ছবি খোঁজার জন্য সর্বাধিক ব্যবহৃত ও সবচেয়ে জনপ্রিয় সাইট যে গুগল ইমেজেস তা নিয়ে দ্বিমত করার কোনো সুযোগ নেই। ফটোগ্রাফ খোঁজার জন্য অনেকেই ফ্লিকআর-এর দ্বারস্থ হন, কিন্তু ক্লিপআর্ট, ইলাস্ট্রেশনসহ যে কোনো ধরনের ইমেজ ফাইলের জন্য গুগলই প্রথম ও প্রধান ভরসা। আর এ জন্যই যারা ভাইরাস ছড়িয়ে থাকেন তাদের অন্যতম লক্ষ্য হলো গুগল ইমেজেস।

সম্প্রতি জানা গেছে, ম্যালওয়ারযুক্ত সাইটে বিভিন্ন আকর্ষণীয় ছবি যোগ করে তা এসইও’র মাধ্যমে গুগল ইমেজেসে ইনডেক্স করে থাকে এসব আক্রমণকারীরা। আপনার পছন্দের সঙ্গে মিলে যাওয়া ও আকর্ষণীয় এসব ছবি দেখে ছবির সাইটে গেলেই আপনার কম্পিউটার আক্রান্ত হয়ে যাবে ঠিক তেমনটা আবার না। একটু বুদ্ধি খাটালেই এসব আক্রমণ থেকে বেঁচে যেতে পারবেন।

সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, এসব সাইটে গেলে ছবির আগে কিছু ওয়ার্নিং মেসেজ দেখায় যেগুলোতে বলা থাকে আপনার পিসি “ভয়ানকভাবে” ভাইরাসে আক্রান্ত এবং ডেটা লস ঠেকাতে এখনই ঐ সাইটের দেয়া সফটওয়্যার ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে হবে।

আপাতঃদৃষ্টিতে মেসেজগুলো সত্যি মনে হয় এবং ব্যবহারকারী যদি তাদের কথায় প্ররোচিত হয়ে কখনো এসব অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করেন তবেই তাদের কম্পিউটারের নিয়ন্ত্রণ হ্যাকারদের হাতে চলে যাবে অথবা কম্পিউটারের তথ্য পাচার হয়ে যাবে।

তবে ডাউনলোড না করলেই যে আপনি নিরাপদ এমনটাই নয়। গুগল ইমেজেস থেকে ইমেজের থাম্বনেইলে ক্লিক করলে যেই সাইটে ইমেজটি রয়েছে সেই সাইটে একটি রিকোয়েস্ট যায়। এই রিকোয়েস্টের বিপরীতে সাইটটি তথ্য প্রেরণ করে ব্যবহারকারীর কম্পিউটারে।  তখনই হ্যাকারদের সেসব সাইট একটি বিশেষ স্ক্রিপ্ট রান করে যা ব্যবহারকারীর দুর্বল সিকিউরিটির কম্পিউটারে আক্রমণ করতে পারে।

এ প্রসঙ্গে গুগলের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, গুগল সবসময়ই সার্চের কোয়ালিটি নিয়ে সতর্ক। তারা এ বিষয়টি খতিয়ে দেখছে এবং এসব ম্যালওয়ারযুক্ত সাইট মুছে দেয়ার কাজ চালাচ্ছে। উল্লেখ্য, একটি সিকিউরিটি ফার্ম জানিয়েছে এ ধরনের সাইটের সংখ্যা ৫ হাজারের কম নয়। অন্যদিকে গুগল জানিয়েছে গুগল ইমেজেস থেকে এসব সাইটে আধা মিলিয়নের মতো ট্রাফিক যায় প্রতিদিনই।

অতএব, গুগল ইমেজেসও নিরাপদ নয়। কিছু ডাউনলোড করলেই যে শুধু কম্পিউটারের নিরাপত্তা ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে এমন ধারণাও আজ ভুল। তাই কম্পিউটারে অ্যান্টিভাইরাস ও অ্যান্টিম্যালওয়ার ব্যবহার করুন। সঙ্গে রাখুন ইন্টারনেটে সিকিউরিটিও।

comments

4 কমেন্টস

  1. ভালো তথ্য দিলেন……………..আমিনুল ভাই………….ধন্যবাদ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.