বিজ্ঞান এক আশ্চর্য উপহার দিল ‘স্মার্ট কনডম"

অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি। ন্যানো চিপ টেকনোলজির মাধ্যমে এই কমডম শুধু জন্মনিয়ন্ত্রণেই কার্যকর হবে তা নয়, এটি ব্যবহারকারীকে বুঝিয়ে দেবে তার শারীরিক ক্ষমতা।একই সঙ্গে আগাম সতর্ক করবে বিভিন্ন যৌনরোগের সম্ভাবনা সম্পর্কে।

এক ব্রিটিশ কোম্পানি বিশ্বের প্রথম স্মার্ট কমডমটি তৈরি করেছে। নাম দিয়েছে ‘আই.কন।’ পাওয়া যাচ্ছে ‘ব্রিটিশ কনডমস’ ওয়েবসাইটে। দাম ৭৪ ডলার। ভারতীয় মুদ্রায় পাঁচ হাজার টাকার মতো। তবে এখনও বিক্রি শুরু হয়নি। কবে থেকে বিক্রি শুরু হবে, তা-ও এখনও জানানো হয়নি। ওয়েবাসাইটে বলা হয়েছে, শেষ মুহূর্তের পরীক্ষানিরীক্ষা চলেছ। ২০১৭ সালেই গ্রাহকদের হাতে পৌঁছবে।

এটির নাম স্মার্ট কমডম হলেও দেখতে একটি রিং-এর মতো।এই স্মার্ট রিং সাধারণ কনডমের উপরে লাগাতে হবে। এর মধ্যে রয়েছে মাইক্রোচিপ। ব্যবহারকারীর স্মার্টফোনেও একটি অ্যাপ ডাউনলোড করতে হবে।চিপের সঙ্গে যোগ থাকবে অ্যাপের।এর পরেই স্মার্ট কনডম ব্যবহারের সময়ে বিভিন্ন তথ্য জানা যাবে স্মার্টফোনে।

প্রস্তুতকারীদের দাবি, ‘আই.কন’ ব্যবহারকারীর সক্ষমতা সম্পর্কে তথ্য দেবে। জানা যাবে,যৌনমিলনের ফলে কতটা ক্যালরি শক্তি খরচ হচ্ছে, অঙ্গ সঞ্চালনের গতি, পরিমাণও জানাবে।বলে দেবে কতক্ষণ স্থায়ী হল মিলন। এই কনডম  ব্যবহারকারী অন্যদের সক্ষমতার তথ্যও পাওয়া যাবে। ব্যবহারকারীর সঙ্গমভঙ্গিমা সম্পর্কে তথ্য দেওয়ার পাশাপাশি এই স্মার্ট কনডম  সপ্তাহ, মাস, বছরের মোট ব্যবহারের সময়ের হিসেবও রাখবে।

ইউএসবি চার্জারের মাধ্যমে চার্জ দেওয়া যাবে এই কনডম রিং। প্রস্তুতকারীদের বক্তব্য, একবার চার্জ দিলে এটি টানা ছয় থেকে আট ঘণ্টা ব্যবহার করা যাবে। এটির মাপ অবশ্য একটাই থাকছে। তবে, প্রয়োজন মতো ছোট-বড় করার সুবিধা থাকছে।

সব থেকে বড় সুবিধা হল, এই কনডম  কোনও সঙ্গীর থেকে যৌনসংসর্গ-জনিত সংক্রমণ থেকে রক্ষা করবে। আগাম সতর্ক করবে ক্ল্যামিডিয়া, সিফিলিসের মতো মারাত্মক অসুখ সম্পর্কে।

প্রস্তুতকারী সংস্থার বক্তব্য, মিলন চলাকালীন ব্যবহারকারীর সক্ষমতা স্মার্ট ফোনের স্ক্রিনে একেবারে আইপিএল ক্রিকেট টুর্নামেন্টের স্কোর বোর্ডের মতো দেখাবে। যাবতীয় তথ্য পাওয়া যাবে। সেই তথ্য কেউ চাইলে বন্ধুদের শেয়ার করতে পারবেন। আবার চাইলে গোটা পৃথিবীতে ‘আই.কন’ ব্যবহারকারীদের সঙ্গে নিজের তুলনাও করা যাবে।

তথ্যসূত্রঃএবেলা

 

comments

কোন কমেন্ট নেই

LEAVE A REPLY

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.