প্রায় অনেক দিন আগে আমি মোজিলা ফায়ারফক্স ব্রাউজারের অন্ধ ভক্ত ছিলাম কারন এর বহুবিধি ব্যবহার সত্যি আমাকে অনেক বেশী আকৃষ্ট করেছিলো। আমি একজন অনলাইন প্রফেশনাল মানুষ, আর ফায়ারফক্স আমাকে আমার কাজে সর্বচ্চ সাহায্য করতো। যেমন, এই ব্রাউজারটির জন্য ফ্রিতে এতো বেশী অ্যাড-অন আছে যে আপনার চাহিদার কোন অভাব থাকবে না। এবং অন্যান্য ব্রাউজারের থেকে মোজিলা বেস্ট কোন অ্যাড-অন ব্যবহার করার জন্য।

এতো শুনলেন গুণগানের কথা এবার খারাপ দিক গুলাও জানুন-

প্রাধান সমস্যা হল এর স্টার্টআপ টাইম। ব্রাউজার টি খুব বেশী অলস প্রকৃতির। একবার ওপেন হলে যদিও ঠিক হয়ে যায় কিন্তু প্রথমবার ওপেন হবার সময় ওর অবস্থা খারাপ হয়ে যায়।

আমার মতো যারা হেভি ইউজার তারা হয়তো বিষয়টি খেয়াল করে দেখেছেন।

আর দ্বিতীয় সমস্যা হল “হ্যাং” করা, একই সাথে একাধিক ট্যাব ওপেন করলে এমন ভাবে হ্যাং করবে যে রিস্টার্ট ব্যতিত আর কাজ করবে না।

ভাবলাম এতো সব ঝামেলা পোহানোর চেয়ে গুগল ক্রোম ব্যবহার করা শুরু করি। প্রথমে একটু কষ্ট হয়ে যাচ্ছিল কিন্তু পরবর্তীতে সব ঠিক হয়ে যায়।

গুগল ক্রোমের আমার কাছে এখন বেশী ভাল লাগে কারন এই ব্রাউজারটি অন্যান্য ব্রাউজার থেকে অনেক বেশী ইউজার ফ্রেন্ডলি, এমনটি আমার মনে হয়েছে।

আমি মোটামুটি কনফিগারের “আই৩” ল্যাপটপ ব্যবহার করি আর ক্রোমের স্টার্টআপ টাইম সত্যি মুগ্ধ করার মতো, একেবারে সুপার ফাস্ট।

যদিও অ্যাড-অন বা এক্সটেনশনের ক্ষেত্রে কিছু সীমাবদ্ধতা রয়েছে তবে যা আছে তাতে এখন আমার কাজ চলে যায়।

এতো গেলো সব সুবিধার কথা এবার একটি মারাত্মক সমস্যার কথা শুনি-

হয়তো আপনি এর আগেই খেয়াল করেছেন যে, যখন একই সাথে অনেকগুলো ট্যাব ওপেন করে কাজ করবেন তখন দেখবেন আপনার পিসি প্রচুর স্লো হয়ে যাবে। আমি অবাক হয়ে যায় যখন একই সাথে মাল্টি-টাস্কিং করি। গুগল ক্রোমের প্রতিটা ট্যাব এতো পরিমান র‍্যাম ইউজ করে যে আপনার পিসি স্লো হতে বাধ্য।

এখন প্রশ্ন হল, তবে কি এখন গুগল ক্রোম ব্যবহার করা ছেড়ে দিবো?

না একদম না, কেন ছাড়বেন বরং কিভাবে এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায় সেটি খুঁজে বের করতে হবে আর সেটি নিয়ে আজকের আমার পোস্ট।

তো চলুন আর কথা না বাড়িয়ে শুরু করা যাক-

আপনি প্রথমে এই লিংক থেকে এক্সটেনশনটি আপনার ক্রোমে অ্যাড করে নিন।

এবার সেটিং এ যেয়ে আপনার ইচ্ছা মতো সময় ঠিক করে নিন।

মূলত এই এক্সটেনশনটি যেটি করবে সেটি হল গুগল ক্রোমে জেহুতু বেশী ট্যাব ওপেন করলে সে অনেক বেশী র‍্যাম ব্যবহার করে তাই এই এক্সটেনশনটি আপনার অব্যবহারিত ট্যাব গুলা ফ্রিজ করে দিবে। পরে আবার যখন আপনি চাইবেন তখন জাস্ট একটা ক্লিকের মাধ্যমে সেই ট্যাব গুলা রিস্টার্ট করত পারবেন। এতে করে দেখবেন আপনার পিসির র‍্যাম ইউজেস অনেক কমে যাবে প্লাস আপনার পিসিও সুপার ফাস্ট কাজ করবে।

আপনি চাইলে হোয়াইট লিস্টে ইচ্ছা মতো সাইট অ্যাড করে নিতে পারেন যেটি সে ফ্রিজ করবে না এমন।

2015-05-20_152613

আরও একটি সুবিধা হল আপনি যখন আপনার ল্যাপটপের ব্যাটারি ব্যাকআপ ব্যবহার করবেন তখন সেটিও অনেক বেড়ে যাবে।

তবে, আশা করছি আজকে থেকে আর আপনার পিসি অন্তত গুগল ক্রোমের কারনে হ্যাং করবে না।

আপনার যদি কোন প্রশ্ন বা মতামত থাকে তবে সেটি অবশ্যই কমেন্ট বক্সে জানাবেন আমরা সেটার যথাযথ উত্তর দেবার চেষ্টা করবো।

আর পোস্টটি যদি আপনার ভাল লেগে থাকে তবে অবশ্যই শেয়ার করে বন্ধুদের জানার সুযোগ করে দিবেন আশা করি।

comments

1 COMMENT

  1. if u use 64 bit windows, with 32 bit firefox… then it must be shlow.. try firefox 64 bit (still in beta) i think u will come back again to firefox.. i am useing it no problem.

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.