মটো থ্রি সিক্সটি নেক্সট জেনারেশন ওয়াচ

আগে মানুষ ঘড়ি কেবল সময় দেখার জন্য ব্যবহার করত কিন্তু প্রযুক্তির কল্যাণে মানুষ এখন এন্ড্রয়েড ওয়্যার নামক বস্তুটির সাথে পরিচিত হয়েছে। বেশ রাশভারী শুনতে মনে হলেও এটি আদতে একটি ঘড়িই কিন্তু সময় দেখা ছাড়াও এতে আরো নানা ধরণের কাজ করা যায়।

স্মার্টওয়াচ ধারণাটি ২০১৪ সালে এলেও কেবল মটোরোলা ও এল জি- এই দুই কোম্পানী তাদের একচেটিয়া বাজার শুরু করেছিল। কিন্তু আস্তে আস্তে অন্যান্য নানা প্রতিষ্ঠানও তাদের স্মার্টওয়াচ বাজারে আনা শুরু করে প্রতিযোগিতার স্বার্থে। কিন্তু মটোরোলার চাহিদা এখনো তুঙ্গে।

মটো থ্রি সিক্সটিঃ 

মটো থ্রি সিক্সটি যখন বাজারে প্রথম আসে তখনই এটি গ্যাজেটপ্রেমীদের নজর কেড়ে নেয়। পরবর্তীতে এই উত্তরাধিকাররা অর্থাৎ, এই সিরিজের আরো কিছু স্মার্টওয়াচ বাজারে আনা হলে তারাও বেশ সুনামের সাথে টপ লিস্টে নিজেদের নাম ধরে রাখতে সমর্থ।

মটোরোলা মটো ৩৬০ (সেকেন্ড জেনারেশন) ঘড়িটির ব্যাটারী পূর্ববর্তীদের থেকে বড়, স্ন্যাপড্রাগন ৪০০ প্রসেসর রয়েছে এবং ব্যবহারকারীদের জন্য এটি দুটি ভিন্ন সাইজে বাজারে রয়েছে। মটো মেকারের সাহায্যে এটিকে কাস্টোমাইজও আপনি করতে পারবেন চাইলে।

মটো ৩৬০
                                                        মটো ৩৬০

এর সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে এটিকে মকাস্টোমাইজ করা যাবে এবং আপনি চাইলেই যে কোন মুহুর্তে এটির বেল্ট পরিবর্তন করে নিজের ইচ্ছামত বেল্ট যুক্ত করতে পারবেন।

কি আছে এতেঃ 

  • ১.৩৭ ইঞ্চি আইপিএস এলইডি ডিসপ্লে
  • ১.২ গিগাহার্টয কোয়াড-কোর কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৪০০ প্রসেসর
  • ৫১২ মেগাবাইট র‍্যাম
  • অন বোর্ড স্টোরেজ ৪ জিবি
  • ৩০০ এমএএইচ ব্যাটারী
  • ৪২.০*৪২.০*১১.৪ মিমি
  • পানি ও ধূলাবালি নিরোধক

সূত্রঃ androidauthority.com 

 

 

 

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.