বারমুডা ট্রায়াঙ্গল

বারমুডা ট্রায়াঙ্গল।এক রহস্যের নাম, এক অজানার নাম। মানুষ নানাভাবে চেষ্টা করেছে, নানাভাবে ব্যাখা দেবার চেষ্টা করেছে কিন্তু তবুও বারমুডা ট্রায়াঙ্গলের আসল রহস্য এখনো অধরাই। ‘শয়তানের ত্রিভূজ’ নামের এই আটলান্টিক মহাসাগরের স্থানকে একটি রহস্যময় স্থান বলে বিবেচনা করা হয়। এর কারণ হচ্ছে, নানা জাহাজ, উড়োজাহাজ এর কাছে এলেই তারা অদৃশ্য হয়ে যায়। বারমুডা, পুয়ের্টো রিকো ও ফোর্ট লডারডেল- এই তিন স্থান নিয়ে বারমুডা ট্রায়াঙ্গল গঠিত। এই রহস্যজনক হারিয়ে যাবার ঘটনাগুলো কি নিছক দুর্ঘটনা নাকি কোন অতিপ্রাকৃতিক রহস্য?
হাফিংটোন পোস্টের একটি সূত্রমতে জানা যায় যে, রাশিয়ার কিছু গবেষক দাবি করছেন যে তারা বারমুডা ট্রায়াঙ্গলের রহস্য উদঘাটন করে ফেলেছেন।তারা বলছেন যে এই উধাও হয়ে যাবার ঘটনাগুলো ঘটেছে ভূ অবস্থানের ওপর ভিত্তি করে। সাইবেরিয়ায় গ্রীষ্মকালে যেমন করে হঠাৎ কোন বড় পাথরের চাই ভেঙে পরে ঠিক তেমন করেই বারমুডা ট্রায়াঙ্গলের রহস্য ভেদ হচ্ছে ধীরে ধীরে।
বিশেষজ্ঞরা মনে করেন যে, বারমুডা ট্রায়াঙ্গলের সমুদ্রের নিচের অবস্থানে রয়েছে কিছু বড় বড় পকেট যা মিথেন গ্যাসে পরিপূর্ণ।এই গ্যাস যে কোন সময় ভয়ংকরভাবে বিস্ফোরিত হতে পারে।যখনই ভূগর্ভস্থ অঞ্চল থেকে এই গ্যাসকে উদগীরণ করা হয় তখন তা পানির উপরিভাগে এমন একটি পরিস্থিতির সৃষ্টি করে যে কোন জাহাজ আর তখন সেখানে চলাচল করতে পারে না। তারা ডুবে যায়। আবার এই গ্যাস যখন পানির উপরিভাগ থেকে উঠে বাতাসে মেশা শুরু করে তখন উড়োজাহাজগুলো ভারী হয়ে পড়ে এবং চালকরা সেগুলো আর চালাতে পারেন না।সমুদ্রে আছড়ে পড়ে এই উড়োজাহাজগুলো।
বিজ্ঞানী ইগোর লেলতভ বলেন, ‘সাধারণত এই প্রাকৃতিক সমস্যাকে অতিপ্রাকৃতিক কোন ঘটনা বলে ভয় পাওয়ার দরকার নেই। গবেষনায় জানা গিয়েছে যে বারমুডার ঐ অঞ্চলে বড় বড় কিছু খাঁজের অবস্থান আছে সমুদ্রের তলায়। মিথেন গ্যাস সেখানে জমতে জমতে কঠিন আকৃতি ধারণ করে। আবার সেগুলো গলতে থাকে। এই গলিত গ্যাসের কারণেই সেখানেই সাধারণত পানির উপাদানের সাথে মিশে সেখানে বিরূপ একটি সমস্যার সৃষ্টি করে।’
তবুও, আসলেই কি নিছক প্রাকৃতিক কোন ঘটনা নাকি লুকিয়ে আছে আরো বড় কোন রহস্য?

তথ্যসূত্রঃ হাফিংটন পোস্ট

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.