কেমন আছেন সবাই ? আমার পোস্ট এর আজকে এটা দ্বিতীয় পর্ব। এই পর্বে আমি আপনাদের সাথে আলোচনা করব, কিভাবে আপনার ল্যাপটপ টিকে আপনি পরিষ্কার করবেন। শুধু ল্যাপটপ নয়, আপনার ডেক্সটপ এর জন্যও পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা একান্ত প্রয়োজনীয় একটি বিষয়। ধুলো ময়লা জমার ফলে, আপনার কম্পিউটার এ থাকা ফ্যান, এবং হিট সিংক, তাদের কাজ ভালো ভাবে করতে পারে না। যার জন্য, কম্পিউটার এর বিভিন্ন হার্ডওয়্যার গুলো ক্ষতি গ্রস্থ হতে পারে। আর ল্যাপটপ এর জন্য এটা আরো মারাত্বক আকার ধারণ করতে পারে, কেননা ল্যাপটপ এ বাতাস চলাচলের জন্য খুব সামান্যই জায়গা থাকে।

asd

ল্যাপটপ পরিষ্কার করার আগে, সবচাইতে প্রয়োজনীয় কাজটি হচ্ছে, আপনার ল্যাপটপ টির ম্যানুয়াল পড়ে নিন। কিভাবে পরিষ্কার করতে হবে, তা আপনার ম্যানুয়াল টিতে ভালো মতন লিখাই আছে। যদিও বেশিরভাগ নির্মাতারা বলেন যে ল্যাপটপ বছরে একবার খুব ভালো ভাবে পরিষ্কার করতে (সমস্ত হার্ডওয়্যার কে খুলে), তবে আপনি যদি খুব বেশি ট্রাভেল করেন, অথবা আপনার আশেপাশে যদি বেশি ধুলা বালু থাকে তাহলে নিয়মিত ভাবে পরিষ্কার করতে হবে, আপনার শখের ল্যাপটপ টিকে।  সত্যি বলতে কি আমাদের বাংলাদেশে যে পরিমানে ধুলা বালু, সেখানে মনে হয় মাসে মাসে ল্যাপটপ পরিষ্কার করা উচিত।

ল্যাপটপ পরিষ্কার করার আগে, অবশ্যই ল্যাপটপ টিকে বন্ধ করে নিতে হবে এবং ল্যাপটপ এর ব্যাটারি ল্যাপটপ থেকে খুলে নিতে হবে। মোট কথা আপনার ল্যাপটপ এ কোন ধরনের পাওয়ার থাকতে পারবে না।

যা যা লাগবে;

ist2_82094-compressed-air

কম্প্রেসড এয়ার (Compressed Air)

series object on black - ear cotton

তুলা যুক্ত কাঠি (Cotton Swab)

B20-0100-main-af

ক্লিনিং সলিউশন (Cleaning Solution)

c_c

পরিষ্কার, নরম কাপড়।

বাহিরের দিক পরিষ্কারের নিয়মঃ

ল্যাপটপ পরিষ্কারের সময় খুবি নরম কাপড় (যেমন পুরাতন টি শার্ট এর কাপড়) ব্যবহার করা ভালো। কখনই শক্ত কাপড় বা দাগ ফেলতে পারে এমন কিছু দিয়ে ল্যাপটপ পরিষ্কার করা উচিত হবে না। এতে করে আপনার সাধের ল্যাপটপ টির গায়ে দাগ পড়ে যেতে পারে। আবার ল্যাপটপ এর গায়ে সরাসরি ক্লিনিং সলিউশন স্প্রে না করা ভালো। নিয়ম হচ্ছে, ক্লিনিং সলিউশন টিকে প্রথমে নরম কাপড়ের উপরে স্প্রে করে, তা দিয়ে ল্যাপটপ পরিষ্কার করা।

ল্যাপটপ এর কুলিং ভেন্ট পরিষ্কার করার নিয়মঃ

আসুন ল্যাপটপ এর মধ্যেকার কিছু ময়লার নমুনা আগে দেখে নেই;

Laptop_dust_1

Toshiba-SatelliteA45-hinges-05

ল্যাপটপ এর ভেতর থেকে গরম বাতাস বের করে বাহির থেকে ঠাণ্ডা বাতাস ল্যাপটপ এ যায় এই কুলিং ভেন্ট এর মাধ্যমে। এটাকে আপনি কম্প্রেসড এয়ার দিয়েও পরিষ্কার করতে পারেন, আবার আমাদের অনেকের ঘরে পোর্টেবল ভ্যাকুয়াম ক্লিনার আছে, তা দিয়েও পরিষ্কার করতে পারে। তবে এখানে কিছু জিনিষ আপনাদের লক্ষ্য রাখতে হবে। যেমন, কম্প্রেসড এয়ার দিয়ে পরিষ্কার করার সময়, এমন ভাবে স্প্রে করা উচিত না, যাতে করে ফ্যান এর ব্লেডে কোন ধরনের তরল জমে যায়।

laptop-cleaning-Optimized

বিঃদ্রঃ দেখা গেছে, ল্যাপটপ নষ্ট হবার পিছে ল্যাপটপ এর আভ্যন্তরীন গরম একটি বিশেষ ভূমিকা পালন করে। হিট সিঙ্ক এ ময়লা জমে যায়, এবং ল্যাপটপ এ থাকা ফ্যান এর উপরেও, ময়লা জমার জন্য, ফ্যান ঠিক মতন ঘুরতে পারে না, আর হিট সিঙ্ক ঠিক মতন তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রন করতে পারে না। ফলাফল ?? আশা করি আপনাদের নতুন করে আর বলা লাগবে না …

ইনপুট / অউতপুট পোর্ট পরিষ্কার করার নিয়মঃ

ইনপুট আউটপুট পোর্ট গুলোতেই সবথেকে বেশি ময়লা জমে। কেননা এগুলো এমন ভাবে তৈরি যে, আপনি সাধারন কাপড় দিয়ে এগুলো কে পরিষ্কার করতে পারবেন না। তাই এক্ষেত্রে ভাল হয় যদি আপনি, একটি চিকন কাঠির মাথায় চুলা পেঁচিয়ে নিয়ে তা দিয়ে ইনপুট / অউতপুট পোর্ট পরিষ্কার করেন। এ জন্য কোন ধরনের তরল ব্যবহার না করাই ভালো, তবে কোন ধরনের তরল ব্যবহার করলে, তা সম্পূর্ন রূপে যেন পরিষ্কার হয়, সে দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। ভ্যাকুয়াম ক্লিনার দিয়েও পরিষ্কার করতে পারেন, তবে লক্ষ্য রাখবেন যেন বাহির থেকে ময়লা আবার ভেতরে না চলে যায়।

স্ক্রীন পরিষ্কার করার নিয়মঃ

clean-laptop-screen

স্ক্রীন পরিষ্কারের সময় খুবি নরম কাপড় (যেমন পুরাতন টি শার্ট এর কাপড়) ব্যবহার করা উচিত। কখনই শক্ত কাপড় বা দাগ ফেলতে পারে এমন কিছু দিয়ে ল্যাপটপ এর স্ক্রীন পরিষ্কার করা উচিত হবে না, এতে করে আপনার ল্যাপটপটির স্ক্রীন এ দাগ পড়ে যেতে পারে। আবার ল্যাপটপের স্ক্রীন এ সরাসরি ক্লিনিং সলিউশন স্প্রে না করা যাবে না। নিয়ম হচ্ছে, ক্লিনিং সলিউশন টিকে প্রথমে নরম কাপড়ের উপরে স্প্রে করে, তা দিয়ে স্ক্রীন পরিষ্কার করা। স্ক্রীন পরিষ্কার করার সময় টিস্যু পেপার ব্যবহার করা উচিত নয়। অ্যামোনিয়া যুক্ত কোন ধরনের ক্লিনিং সলিউশন স্ক্রীন এ ব্যবহার করা ঠিক না। এতে করে স্ক্রীন এ দাগ থেকে যায়। খুব জোরে চাপ দিয়ে স্ক্রীন পরিষ্কার করা ঠিক নয়। স্ক্রীন এর কোনা থেকে নরম ব্রাশ দিয়ে সাবধানে ময়লা সরিয়ে ফেলতে হবে।

বিঃদ্রঃ আপনি নিজেই ক্লিনিং সলিউশন তৈরি করে নিতে পারেন। পরিমান মতন আইসো-প্রপাইল এলকোহল এবং পানি মিশিয়ে ক্লিনিং সলিউশন তৈরি করা হয়। পরিমান টি হবে ১:১ অনুপাতে, অর্থ্যাৎ ৫০ মিলিলিটার পানির সাথে ৫০ মিলিলিটার আইসো-প্রপাইল এলকোহল মেশাতে হবে।

কীবোর্ড পরিষ্কারের নিয়মঃ

how-to-clean-a-laptop-computer-2আপনার সাধের ল্যাপটপ টির কীবোর্ড টিকে ভালো রাখতে হলে, ল্যাপটপ এ কাজ করার সময় আপনার খাবার ল্যাপটপ থেকে দূরে রাখুন। দেখা গেল, আপনি খাচ্ছেন সাথে হঠাৎ করে আপনার ল্যাপটপকেউ কিছু খাইয়ে দিলেন (মানে খাবার ল্যাপটপের কীবোর্ড এর উপরে পড়ে গেল…), আর তা যদি তরল কিছু হয়, তাহলেতো কথাই নাই। নরম ব্রাশ, কাপড় অথবা কমপ্রেসড এয়ার কিংবা ভ্যাকুয়াম ক্লিনার দিয়ে আপনি ল্যাপটপ এর কীবোর্ড পরিষ্কার করতে পারেন। তবে খুবি সাবধানে এ কাজটি করা উচিত। কেননা আমাদের ডেস্কটপ এর কীবোর্ড এর মতন ল্যাপটপ এর কীবোর্ড গুলো শক্ত নয়। আপনার একটু অসতর্কতায় ল্যাপটপ এর কীবোর্ড থেকে কী উঠে যেতে পারে।

এই ছিল ল্যাপটপ পরিষ্কার করার নিয়মাবলী। আজ তাহলে এ পর্যন্তই থাক। আমার আগামী পোস্ট এ ইনশাল্লাহ, কিভাবে আপনার ল্যাপটপটির হার্ডডিস্ক এর সম্পুর্ন ব্যাকআপ করবেন, কি কি বিষয়ে লক্ষ্য রাখতে হবে, এ নিয়ে আলোচনা করব।

পোস্ট টি পড়ে যদি আপনারা সামান্য ভাবেও উপকৃত হন, তবেই আমার লিখা সর্থক হবে ।

sign3

comments

20 কমেন্টস

  1. সুন্দর একটা পোষ্ট।ধন্যবাদ আপনাকে শেয়ার করার জন্যে।

  2. আগে একটা ল্যাপটপ কিনে দেন ভাই………………… বড়ই কষ্টে আছি!!! 🙂 🙂 🙂 🙂 🙂 🙂

  3. বিতরে কি ভাবে পরিষ্কার করবো খুলতে তো ভয় লাগে………দুই কথায় আসাধারন পোস্ট………..

  4. অসাধারন পোস্ট ভাই, আমার ল্যাপটপ টার একটু যত্ন আত্তি দরকার, ৩ বছরে এক্কেরে কিচ্ছু করি নাইক্কা। 🙁

  5. ভাই …… আমার মনে হয় না এতে করে আপনার ওয়ারেন্টি নষ্ট হবার কোন ঝুঁকি থাকবে। কেননা র‍্যাম বসাবার জন্য যে অংশ টি থাকে তা আপনি খুলতে পারবেন। তবে আপনি যদি আপনার প্রসেসর টি খুলেন, তবেই আপনার ওয়ারেন্টি নষ্ট হতে পারে। ল্যাপটপ পরিস্কার করার জন্য আপনার প্রসেসর টি খলার কোন দরকার হবার কথা না … 😀

    • ভাই …… আমার মনে হয় না এতে করে আপনার ওয়ারেন্টি নষ্ট হবার কোন ঝুঁকি থাকবে। কেননা র‍্যাম বসাবার জন্য যে অংশ টি থাকে তা আপনি খুলতে পারবেন। তবে আপনি যদি আপনার প্রসেসর টি খুলেন, তবেই আপনার ওয়ারেন্টি নষ্ট হতে পারে। ল্যাপটপ পরিস্কার করার জন্য আপনার প্রসেসর টি খলার কোন দরকার হবার কথা না …

  6. ভাই কোমপরেসসেড Air sell কোরে কারা বোলটে পারেন কি???????

    • আমার যত দূর মনে পড়ে, এই আইটেম গুলো, কম্পিউটার সিটি’র চার তলায় একটি দোকান আছে, নাম হচ্ছে লজিটেক। অখানে দেখতে পারেন।
      অথবা কম্পিউটার সিটি ‘র যে কোন দোকান, যেখানে Accessories পাওয়া যায়, সেখান থেকে কিনতে পারেন।

  7. আসসালামুয়ালাই-কুম । আমার LG E50 মডেলের লেপটপ এর পাওয়ার বাটন সমস্যা হয়েছে,
    যার জন্য লেপটপ চালু করতে পারছি না । কি ভাবে এটি ঠিক করা যায়,আইডিবির কোথায় ঠিক করা যায় এবং কত খরচ হবে দয়া করে কেউ বললে উপকার হয়।
    ধন্যবাদ।

  8. thank you bondhu for this post. Onek upokrito holam. Erokom post aro chai. Bhogoban sabaike bhalo rakhun.

  9. ভাইয়া , আমার তো ল্প্যাটপ নাই ! ডেক্সটপ আছে ।

    প্লিজ আসুন আমরা সেটাই পরিক্সার করি ।

    একটু বলবেন কি , মাদারবোর্ড ক্যামনে পরিক্সার করে খুইল্লা মুইল্লা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.