হোমো স্যাপিয়েন্স (Homo sapiens) তার বুদ্ধিমত্তা আর কাজের দ্বারা প্রাণিজগতে পেয়েছে শ্রেষ্ঠত্বের আসন। কিন্তু আমরা আমাদের পূর্বপুরুষ সম্পর্কে ঠিক কতটা জানি?

 

২০১৩ সালের ঘটনা। একজন অপেশাদার ভূতত্ত্ববিদ একটি জীবাশ্ম চোয়ালের হাড় লি বার্গারের বাড়িতে নিয়ে আসেন। লি বার্গার হলেন জোহানেসবার্গ, দক্ষিণ আফ্রিকায় উইটওয়াটারসর‌্যান্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক। তিনি তার হাতে হাড়টি নিয়েই বুঝতে পারেন গুরুত্বপূর্ণ কিছু উদঘাটন করতে চলেছেন তারা।

জোহানেসবার্গের ইউনিভার্সিটি অব উইটওয়াটারসর‌্যান্ডের গবেষক দলটি ২০১৩ সালে রাইজিং স্টার গুহার চুনাপাথরের টানেলে জীবাশ্মগুলোর সন্ধান পান।জীবাশ্মগুলোর নাম দেওয়া হয় হোমো নালেডি। নালেডির মানুষের সাথে পাওয়া যায় অনেক মিল।তখন প্রশ্ন জাগে অনেকেরই, “তবে কি মানুষের বিবর্তনের ইতিহাস আবার নতুন করে লেখার সময় এসে গেল? নিয়ান্ডারথাল আর হোমো সেপিয়েন্সের মধ্যে রয়েছে কি আরো একটি মানব প্রজাতি? একই সঙ্গে মানুষের দুটি প্রজাতিরও কি মেলবন্ধন হয়েছিল কোনো সময়ে?”

বিজ্ঞানীদের অনুমান, হোমো নালেডিদের হাত, কব্জি এবং পায়ের পাতা আধুনিক মানুষদেরই মতো আর দেহের উর্ধাংশ ও মগজের আকার মানুষের আদিতম পূর্ব পুরুষদের মতোই ছোট। এরা হাতে বিভিন্ন জিনিস নিয়ে কাজ করত। তবে এদের আঙ্গুলগুলো বেশি বাঁকানো। তার মানে এরা কোন কিছু বেয়ে ওপরে উঠতে পারত।

এখন প্রশ্ন হল এই হোমো নালেডিদের হাড় গভীরতম গুহার চেম্বারে কিভাবে গেল? এরা জীবিত অবস্থায় কিভাবে জীবন যাপন করত?

Untitledss

 

হোমো নালেডি সম্ভবত আদিম দু’পেয়ে প্রাইমেট ও আধুনিক মানুষের মধ্যবর্তী কোন প্রজাতি। তবে যে সকল গবেষক এই আবিষ্কার করেছেন তারা নিশ্চিতভাবে জানেন না হোমো নালেডি ঠিক কত বছর আগে পৃথিবীতে বসবাস করত।

 

গবেষক দলের প্রধান অধ্যাপক লী বার্জার জানান, এই প্রজাতির সদস্যদের মধ্যে ধর্মীয় আচারানুষ্ঠান পালনের অভ্যেস ছিল। যে কঙ্কাল পাওয়া গেছে তার সবচেয়ে বিস্ময়কর দিক হচ্ছে- নালেডি গ্রুপেরই অন্য সদস্যরা, মাটির নিচে অত্যন্ত সরু এবং অন্ধকার একটি রাস্তা ধরে খুব সতর্কভাবে এই গুহার ভেতরে এসেছিল।

sd

৪৭ সদস্যের আন্তর্জাতিক দল দ্বারা ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বর মাসে হোমো নালেডি খননের মাধ্যমে সংগ্রহ করা হয়। হোমো নালেডির জীবাশ্মগুলো মিলেছে জোহানেসবার্গ থেকে ৫০ কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থিত একটি গুহায়। গুহা ও এর পার্শ্ববর্তী এলাকা ইউনেসকোর বিশ্ব ঐতিহ্যের তালিকাভুক্ত। সেখানে দীর্ঘদিন ধরেই অনুসন্ধান চালিয়ে আসছেন জোহানেসবার্গের ইউনিভার্সিটি অব উইটওয়াটারসর‌্যান্ডের গবেষক দলটি।

৩০০ টি হাড় ডিনাল্যাডির চেম্বারের পৃষ্ঠ থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে এবং বাকি ১২৫০ টি জীবাশ্মের নমুনা খনন করে উদ্ধার করা হয়েছে। এদের শরীরের উচ্চতা পাঁচ ফুটের মতো, ওজন ছিল প্রায় ৪৫ কেজি। এদের মগজ অনেকটা কমলালেবুর মতো। আবিষ্কৃত ১৫৫০ টি কঙ্কালের মধ্যে নারী-পুরুষসহ বিভিন্ন বয়সের মানুষের হাড় পাওয়া গেছে। রয়েছে নবজাতক থেকে প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের হাড়ও।

UntitledsaUntitledbjkUntitledrft54

আফ্রিকায় এ আবিষ্কার নজিরবিহীন। প্রথম মানবজাতির বিবর্তন কিভাবে হলো এর মধ্য দিয়ে তা আরও ভালভাবে বোঝা যাবে বলেই মনে করছেন বিজ্ঞানীরা।
UntitledasUntitleddss

জোহানেসবার্গের উইটওয়াটারসর‌্যান্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদল।

 

অধ্যাপক লী

অধ্যাপক লী বলেন, হাড়গুলো কতটা সুরক্ষিত ছিল তা দেখে আমি বিস্মিত হয়েছি।

l;

‘আফ্রিকায় পাওয়া যে কোন আদিম মানুষের চেয়ে হোমো নালেডি ভিন্ন। গবেষকরা ধারণা করছেন যে, গুহাটি সম্ভবত মৃতদেহ কবর দেয়ার জন্য ব্যবহৃত হতো এবং নালেডিরা প্রতিটি মৃতদেহকে এখানে বয়ে নিয়ে আসত। গবেষকদের ধারণা সত্যি হলে এটা ধরে নিতে হবে যে, হোমো নালেডিরা ধর্মীয় আচারানুষ্ঠান প্রক্রিয়ায় অভ্যস্ত ছিল।’

অধ্যাপক লী বলেন, আমাদের ধারণা কি তবে ভুল, যা আমরা এতদিন ভেবে এসেছি আধুনিক মানুষের স্বকীয় বৈশিষ্ট্য হিসেবে। তবে গবেষকদের ধারণা মানবজাতির ক্রমবিকাশের সত্যিকারের ইতিহাস হয়ত নতুন করে রচনা করতে হতে পারে।

Untitledl;o

অধ্যাপক লী এর হাতে হোমো নালেডি

তিনি জানান, “আমরা জানতে চলেছি এই প্রজাতির শিশুরা কখন জন্মগ্রহণ করত, কখন মায়ের বুকের দুধ খেত, কিভাবে তাদের বিকাশ হতো, তাদের বিকাশের গতি, বিকাশের ক্ষেত্রে নারী ও পুরুষের ভিন্নতা, কিভাবে শৈশব থেকে কৈশোর ও কৈশোর থেকে বয়স্ক হতো এবং কিভাবে তাদের মৃত্যু হতো।”

 

অধ্যাপক লী বলেন, ‘কর্ম সম্পাদনের ২১ দিন পরে আমরা আফ্রিকার ইতিহাসে প্রথমবারের মতো মানুষের সঙ্গে অধিক সম্পর্কযুক্ত প্রজাতির সবচেয়ে বৃহৎ জীবাশ্ম আবিষ্কার করেছি। এটি ছিল আমাদের জন্য একটি ব্যতিক্রম অভিজ্ঞতা।’

 

গবেষকরা রুষ

  1. erectus থেকে শুরু করে অস্ট্রালোপিথেসিনাস ও লুসি এর সঙ্গে চেহারার অনেক বেশী মিল ছিল হোমো নালেডির।

এদের বৈশিষ্ট্যগুলো নিম্নে তুলে ধরা হল।

“লুসি”

অস্ট্রালোপিথেকাস এফার‍্যান্সিস (Australopithecus afarensis)

৩.২ মিলিয়ন বছর আগে

বয়স্ক মহিলা

৩ ফুট ৮ ইঞ্চি

৬০-৬৫পাউন্ড।

 

“তুরকানা বয়”
হোমো ইরেক্টাস
১.৬ মিলিয়ন বছর আগে
কৈশোর বয়সের
৫ ফুট
১১০-১১৫ পাউন্ড
“রাইজিং স্টার হোমোনিন”
হোমো নালেডি
অজানা তারিখ
প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষ
৪ ফুট ১০ ইঞ্চি
১০০-১১০ পাউন্ড

 

শ্রেণীবিন্যাস

Kingdom: Animalia

Phylum: Chordata

Class: Mammalia

Order:         Primates

Family: Hominidae

Genus: Homo

Species: H. naledi

সূত্রঃ http://edition.cnn.com/2015/09/10

/africa/homo-naledi-human-relative-speciesআদিকালের দ্বিপদী কোন প্রাণীর সঙ্গে বর্তমানের মানুষের মধ্যেই এই প্রাণীটিই হয়ত এ যাবতকালের মধ্যে পাওয়া সর্বশেষ সেতু। নাকি বিজ্ঞানীদের নিরন্তর গবেষণার মাধ্যমে পাওয়া যাবে নতুন কোন প্রজাতির সন্ধান, যা মানবপ্রজাতির বিবর্তন সম্পর্কে দেবে আবারও কোন নতুন অনেক ধারণা!

http://news.nationalgeographic.com/2015/09/150910-human-evolution-change/

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.