বর্তমানে “হৃদয় জোড়া লাগা” ঘটনার প্রবল জোয়াড় চললেও “হৃদয় ভাঙা” ঘটনার স্বাভাবিক স্রোতটুকুও দেখা যায় না। এর কারণ হয়ত সত্যিকারের ভালবাসার ঘটনা আজকাল আর তেমন ঘটে না বলেই। তবে একদমই যে ঘটে না তাও না। আজও অনেকে সত্যিকারের ভালবাসার ফাঁদে পরেন এবং এর কারণে অনেকেরই হৃদয় ভেঙে চুরমার হয়ে যায়, যার কারণে তারা ভুগতে শুরু করেন ভাঙা হৃদয় সিনড্রোম বা Broken heart syndrom থেকে ।

broken_heart_by_starry_eyedkid-1এরই মধ্যেই অনেকে নিশ্চয় ধরে ফেলেছেন যে এটি  প্রেমঘটিত (সাধারণত) এরং হৃদয়ঘটিত এক ধরণের Medical Condition যার সংজ্ঞা অনেকটা এরকম –

“Broken Heart Syndrome হল এমন এক ধরণের Medical Condition, যেখানে আকস্মিক মানসিকভাবে চরম আঘাত পাওয়ার কারণে হৃদপিন্ডের  মাংসপেশী myocardium  সাময়িকভাবে দূর্বল হয়ে পরে এরং এর কারণে  শারিরীকভাবে বুকে  ব্যাথা অনুভূত হয়।”

আরও ভাল করে বলা যায় –

“Broken Heart Syndrome is such an Medical Condition which is triggered by extreme and sudden emotional trauma  and due to which there is a temporary weakening of the myocardium (the muscle of the heart).”

এবার একটু details এ আসা যাক।

পূর্বে ধারণা করা হত যারা Broken Heart Syndrome বা BHS এ ভুগে, তারা হয়ত বড় রকমের হার্ট এ্যটাকের (Heart Attack) স্বীকার হচ্ছে। কারণ  BHS এমনই চালাক যে এটা ঠিক Heart Attack  এর  symptoms বা লক্ষণগুলোর মত লক্ষণ প্রকাশ করে থাকে, যেমন – বুকে ব্যাথা হওয়া, শ্বাস-প্রশ্বাসে স্বল্পতা, প্রবলভাবে ঘেমে যাওয়া ইত্যাদি। পরবর্তীতে বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে ডাক্তারেরা নিশ্চিত হন যে এটা কোন হার্ট এ্যটাকের নয়,  হার্ট এ্যটাকের এর ভেলকি মাত্র। শুদ্ধ বাংলায় এটাকে হয়ত  মজা করে আমরা “হৃদয়ের লীলা খেলা” বলতে পারি ।

Broken Heart Syndrome (BHS) আরও বিভিন্ন নামে পরিচিত,  যেমন – Takotsubo cardiomyopathy , Gebrochenes-Herz-Syndrom ইত্যাদি তবে stress cardiomyopathy নামটি বেশি প্রযোজ্য।

BHS প্রথম আবিষ্কার করেন জাপানী ডাক্তারেরা ১৯৯১ সালে। তারাই  এটার নাম দিয়েছিলেন Takotsubo cardiomyopathy বা octopus trap cardiomyopathy ।  যদিও এখন পর্যন্ত এর সঠিক কারণটি জানা যায়নি, তবে ধারণা করা হয়  আকস্মিক মানসিকভাবে চরম আঘাত পাওয়ার কারণে, শরীরের stress hormones-গুলোর (যেমন – adrenaline ) অস্বাভাবিক প্রতিক্রিয়ায় এমনটি হয়। এখানে  মানসিকভাবে আঘাত পাওয়া বলতে প্রেমিক-প্রেমিকার সাথে ছাড়াছাড়ি হয়ে যাওয়া, প্রিয় কাউকে হারিয়ে ফেলা ইত্যাদি ঘটনায় মানসিকভাবে আঘাত পাওয়াকেই সাধারণত বুঝিয়ে থাকে। এছাড়া ভয়াবহ কোন দু:সংবাদ শুনেও এমন হতে পারে।

যাই হোক সুসংবাদ হল যে BHS নকল হার্ট এ্যটাকের মাত্র এবং এটা থেকে ১০০% ভাগ সুস্থ হওয়া সম্ভব ।

পরিশেষে এটাই বলব যে Broken Heart Syndrome এর ভয়ে ভালবাসা থেকে দূরে থাকা হবে চূড়ান্ত রকমের বোকামি কারণ –

“Life is the flower of which love is the honey. ”
–Jean Baptiste Alphonse Karr

পুনশ্চ: পুরুষদের তুলনায় নারীরা Broken Heart Syndrome -এ বেশি ভোগে ( নারীরা একটু বেশিই ইমোশোনাল কিনা!  No offence! )।

comments

10 কমেন্টস

    • সরি , ভাইয়া । এই নিন, বাংলায় মতামত দিলাম । আসলে কোন ওয়েবসাইটে এটা আমার প্রথম লেখা । একদমই প্রথম , তার উপর আবার বাংলায় । আমার অবস্হা যাকে বলে একেবারে ” মাথার ঘায়ে কুকুর পাগল অবস্হা ” । আমার লেখাটি পড়ার জন্য ও মতামত দেওয়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ ।

    • সরি , ভাইয়া । এই নিন, বাংলায় মতামত দিলাম । আসলে কোন ওয়েবসাইটে এটা আমার প্রথম লেখা । একদমই প্রথম , তার উপর আবার বাংলায় । আমার অবস্হা যাকে বলে একেবারে ” মাথার ঘায়ে কুকুর পাগল অবস্হা ” । আমার লেখাটি পড়ার জন্য ও মতামত দেওয়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ ।

      • খুবই সত্য ট্রিনিটি ভাই। বাংলায় টাইপিং নিয়ে আমিও অহরহ সমস্যায় পরি (..যদিও Phonetic ব্যবহার করি)। যাইহোক, লেখাটা পড়ে ভাল লাগল। আশা করি ভবিষ্যতে আবার আপনার লেখা পড়তে পারব।

        • আমার লেখাটি পড়ার জন্য ও মতামত দেওয়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ । আশা করি ভবিষ্যতে আপনাদের আরও মজার মজার লেখা উপহার দিতে পারব । আর আমার নাম ত্রিনিতি , ট্রিনিটি নয় । আগে ভুলে লেখা হয়েছিল ট্রিনিটি (বানান ভুল ছিল) , আসলে হবে ত্রিনিতি । এজন্য সকলের কাছে ক্ষমা চাচ্ছি ।

    • আমার লেখাটি পড়ার জন্য ও মতামত দেওয়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.