ৪২ প্রজাতির শামুক, ঝিনুক রয়েছে সুন্দরবনে। সুন্দরবনের সম্পদের হিসাব করা কঠিন। সুন্দরবনে দৃশ্যমান সম্পদের পরিমান ১শ ৫৮ কোটি ৯ হাজার ৮শ ৭ পয়েন্ট ৮০ বিলিয়ন টাকা। এসব কারনে পর্যাটদের কাছে সুন্দরবন হচ্ছে প্রকৃতির অপর বিশ্বয়। জাতিসংঘের ইউনেস্কো কমিশন ১৯৯৭ সালে ৬ ডিসেম্বর সুন্দরবনকে ওর্য়াল্ড হ্যারিটেজ বিশ্ব ঐতিহ্য হিসাবে ঘোষনা করে। সুন্দরবনের এ সম্পদের সবটাই এখন সংকটের মধ্যে পড়েছে। বিষেশজ্ঞদের প্রাথমিক হিসাব মতে পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই ও শরনখোলা রেঞ্জের নন্দপাড়া নদী থেকে শ্যালা নদী হয়ে আন্ধারমানিক নদী পর্যন্ত মাছসহ জলজ প্রানীসহ ডলফিনের অভ্যায় আশ্রম এখন চড়ম অস্তিত্ব সংকটে। মঙ্গলবার এ অয়েল ট্যাংঙ্ককার ডুবির পর থেকে ডলফিনের এ অভ্যায় আশ্রমে আর ডলফিনের দেখা মিলছে না। এসব এলাকার প্রায় ৫০ কিলোমিটার যায়গাজুড়ে গাছপালার শ্বাষমূলে তেলের আস্তারন পড়ায় ম্যানগ্রোভ বনের গাছপালা দু’সপ্তাহার মধ্যে মরতে শুরু করবে বলে বিষেশজ্ঞরা আশংকা প্রকাশ করেছেন। এমন মানুস্বসৃষ্ট র্দূযোগের মুখোমুখি সুন্দরবন আর কখনো দাড়ায়নি।

সুন্দরবনে তেলের প্রভাবে যে অপূরণীয় ক্ষতি হবে

তিন সদস্যের দুটি আলাদা তদন্ত কমিটি গঠন :

পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) আমির হোসাইন চৌধুরী জানান, সুন্দরবনের শ্যালা নদীর মৃগমারী এলাকায় মঙ্গলবার ভোরে ফারনিস অয়েল বোঝাই ট্যাংঙ্কার ডুবির পর সুন্দরবনের ক্ষয়-ক্ষতি নিরাপনে গঠন করা হয়েছে ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি। পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জ কর্মকর্তা বেল্লাল হোসেনকে প্রধান করে গঠিত এ তদন্ত কমিটির অপর দুই সদস্য হলেন চাঁদপাই স্টেশন কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ ও ঢাংমারী স্টেশন কর্মকর্তা প্রবল চন্দ্র রায়। বুধবার সকাল থেকে এই তদন্ত কমিটি সরেজমিনে তদন্ত শুরু করেছে। এই কমিটি তিন কর্মদিবসের মধ্যেই ডিএফও বরাবরে তাদের তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করবে। অন্যদিকে নৌ পরিবহন মন্ত্রনালয় এই অয়েল ট্যাংঙ্কার ডুবির ঘটনায় বুধবার ৩ সদস্যের আলাদা একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। সমুদ্র পরিবহন অধিদপ্তরের নটিক্যাল সার্বেয়ার এন্ড এক্স মিনার ক্যাপ্টেন গিয়াস উদ্দিনকে আহবায়ক করে গঠিত এ কমিটির অপর সদস্য হলেন সমুদ্র পরিবহর অধিদপ্তর খুলনার অভ্যান্তরিন জাহাজ পরিদর্শক আবু জাফরকে সদস্য সচিব ও একই দপ্তরের বিশষ কর্মকর্তা নৌ-নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট গোলাম মহিউদ্দিন। এই কমিটি আগামী ১৫ দিনের মধ্যে র্দূঘটনার কারন ও ক্ষয়-ক্ষতির পরিমান নির্নয় করে তাদের তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করবে।

সুন্দরবনের যে ভয়াবহ ক্ষতি হয়েছে

দায়ী নৌ পরিবহন মন্ত্রনালয় :

সুন্দরবন বিভাগের মতে এ দূঘর্টনায় সুন্দবনের অস্তিত্ব নিয়ে টান পড়ার জন্য দায়ী নৌ পরিবহন মন্ত্রানালয়। বারবার তারা চিঠি দিয়ে নৌ পরিবহন মন্ত্রানালয়কে সুন্দরবনের ডলফিন অভ্যায় আশ্রমের বুক চিরে এই রুট দিয়ে সব ধরনের জাহাজ চলাচল বন্ধ করার কথা বললেও তারা কানে নেয়নি। পলি পড়ে ঘষিয়াখালী-মংলা আন্তজার্তিক নৌ চ্যানেলটি ২০১১ সালের এপ্রিল মাসে বন্ধ হয়ে যায়। এরপর থেকে নৌ পরিবহন মন্ত্রনালয় সুন্দরবনের বুক চিরে সুন্দরবন বিভাগের কোন অনুমতি না নিয়েই এই বিকল্প রুট দিয়ে জাহাজ চলাচল শুরু করে। সুন্দরবন বিভাগের আপত্তি উপেক্ষ্য করে প্রতিদিন এই বিকল্প রুট দিয়ে প্রায় দু’শতাধীক জাহাজ ও কার্গে ভ্যাসেল চলাচল করায় এখন ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে সুন্দরবন। পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের ডিএফও জানান, একের পর এক চিঠি দিয়েও আমরা নৌ পরিবহন মন্ত্রানালয়ের জাহাজ চলাচল বন্ধ করতে পারেনি। আমরা যা আশংকা করেছিলাম তার থেকেও বড় দূর্ঘটনার শিকার হল সুন্দরবন।

বাংলাদেশে নেই অয়েল সুইপার জলযান :

সুন্দরবন ওয়ার্ল্ড হ্যারিটেজ। বিশ্বের একক বৃহত্তম ম্যানগ্রোভ ফরেষ্ট। এ বন আমাদের গর্ব বিশ্ববাসীর গর্ব। অফুরন্ত প্রাকৃতিক সম্পদে ভরপুর সুন্দরবনের বুক চিরে পশুর চ্যানেল দিয়ে প্রতিদিন দেশী-বিদেশী জাহাজ মংলা বন্দরে আসে। কখনো এরূপ র্দূঘটনা ঘটলে সুন্দরবনকে রক্ষায় নেয়া হয়নি কোন কার্যকর পদক্ষেপ। সরকার আসে সরকার যায় ভাগ্য বদল হয়না সুন্দরবনের। এ কারনে ওয়ার্ল্ড হ্যারিটেজ সুন্দরবন রক্ষায় কেনা হয়নি পানি থেকে তেল চুষে নেয়ার কোন অয়েল সুইপার জলযান। এ র্দূঘটনার পর জানাগেল শুধু সুন্দরবন বিভাগ নয় বাংলাদেশে নেই কোন অয়েল সুইপার জলযান। সুন্দরবন বিষেশজ্ঞ ও পরিবেশবিদ ড. শেখ ফরিদুল ইসলাম জানিয়েছেন, দ্রুত এক দু’দিনের মধ্যে বিদেশ থেকে অয়েল সুইপার জলযান এনে সুন্দরবনের নদ-নদীতে ছড়িয়ে পড়া ও গাছের শ্বাষমূলে লেগে থাকা তেলের আস্তারন অপসারন করতে হবে। তা না হলে অস্তিত্ব সংকটে পড়বে সুন্দরবন। তিনি আরো জানান, নৌ পরিবহন মন্ত্রনালয়ের খাম খেয়ালী পানার কারনে সুন্দরবন ধ্বংস হতে পারে না। সুন্দরবনের মধ্য দিয়ে অবৈধ এই নৌ চলাচল বন্ধ করতে হবে ও সুন্দরবনকে বাঁচাতে সরকারকে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে হবে। অয়েল ট্যাংঙ্কার ডুবিতে সুন্দরবনের প্রাকৃতিক ও জীব-বৈচিত্রের ১শ কোটি টাকার উপরে ক্ষয়-ক্ষতির আশংকার কথা উল্ল্যেখ করে পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের স্টেশন অফিসার আবুল কালাম আজাদ বাদী হয়ে মংলা থানায় একটি দায়ের করেছেন। বুধবার দুপুরে মংলা থানায় দায়েরকৃত এ মামলায় ক্ষতির পরিমান আরো বাড়তে পারে বলে উল্ল্যেখ করা হয়েছে। ৩ লাখ ৫৭ হাজার ৬শ ৬৮ লিটার ফারনিস অয়েল বোঝাই অয়েল ট্যাংঙ্কার ‘এমভি ওটি সাউদার্ন স্টার সেভেন’ মালিক কর্তৃপক্ষের নামে মামলায় আসামী করা হয়েছে। মংলা থানা সূত্র এতথ্য নিশ্চিত করেছে। অন্যদিকে ট্যাংঙ্কার কর্তৃপক্ষ মেসার্স হারুন এন্ড কোম্পানীর ম্যানেজার গিয়াস উদ্দিন বাদী হয়ে বুধবার দুপুরে এমভি টোটাল ট্যাংঙ্কারের বিরুদ্ধে মংলা থানায় মামলা করেছে।

দিনে দু’বার জোয়ার ভাটার কারনে সুন্দরবনের নদ-নদী ও শাখা প্রশাখা গুলোতে হু-হু করে ঢুকে পড়ছে এই তেলের বিস্তৃতি। যার ফলে খুব অল্প সময়ের মধ্যেই সুন্দরবনের গাছপালা ও শ্বাষমূলে এই তেলের আস্তারন পড়ছে। এছাড়া বিস্তৃত জায়গায় পশু-পাখি ও প্রানীকুলও পড়ছে হুমকীর মুখে। বনবিভাগ সূত্র দাবী করেছে এ পর্যন্ত প্রায় সুন্দরবনের নন্দবালা থেকে আন্ধারমানিক পর্যন্ত প্রায় ২০ কিলোমিটার ডলফিনের অভ্যায়াশ্রমসহ প্রায় ৫০ বর্গকিলোমিটার এলাকা জুড়ে তেল ছড়িয়ে পড়ছে। দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহন না করা হলে আরো বিস্তীর্ন এলাকায় ছড়িয়ে পড়ার আশংকা রয়েছে। সময়ের সাথে সাথে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার পরিমান বাড়বে বলে বিষেশজ্ঞরা মনে করছেন।

 

লিখাটি সমাজের কথা.কম এর আদলে পোষ্ট করা হয়েছে।

comments

1 COMMENT

  1. I think I have a solution of removing these oil from surface… please contact me if u think that it would b worthy if u remove these oil from water surface… all ‘Dee The River, The Sands of Dee’ a poem my sister used to read it for her exam, she forgot bt I still remember coz it gave me a pain in my teen heart wen I was 14 heart cried for the girl called Mary who never came home back she was stuck by d cruel foam so wen I found d the river Dee in the Google maps.. couldn’t control myself… arranged a job for a week wer got free accommodation… n rushed towards Dee to feel d soul of my 18th centuries unseen, unknown, lost lover Mary… I felt good.. was on ma own felt like her soul was felt my feelings from far away n waiting to meet for yrs n yrs… wen went there felt she was around with lot of love I need is 2-3 days to develop a specimen of a robotic solar wind n wave power boat.. plz let me knw… I would do it for nothing I dont want money I want nothing just let me know…

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.