চিউয়িং গাম আবিষ্কারের পেছনে রয়েছে মজার ঘটনা ছবি সূত্রঃ গুগল

বিজ্ঞানের নানা আশীর্বাদে আমাদের জীবন হয়েছে গতিশীল, ছন্দময়।প্রযুক্তি যত এগিয়ে যাবে, বিজ্ঞান তত মানুষের জন্য নিয়ে আসবে নানা উপহার। তবে বিজ্ঞানের নানা আবিষ্কারের পেছনের সকল ইতিহাস কি আমরা জানি? সাড়া জাগানো এসব বৈজ্ঞানিক আবিষ্কারের পেছনে রয়েছে নানা ধরণের মজার মজার ঘটনা। আজ এই ঘটনাবলীর দ্বিতীয় পর্ব আপনাদের জন্য উপস্থাপিত হলঃ

১) দ্য মাইক্রোওয়েভ

মাইক্রোওয়েভ ছবি সূত্রঃ গুগল
মাইক্রোওয়েভ
ছবি সূত্রঃ গুগল

আবিষ্কারকের নামঃ পার্সি স্পেনসার
আবিষ্কৃত হয়েছেঃ ১৯৪৬ সাল
মূলত যা ঘটেছিলঃ দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ পর্ব শেষ হবার সাথে এই রেথন প্রকৌশলী ম্যাগনেট্রনের খোঁজ করছিলেন।রাডার ব্যবস্থার জন্য এই ম্যাগনেট্রন ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র তরঙ্গঢেউ(মাইক্রোওয়েভ) তৈরি করতে পারত। যখন স্পেন্সার একদিন তার তৈরি যন্ত্রটির সামনে দাঁড়িয়ে ছিলেন, তার পকেটে থাকা চকোলেট বারটি গলে যায়।
বিশাল ঘটনাঃ এই ম্যাগনেট্রন পপ কর্ণের ক্ষেত্রেও খুব কার্যকর হয়।
এর ফলে যা ঘটলঃ অরভিল রেডেনবেকার বিপুল ধন সম্পত্তির মালিক হয়ে যান।

২) ভায়াগ্রা

ভায়াগ্রা ছবি সূত্রঃ গুগল
ভায়াগ্রা
ছবি সূত্রঃ গুগল

আবিষ্কারকের নামঃ ফিযারের বিজ্ঞানীগণ
আবিষ্কৃত হয়েছেঃ ১৯৯২ সাল
মূলত যা ঘটেছিলঃ এঞ্জিনা নামক রোগটির মোকাবিলা করবার জন্য একটি ওয়েলশ হ্যামলেট পিল ব্যবহার করা হয়। দূর্ভাগ্যজনকভাবে, যারা এই রোগে আক্রান্ত ছিলেন, তাদের ওপর এই পিলটি কোন ধরণের উপকার করতে ব্যর্থ হয়।
বিশাল ঘটনাঃ যদিও এটি কাজ করে নি, যেসব মানুষ এই গবেষণায় অংশগ্রহণ করেছিলেন, তারা এই ঔষধটি ফেরত দিতে অস্বীকৃতি জানান।
এর ফলেঃ বিজ্ঞানীরা এই ঔষধের নাম দেন ভায়াগ্রা এবং বাজারজাত করা শুরু করেন সম্পূর্ণ ভিন্ন উদ্দেশ্যে।

৩) চিউয়িং গাম

চিউয়িং গাম ছবি সূত্রঃ গুগল
চিউয়িং গাম
ছবি সূত্রঃ গুগল

আবিষ্কারকের নামঃ থমাস অ্যাডামস
আবিষ্কারের সালঃ ১৮৭০
যা ঘটেছিলঃ থমাস দক্ষিণ আমেরিকার একটি গাছের কষ “চিকল” নিয়ে গবেষণা শুরু করেন।তিনি চেয়েছিলেন এটিকে রাবারের বিকল্প হিসেবে ব্যবহার করবার জন্য। কিন্তু প্রতিবারই ব্যর্থ হন। রাগে ক্ষোভে তিনি এটিকে মুখে পুরে চিবুতে শুরু করেন।
বিশাল ঘটনাঃ তিনি এর স্বাদ পছন্দ করেন!
এর ফলেঃ অ্যাডামস নিউ ইয়র্ক নাম্বার ১ নামক প্রতিষ্ঠানটি হয় বিশ্বের সর্বপ্রথম গণমানুষের জন্য চিউয়িং গাম প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান।

৪) বটক্স

কিভাবে বটক্স করা হয় ছবি সূত্রঃ গুগল
কিভাবে বটক্স করা হয়
ছবি সূত্রঃ গুগল

আবিষ্কারকের নামঃ অ্যালিস্টেয়ার ও জিন ক্যারাথার্স
আবিষ্কারের সালঃ ১৯৮৭
যা ঘটেছিলঃ এই দম্পতি তাদের চোখের চারপাশে দাগ কমানোর জন্য এক ধরণের বিষাক্ত রাসায়নিক পদার্থ ব্যবহার করতেন।এছাড়াও চোখের চারপাশে নানা ধরণের সমস্যার কারণেও তারা এটি ব্যবহার করছিলেন। কিছুদিন পরেই তারা একটি আকর্ষনীয় পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখতে পান।
বিশাল ঘটনাঃ চোখের চারপাশে নানা দাগ, ব্রণ, বয়সের বলিরেখা ইত্যাদি দাগগুলো আকস্মিকভাবে উধাও হয়ে গেল।
এর ফলেঃ মানুষ এখন নিজেদের চেহারায় বার্ধক্য যাতে না আসে, তার জন্য বটক্স ব্যবহার করছেন।

তথ্যসূত্রঃ রিডার্স ডাইজেস্ট

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.