এখন থেকে স্মার্টফোনে ইউটিউবে বিড়ালের ভিডিও দেখার সময় সাবধান।কারণ, ওই ভিডিও-র মাধ্যমেই হ্যাক হয়ে যেতে পারে আপনার ফোন। এমনটাই জানাচ্ছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাইবারক্রাইম বিশেষজ্ঞরা।
দেখা গেছে, বিড়ালের ভিডিওই ‘ইউটিউব’ বা ‘ভাইন’-এর মতো ওয়েবসাইটগুলোতে সবচেয়ে জনপ্রিয়। বিড়ালের ভিডিওতেই ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা সবচেয়ে বেশি ‘লাইক’, ‘কমেন্ট’এবং শেয়ার করেন। যে ভিডিও-র মধ্যে লুকিয়ে রয়েছে হ্যাক করার প্রোগ্রামিং, সেটি ‘লাইক’,‘কমেন্ট’ বা শেয়ার করলে স্মার্টফোনের লগ ইন করা সমস্ত অনলাইন অ্যাকাউন্টের
(ফেসবুক,টুইটার এমনকী ই-ব্যাঙ্কিং অ্যাকাউন্ট)দখল চলে যায় হ্যাকারের হাতে।বিশেষজ্ঞরা লক্ষ্যকরেছেন, সাধারণত এই হ্যাকিং স্থায়ী হয় ৪ ঘণ্টার জন্য। ততক্ষণে ফোনের মালিকের অজান্তেঘটে যেতে পারে অনেক কিছুই।বিড়ালের ভিডিও ছাড়াও শিশুদের ছবি ব্যবহার করে তৈরি ভিডিওকেও কাজে লাগানো হচ্ছে। কারণ শিশুদের
ভিডিও সমান জনপ্রিয়। যে কটি ভিডিও কেক্ষতিকারক বলে শনাক্ত করা গেছে, তার সবটিতেই পুরুষকণ্ঠ ব্যবহার করা হয়েছে।বিষয়টিনিয়ে সতর্ক করা হয়েছে ইউটিউব কর্তৃপক্ষকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here