সত্যিকারের বিজ্ঞানী হতে হলে বিজ্ঞান গবেষণার নানান দিক যেমন জানতে হয় তেমনি তার প্রয়োগও শেখা চায়। ছোটবেলা থেকে বৈজ্ঞানিক কর্মপদ্ধতির অনুশীলন একজনকে বিজ্ঞানী হিসাবে গড়ে তুলতে সাহায্য করে। বাংলাদেশ ফ্রিডম ফাউন্ডেশন ও বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতি আয়োজিত চতুর্থ জগদীশ চন্দ্র বসু বিজ্ঞান ক্যাম্পের সমাপনী দিনে উপস্থিত অতিথিরা এই মতামত ব্যক্ত করেন। দেশের স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিজ্ঞানকে জনপ্রিয় করা ও  শিক্ষার্থীদের সত্যিকার বিজ্ঞানীদের মতো করে চিন্তা এবং গবেষণা করতে শেখানোর লক্ষ্য নিয়ে অনুষ্ঠিত এই ক্যাম্পে বিএফএফ-এসপিএসবি শিশু-কিশোর বিজ্ঞান কংগ্রেস ২০১৬-এর ৩০ জন বিজয়ী অংশ নেয়। ৭ অক্টোবর থেকে চারদিন ব্যাপী এই ক্যাম্পটি অনুষ্ঠিত হয়েছে ঢাকার আদাবরে। ১০ অক্টোবর ক্যাম্পের সমাপনী পর্বে উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবাল , বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মোহম্মদ কায়কোবাদ, বাংলাদেশ ফ্রিডম ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক সাজ্জাদুর রহমান চৌধুরী,  মাসিক বিজ্ঞান ম্যাগাজিন বিজ্ঞান চিন্তার সম্পাদক  আব্দুল কাইয়ুম ও এসপিএসবির সহসভাপতি মুনির হাসান। অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল বলেন, “বিজ্ঞান হচ্ছে মজার, তার চেয়ে এক্সপেরিমেন্ট করা আরও মজার, তবে সবসময় যে সফলতা আসবে তেমনটি নয়।  ধরে নিতে হবে সফলতা আসবে আরো দেরিতে। তবে সফলতা না আসলেও এক্সপেরিমেন্ট চালিয়ে যেতে হবে। গবেষণাটাই আনন্দ, ফলাফল দরকারি নয়। ”

ক্যাম্পে অংশগ্রহণকারী ছাত্রছাত্রীদেরকে সত্যিকারের বিজ্ঞানী হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে ব্যাকগ্রাউন্ড রিসার্চ, এক্সপেরিমেন্ট ডিজাইন, প্রোগ্রামিং, রোবটিক্সসহ বিভিন্ন বিষয়ের উপর সেশন অনুষ্ঠিত হয়। এসব সেশন পরিচালনা করেন বিশিষ্ট প্রাণিবিজ্ঞানী ও লেখক ড. রেজাউর রহমান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তাত্ত্বিক পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. আরশাদ মোমেন, একই বিশ্ববিদ্যালয়ের রোবটিক্স এন্ড মেকাট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ও চেয়ারম্যান লাফিফা জামাল, বুয়েটের তড়িৎ প্রকৌশল বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. ফারসিম মান্নান মোহাম্মদী, নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের তড়িৎ ও কম্পিউটার প্রকৌশল বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. নোভা আহমেদ, রবির ভাইস প্রেসিডেন্ট জাভেদ পারভেজ, অন্যরকম গ্রুপের চেয়ারম্যান মাহমুদুল হাসান সোহাগসহ আরও অনেকে। এছাড়া এবারের ক্যাম্পে জীবনের নীতি-নৈতিকতা, মূল্যবোধ, নিজেকে সাহস দেবার, ভেঙ্গে না পড়ার এবং মনের জোর বাড়ানোর কৌশল নিয়ে দুটি সেশন ছিল। ডা. মুহিত কামাল এবং জনপ্রিয় কমেডিয়ান নাভিদ মাহবুব হাস্যরস এবং হাসি-ঠাট্টার মাধ্যমে এই দুটি সেশন পরিচালনা করেন।

ক্যাম্পের শুরুরদিন থেকেই বিভিন্ন লেকচারের পাশাপাশি ক্যাম্পররা নিজেদের গবেষণা নিয়েও কাজ করে এবং শেষ দিনে তাদের গবেষণা উপস্থাপন করে।

৪র্থ জগদীশ চন্দ্র বসু বিজ্ঞান ক্যাম্প সম্পর্কে  বিস্তারিত জানা যাবে কংগ্রেসের ওয়েবসাইট www.cscongress.net এবং ফেইসবুক পেইজ www.facebook.com/cscongressbd তে।

 

 

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.