প্রথমবারে একজন উদ্যোক্তা, একজন প্যারাস্যুট প্রশিক্ষক ও একজন বৈমানিক প্রকৌশলী এ অভিযানে যাবেন। চীনের স্পেস ভিশন নামের ওই উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠানটি বাণিজ্যিকভাবে মানুষকে বেলুনে চড়িয়ে মানুষকে মহাকাশ ভ্রমণের অভিজ্ঞতা দেওয়ার পরিকল্পনা নিয়ে এগোচ্ছে। এতে স্ট্রাটোস্ফিয়ার পর্যন্ত যাওয়া যাবে। স্ট্র্যাটোস্ফিয়ার অঞ্চল ভূপৃষ্ঠ থেকে ১২ কিলোমিটার (সাড়ে সাত মাইল; ৩৯,০০০ ফুট) ওপর থেকে শুরু হয়ে পর্যন্ত ৫০ থেকে ৫৫ কিলোমিটার (৩১-৩৪ মাইল; ১৬০,০০০- ১৮০,০০০ ফুট) পর্যন্ত বিস্তৃত। এই স্তরের নিচে ট্রপোস্ফিয়ার এবং ওপরে মেজোস্ফিয়ার স্তর রয়েছে। স্ট্র্যাটোস্ফিয়ারে শীর্ষে বায়ুমণ্ডলে চাপ সমুদ্রপৃষ্ঠের এক হাজার ভাগের এক ভাগ। ওজোন স্তর দ্বারা অতিবেগুনি রশ্মির বিকিরণ শোষণ বৃদ্ধির কারণে উচ্চতার সঙ্গে সঙ্গে এই স্তরের তাপমাত্রাও বাড়ে। উচ্চ প্রযুক্তিসম্পন্ন এই বেলুনে করে মহাকাশে গিয়ে আবার বিশেষ প্যারাস্যুটে করে পৃথিবীতে ফিরে আসতে ৭৭ হাজার মার্কিন ডলার খরচ হবে।
বেইজিংভিত্তিক ওই প্রতিষ্ঠানটি এ লক্ষ্যে বিশেষ প্যারাস্যুট স্যুইট তৈরি করেছে। এতে আছে রাডার, ভূমি থেকে যোগাযোগব্যবস্থা ও ছবি স্থানান্তরের সুবিধা। চায়না ডেইলির এক খবরে বলা হয়েছে, আগামী কয়েক মাসে উপকরণ পরীক্ষা ও স্বেচ্ছাসেবকদের প্রশিক্ষণ দেবে স্পেস ভিশন।

 

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.