ফেসবুক ব্যবহার তো করেন, কিন্তু ফেসবুক পুক (Poke) এর আসল কাজ কে কে জানেন ?
—————
আজকে খুবই পরিচিত বিষয় নিয়ে লিখছি। ফেসবুকের অনেক ফিচার আছে যা ব্যাবহার করি কিন্তু যে কারনে ইউস করার কথা সে কারনে ইউস করি না। উদাহরণ সরুপ ট্যাগ, পুক বিশেষ করে এই দুইটা জিনিষের সঠিক ব্যাবহার খুব কম মানুষেই করে।

আজকে জানব পুক এর আসল কাজটা কি!

FBPoke
————
ফেসবুকে Poke এর অর্থ এবং কাজঃ
————
যারা পুক শব্দটি প্রথম দেখেছেন ফেসবুকে তারা হয়তো কৌতহল মেটাতে অবিধানে (Dictionary ) খোঁজ করে পেয়েছেন যে পুক মানে খুঁচানো। ইংরেজিতে পুক মানে খুঁচানো ঠিক আছে কিন্তু ফেসবুকে পুক শুধু কাউকে খুঁচানোর জন্য ব্যাবহার হয় না।

অনেকেই মনে করেন পুক করা মানে হল কাউকে বিরক্ত করা। আমরা কাউকে সামনে পেলে “Hey! কি খবর?” এরকম বলি। পুক করলেও ঠিক এই কাজটিই করা হয়। ফেসবুকে পুক মানে হল কারো দৃষ্টি আকর্ষণ করা। এখন সেই দৃষ্টি আকর্ষণকে অনেকেই বিরক্তি মনে করে।

কেউ কেউ তো রেগে মেগে অস্থির, মনে হয় যেন কেউ তাকে বিদ্যুতের শক দিসে যাই হউক, এটা হচ্ছে পুক এরজেনারেল কাজ। আরেকটা সুবিধা আছে, কোন অপরিচিত লোক যে আপনার ফ্রেন্ড লিস্টে নাই, সে যদি আপনাকে পুক করে আর তার জবাবে আপনিও যদি তাকে পুক করেন তাহলে সেই ব্যাক্তি ৩ দিন পর্যন্ত আপনার প্রোফাইলের সব ছবি এবং স্ট্যাটাস দেখতে পারবে।

এখানে কাহিনিটা হল, আপনার ছবি বা স্ট্যাটাসের প্রাইভেসি যদি “Public” দেওয়া থাকে তাহলে আর পুক লাগবে না, এমনিতেই সবাই সবকিছু দেখতে পারবে। কিন্তু আপনার যে ছবি বা স্ট্যাটাসের প্রাইভেসি “Friends of Friend”/Friends দেওয়া আছে পুক (আপনি Poke Back করলে) করার পর ঐ ব্যাক্তি সেগুলোও দেখতে পারবে।

আমার মনে হয় এই শেষের কাজটা অনেকেই জানতেন না। আমিও জেনেছি কিছুদিন হল, এতদিন পুক করতাম বন্ধুদের রাগানোর জন্য। এখন আসুন আবার পুকের কাজগুলো এক নজরে দেখে নেই।

* কারো দৃষ্টি আকর্ষণ করা

* দুই বা তার বেশি বার পুক করে কাউকে বিরক্ত করা। ((এটা কইরেন না, রেগে গিয়ে মাইর দিলে আমার দোষ নাই)

* ফ্রেন্ড না হওয়া সত্তেও কাউকে আপানার প্রোফাইল রিভিউ করার অনুমতি দেওয়া।

যে তথ্যগুলো দিলাম সেগুলো যারা আগে থেকে জানতেন তাদের জন্য ভালো তবে যারা না জানতেন আমি মনে করি তাদের কাজে লাগবে।

comments
শেয়ার
Previous articleআদার দারুণ ৮ টি উপকারিতা……!!!
Next articleজারডন ব্যাবলার
আমি এই ২-৩ বছর হল কম্পিউটার শিখছি। ১ বছর সেন্টারে শিখে ছেড়ে দিয়েছিলাম। এখন বাড়িতে বসে নিজে নিজেই এক্সপেরিমেন্ট করি। এভাবেই ফটোশপ, করেল ড্র শিখি। তারপর batch script, html, আর তারপর শিখি vb 2008, এখন শিখছি করেল motion studio তে হলিউড এর মত special effect দেওয়া, আর video editing করা। আমার মনে হয় এভাবে ২ বছরে অনেক কিছু শিখে ফেলেছি। এছারা আমার electronix বানাতেও যথেষ্ট আগ্রহ আছে। আমার ব্লগ টা দেখতে পারেন - www.samrateducation.blogspot.com.

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.