Privacy concept: Silver Cyber Security on digital background

বাধাহীন তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার নিশ্চিতের মাধ্যমে নারীর ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫ টি মেয়েদের হলে সম্পন্ন হয়েছে সাইবার নিরাপত্তা বিষয়ক সচেতনতামূলক কর্মশালা ‘সাইবার সিকিউরিটি অ্যাওয়ারনেস ফর উইমেন এমপাওয়ারমেন্ট’। ‘সেফ, স্মার্ট, স্যোশাল’ প্রতিপাদ্য নিয়ে নারী শিক্ষার্থীদের জন্যে এই কর্মসূচীর আয়োজন করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইটি সোসাইটি (ডিইউআইটিএস)।

৪ জুন শনিবার বাংলা একাডেমীর আবদুল করিম সাহিত্য বিশারদ মিলনায়তনে এই কর্মসূচীর সমাপানী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক। অনুষ্ঠানে  সংগঠনের সভাপতি মহিউদ্দিন বাবরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন টেলিভিশন এন্ড ফিল্ম স্টাডিজ বিভাগের চেয়ারম্যান ড. শফিউল আলম ভূঁইয়া, আইআইটির পরিচালক ড. মোহাইমিন আস সাকিব, কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহযোগি অধ্যাপক ড. মামুনুর রশিদ, এরিকসন বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার মি. রাজ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইটি সোসাইটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আবদুল্লাহ আল ইমরান। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন আয়োজক সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ইবনে কায়েস।

ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার জামিল আহমদ বলেন, কেবল মাত্র নারী ও শিশুদের জন্যেই ডিএমপির ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টার রয়েছে। যে কোন নারী যে কোন অসুবিধার কথা সরাসরি সেখানে জানাতে পারবেন। কোন থানা যদি সহযোগিতা না করে সেক্ষেত্র উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বিষয়টি অভিহিত করতেও পরামর্শ দেন তিনি।

পুরো অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে বেশ কিছু দাবি জানানো হয়। এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- ঢাকা বিশ্ববিধ্যালয়ে একটি কম্পিউটার ইন্সিডেন্ট রেসপন্স টিম গঠন, সহায়তার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি হটলাইন নাম্বার চালু,  কেন্দ্রীয় কাউন্সিলিং সেন্টারের পাশাপাশি হলগুলোতেও নিয়মিত সচেতনতামূলক কর্মশালার আয়োজন করা, প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে পুলিশী সহায়তার ব্যাপারে প্রক্টর অফিসের আরো কার্যকর ভূমিকা রাখা, বিভিন্ন অনলাইন সাইট যেমন চাকরিদাতা প্রতিষ্ঠান, টিউশনি কিংবা এ ধরণের কাজ দেয়ার ওয়েবসাইটগুলোর বৈধতা এবং বিশ্বাসযোগ্যতা যাচাইয়ে সরকারের ভূমিকা প্রত্যাশা। যদি সম্ভব হয়, ভেরিভাই করে দেয়ার ব্যবস্থা করা। এছাড়াও স্কুল-কলেজের পাঠ্যসূচীতে সাইবার নিরাপত্তা বিষয়টি অন্তর্ভূক্ত করারও জোর দাবি উঠেছে।

এর আগে ২৮ মে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি সুফিয়া কামাল হলের মাধ্যমে শুরু হওয়া এই সচেতনতা কর্মসূচী রোকেয়া হল, শামসুন্নাহার হল, বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেতা মুজিব হল হয়ে গত বুধবার বাংলাদেশ কুয়েত মৈত্রী হলের মাধ্যমে শেষ হয়।

 

 

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.