কিছুদিন আগে আপনাদের জন্য কয়েকটি টিপস দেয়া হয়েছিল যাতে করে আপনারা কোন কিছু খুব দ্রুত মনে রাখতে পারেন এবং আত্মস্থ করতে পারেন। সেই ফলশ্রুতিতেই আজ আপনাদেরকে আরো কিছু সহজ এবং কার্যকরী উপায় বাতলে দেয়া হল যার ফলে আপনার সামাজিক ও ব্যক্তিগত জীবনে আপনি থাকতে পারেন ভাবনামুক্ত।

১) আশাবাদী হয়ে উঠুন, সাফল্য সুনিশ্চিত
কথায় আছে, ‘একবার না পারিলে দেখ শতবার’- বাস্তবে হয়ত খুব কম মানুষই শতবার চেষ্টা করে কিন্তু তাই বলে আপনাকে একবারেই থেমে যেতে হবে না। সেটি কাম্যও নয়। এর কারণ হচ্ছে, সবসময়ই আপনি সফল হবেন এমনটি ভাবা খুবই অনুচিত। আমার হবেই- এমন ধরণের মনোভাব থেকে দূরে থাকুন। তারচাইতে বরং আমার বিশ্বাস আছে যে হয়ত আমার হয়ে যাবে- এই মনোভাবটি নিজের মাঝে নিয়ে আসুন। এর ফলে যে জিনিসটি আপনার জন্য ভালো হবে তা হচ্ছে আপনি সফল যদি নাও হতে পারেন, আপনার মাঝে আত্মবিশ্বাসটি থেকে যাবে।

২) উত্তেজক কিছু খুঁজে বের করুনঃ
‘আমি এটা করতে চাই না, কিন্তু করতে হচ্ছে’ কিংবা ‘আমি এটা করতে চেয়েছিলাম কিন্তু পারি নি’- এই ধরণের মনোভাব পোষণকারীরা নিজেদের মাঝে হতাশায় ভোগে। এর কারণ হচ্ছে, তারা যা করতে চায়, তা করতে পারে না। ফলে তাদের কাজটি অন্য কেউ করতে দেখলে ঈর্ষান্বিত হয়ে পড়ে। আপনার মাঝে উত্তেজনা সৃষ্টি করতে পারে এমন কোন কাজ করুন। শখ থেকে টাকা উপার্জন- এর চাইতে ভালো কিছু আর হতেই পারে না। নিজের কাছে অ্যা খারাপ লাগে তা জোর করে করতে যাবেন না। তারচাইতে বরং নিজেকে নিজে উদ্বুদ্ধ করতে পারেন এমন কিছু খুঁজে বের করুন।

৩) পড়তে পারছেন কিন্তু আত্মস্থ না?
মাঝে মাঝে বাবা মায়েরা একটা নালিশ করেন সন্তানদের বিরুদ্ধে। তা হচ্ছে তাদের সন্তান পড়াশোনা করছে ঠিকই কিন্তু তা মনে রাখতে পারছে না। বিজ্ঞানীরা বলেন, সকলের মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা এক হয় না। কেউ হয়ত জোরে জোরে পড়ে নিজের মাঝে পড়াটা রপ্ত করতে পারে, আবার কেউ বা শোরগোল করে পড়তে একেবারেই পছন্দ করে না। তবে তাদের দাবি, পড়াটা এমন ভাবেই পড়া উচিত যা একইসাথে দুইটি ইন্দ্রিয় অর্থাৎ, দর্শন ও শ্রবণ এর মাধ্যমে কাজ করে। তাদের ভাষায়, খুব তাড়াতাড়ি পড়তে পারলে আত্মস্থটাও খুব তাড়াতাড়িই হয়ে যাবে। বিশেষ করে যাদের স্মৃতিশক্তি খুব দূর্বল, তাদের জন্য এটি খুবই উপকারী।

চেষ্টা করে দেখতে পারেন উপরের দেয়া টিপসগুলো। হয়ত নিজেকে ফিরে পেতেও পারেন।

সূত্রঃ সায়েন্টিফিক জার্নাল

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here