মাইক্রোসফট অসাধারন একটি ডিভাইস বাজারে আনবে যেটার নাম সার্ফেস বুক। যাকে আপনি শুধু ল্যাপটপ বললে ভুল বলা হবে, কারন এটি ল্যাপটপ থেকে আরও বেশী কিছু। গতকাল অনুষ্ঠিত মাইক্রোসফটের একটি ইভেন্টে কর্তিপক্ষ সবার সাথে নতুন এই ডিভাইসটির পরিচয় করিয়ে দেয়।

microsoft-surface-book-19.0

আপনি এটাকে একইসাথে ল্যাপটপ আবার ট্যাব এই ২ই হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন। নতুন এই ডিভাইসে ব্যবহার করা হয়ছে সর্বকালের সেরা কিছু ফিচার। যেমন, এটির ডিসপ্লে ১৩.৫ ইঞ্চি তবে এর পিক্সেল ডেনসিটি আপনাকে নিশ্চিত অবাক করবে, “২৬৭পিপিআই” সার্ফেসের সম্পূর্ণ বডী সিলভার মেটাল দিয়ে তৈরি করা হয়ছে এবং ব্যবহার করা হয়ছে হাইব্রিড কুলিং সিস্টেম।

আছে অত্যাধুনিক কিবোর্ড সাথে অসাধারন ব্যাকলাইট। আপনি এটির কিবোর্ড ব্যবহার করে যখন টাইপ করবেন তখন অন্যান্য সাধারন কিবোর্ডের মতন এটি শব্দ করবে না এবং একই সাথে আপনাকে দিবে চরম টাইপিং অভিজ্ঞতা।

keybord

একটি ল্যাপটপের কাছে সবার যে প্রাথমিক চাহিদাটা থাকে সেটা হল ব্যাটারি ব্যাকআপ। আর সার্ফেসে আপনি পাবেন সম্পূর্ণ একদিন অর্থাৎ ১২ ঘণ্টার ব্যাটারি ব্যাকআপ।

আর পারফমেন্স? এটি নিয়ে তো আপনি একেবারেই চিন্তা করবেন না কারন মাইক্রোসফট তাদের সার্ফেসে কোন অংশে কমতি রাখেনি আর তাইতো তারা ব্যবহার করেছে বর্তমানের সবথেকে লেটেস্ট চতুর্থ জেনারেশনের আই৫ এবং আই৭ প্রসেসর সাথে ১৬জিবি পর্যন্ত র‍্যাম সাথে নতুন উইন্ডোজ ১০

ট্যাব ইউজারের কথা চিন্তা করে মাইক্রোসফট দিয়েছে অসাধারন একটি পেন যেটির ব্যবহারে আপনি যেকোনো প্রেজেন্টেশন বা গ্রাফিক আরও দ্রুত এবং সহজেই করে ফেলতে পারবেন।

সার্ফেস বুক বাজারে পাওয়া যাবে আগামী ২৬ অক্টোবর থেকে তবে ইতিমধ্যে তারা এটির প্রি অর্ডার নিতে শুরু করেছে।

মূল্য? সার্ফেসের বাজার মূল্য ধরা হয়েছে ১,৪৯৯ ডলার যেটা ম্যাকবুকের কাছাকাছি। তবে পারফমেন্সের দিক থেকে সার্ফেস নাকি ম্যাক থেকে বেশী এগিয়ে। কর্তিপক্ষের দাবি ঠিক এমনটাই।

এখন আপনারা যারা ব্যবহার করবেন তারা বাকি ভালো বলতে পারবেন!

কেমন লেগছে আপনার কাছে নতুন সার্ফেস বুক? কোনটা বেস্ট ম্যাকবুক নাকি সার্ফেস বুক? আপনার কি মনে হয়?

 

সূত্রঃ মাইক্রোসফট ব্লগ

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.