বাংলাদেশে ৭ সহস্রাধিক তরুণ কর্মী নিয়োগে অগমেডিক্স’র সিদ্ধান্তটি সত্যিই প্রশংসনীয়

ইউএসভিত্তিক গুগল গ্লাস স্টার্টআপ ও স্বাস্থ্যসেবা কোম্পানি ‘অগমেডিক্স’ আগামী ৫ বছরে বাংলাদেশ থেকে ৭ হাজারের বেশি জনবল নিয়োগের ঘোষণা দিয়েছে।সম্প্রতি অগমেডিক্স ভবনে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ পরিকল্পনার কথা জানিয়ে বলা হয়,  কোম্পানির নিয়োগ পরিকল্পনা নিয়ে অগমেডিক্সের কো-ফাউন্ডার পেলু ট্র্যান এবং কোম্পানির শীর্ষ বিনিয়োগকারী অরবিমেডের ভেঞ্চার পার্টনার স্টিভেন ইয়েসিয়েছ চলতি সপ্তাহে বাংলাদেশ সফর করছেন এবং স্থানীয় ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কোম্পানির নিয়োগ পরিকল্পনা নিয়ে আলোচনা করছেন।

পরবর্তী ৫ বছরে অগমেডিক্স ও এর পার্টনাররা ঢাকাসহ সমগ্র বাংলাদেশ থেকে প্রচুর জনবল নিয়োগ দেবে যারা আমেরিকার ডাক্তারদের রিমোট পার্সোনাল অ্যাসিস্ট্যান্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

অগমেডিক্সের কো-ফাউন্ডার পেলু ট্র্যান এবং অরবিমেডের ভেঞ্চার পার্টনার স্টিভেন ইয়েসিয়েছের উপস্থিতিতে ও অগমেডিক্স বাংলাদেশের ম্যানেজিং ডিরেক্টর আহমাদুল হকের সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব সুবীর কিশোর চৌধুরী, এবং অগমেডিক্সের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা।তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘বাংলাদেশ এখন ইমার্জিং টেকনোলজির জন্য গন্তব্য এবং দেশের মেধাবী যুবকদের কল্যাণে উদ্ভাবনের ক্ষেত্রে আমাদের শীর্ষ উদাহরণ হচ্ছে অগমেডিক্স।’

তিনি আরও বলেন, ‘ বাংলাদেশে ৭ সহস্রাধিক তরুণ কর্মী নিয়োগে অগমেডিক্স’র সিদ্ধান্তটি সত্যিই প্রশংসনীয়।আইসিটি মন্ত্রণালয় এলআইসিটি প্রোগ্রামের মাধ্যমে অগমেডিক্সের জন্য প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষিত জনবল সরবরাহ করতে কাজ করছে।’

অগমেডিক্সের কো-ফাউন্ডার পেলু ট্র্যান বলেন, ‘অগমেডিক্সের পরিচালনা কাজে ও আমেরিকার ডাক্তারদের সঙ্গে মেধাবী স্ক্রাইবদের সংযোগ ঘটাতে বাংলাদেশ একটি আদর্শ জায়গা।’

তিনি আরও বলেন, ‘পুরো বাংলাদেশেই ইংরেজি প্রচলিত আছে এবং দেশের ৫০ শতাংশ জনসংখ্যাই ২৫ বছরের নিচে ও খুবই প্রযুক্তি পারদর্শী। মেধা, যুব ও শিক্ষার এ সমন্বয় শক্তিশালী বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিংয়ের জন্য সীমাহীন সম্ভাবনা তৈরি করেছে।’

অরবিমেডের ভেঞ্চার পার্টনার স্টিভেন ইয়েসিয়েছ বলেন, ‘আমাদের বাংলাদেশ টিমের মান নিয়ে আমরা খুবই খুশি এবং তারা অগমেডিক্সের উন্নয়নে অনেক অবদান রাখছে।’

অগমেডিক্স বাংলাদেশের ম্যানেজিং ডিরেক্টর আহমাদুল হক বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশ থেকে দেশের গণ্ডি পেরিয়ে প্রযুক্তি নির্ভর সেবা দিয়ে যাচ্ছি এবং ব্যাপক সন্তোষজনক মতামত পাচ্ছি।’

তথ্যসূত্রঃইন্টারনেট

 

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.