১৮৯৬ সালে স্যার জগদীশ চন্দ্র বসু কলকাতা প্রেসিডেন্সী কলেজ থেকে কলকাতা বিঞ্জানাগারের তিন কিরোমিটার দূরত্বে সিগনাল প্রেরণ করতে সমর্থ হন। সেই থেকে তারহীন জগতে প্রবেশ করে এ বিশ্ব। সব বৈদ্যুতিক পন্যকে তারের ঝামেলামুক্ত করার উদ্দেশ্যে কাজ চলছে। রেডিও, টিভি, মোবাইল প্রযুক্তি, ওয়ারলেস নেটওয়ার্কসহ সব তথ্যকে আদান প্রদানের জন্য তারহীন মাধ্যমের ব্যাবস্থা করা গেলেও তারের সংযোগ ছাড়া বিদ্যুৎ সরবরাহ করাটা অসম্ভব বলেই জানা ছিল।

ওয়্যারলেস পাওয়ার ব্যাবস্থাপনা
এখানে দেখুন ২ মিটার দুরত্ব থেকে বিদ্যুৎ প্রবাহের ডেমো

WiTrycity ভবিষ্যতের জন্য বিদ্যুৎ সরবরাহের কয়েকটি সফল প্রোজেক্ট সম্পাদন করেছে। তারহীন বিদ্যৎ সরবরাহ করা সম্ভব হরে মোবাইল ও ল্যাপটপ চার্জ দেওয়ার জন্য প্লাগ লাগানোর ঝামেলা থাকবে না। আর এই সুবিধাটির জন্য ম্যাগনেটিক ফিল্ড ব্যবহার করা হয়েছে। একটি নির্দিষ্ট দুরত্বে কয়েলে প্যাচানো সলিনয়েডের চার পাসে একটা ম্যাগনেটিক ফিল্ড তৈরী হয়- যা আবার বিদ্যৎ শক্তিতে রুপান্তরিত করা সম্ভব। বেপারটা মূলতঃ

বিদ্যুৎ শক্তি > তরিত্ব বিদ্যুৎ > বিদ্যুত শক্তি তে রুপান্তরের মাধ্যমে প্রক্রিয়াটি চলে।

বিদ্যুৎ প্রবাহের বেপারটিতে বিদ্যুৎ শক্তির অপচয়ের বেপারটি সবচেয়ে বড় সমস্যা। যত বেশি দুরত্বে বিদ্যুৎ পাঠাতে হয় তত বেশি বিদ্যুৎ অপচয় হয়।
Eric Giler এর ওয়ারলেস বিদুৎ সম্পর্কিত ভিডিওটি দেখুন। ভেডিওটিতে একটি এলসিডিটিভি ও একটি এপল আইফোন ওয়্যারলেস প্রযুক্তিতে কিভাবে পাওয়ার দেওয়া হলো তা দেখানো হয়েছে।

আমার ধারনা ওয়্যাররেস বিদ্যুৎ প্রবাহের পদ্ধতিটির চেয়ে সৌর বিদ্যৎ বেশি জনপ্রিয়তা অর্জন করবে। কারন এটি একইসাথে ওয়্যারলেস ও শক্তির উৎস।

comments

8 কমেন্টস

    • ইমতিয়াজ ভাই এজন্যইতো মাহবুব ভাই তারহীন বিদ্যুতের জন্য চিন্তা করছেন। যা হোক সৌর বিদ্যুৎ কে মানুষের নাগালের মধ্যে আনাটা খুব বেশি জরুরী। প্রয়োজনে ছোট বড় বিভিন্ন আকৃতির সোলার প্যানেল তৈরি করে বাজরজাত শুরু করতে হবে। একটা 600VA UPS এর ব্যটারীকে যদি সোলার সেল দ্বারা রিচার্জের ব্যবস্থা করা যায় তাহলে একটা 9W এর এনার্জি সেভিং লাইটকে প্রায় ১০ ঘন্টা জ্বালানো সম্ভব। যা সহজেই গ্রামের একটি ঘরকে আলোকিত করতে পারে, যেখানে এখনো বিদ্যুতের তার পৌছায়নি।

  1. আমি এক মত, কারন ১০ ওয়াট এর জন্ন দাম ১০০০০০ টাকা

  2. টিউটো ভাই, আপনার এই লেখাতে যে ছবি দুটি ব্যবহার করছেন, তা আমার পি সি থেকে দেখা জাছহে না। আপনার লেখাটা খুব ভাল, ধন্যবাদ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.