গেমস খেলতে আমাদের কার না ভাল লাগে? আর তা যদি হয় নিড ফর স্পীড  সিরিজের গেম , তাহলেতো কথাই নেই। নিড ফর স্পীড  এর একটা গেমও খেলেন নাই, এটা মনে হয় বিশ্বাস করা একটু কঠিন। কেননা নিড ফর স্পীড  ২, নিড ফর স্পীড  ৫, নিড ফর স্পীড মোস্ট ওয়ান্টেড, শুধু মাত্র গেমার দের কাছেই নয়, বরংচ অনেক নন-গেমার দের কাছেও প্রিয়। আজকে আমি যে গেমটার কথা বলব, তা হচ্ছে, নিড ফর স্পীড  সিরিজের সর্বশেষ সংযোজন, নিড ফর স্পীড – হট পারস্যুট ২০১০। নিড ফর স্পীড  এর ১৬ তম গেম এটা।

nfs-timeline

নভেম্বর ২০১০ এ মুক্তি পাওয়া এ গেমটি ডেভেলপ করেছে, Criterion Games এবং পাবলিশ করেছে Electronic Arts। বের হবার পর থেকেই বেশ কিছু এওয়ার্ড জিতে নিয়েছে এই গেমটি, যার মধ্যে Best of E3 এবং Best Raceing Game 2010 উল্লেখ যোগ্য।

তবে নিড ফর স্পীড  সিরিজের অন্য গেম থেকে এই নিড ফর স্পীড – হট পারস্যুট ২০১০ গেম টি একেবারেই আলাদা। যেমন, নিড ফর স্পীড  এর প্রায় সব গেমেই, গেমার কে রেস জিতে তার গাড়ি কে আপগ্রেড করতে হয়, রেপুটেশন বাড়াতে হয়। পুলিশ এর গাড়ী ভাংতে হয়। কিন্তু নিড ফর স্পীড – হট পারস্যুট ২০১০ এ আপনাকে এর কিছুই করতে হবে না। শুধু মাত্র  ফ্যাক্টরি ডিফল্ট এ রাখা গাড়ী গুলো নিয়েই খেলতে হবে! কি এ কথা শুনেই রাগে গা জ্বলে যাচ্ছে ??? থামুন থামুন, গাড়ী গুলোর নাম তো আগে শুনে নিন, প্রায় ৬০ টির উপরে গাড়ি নিয়ে আপনি খেলতে পারবেন যার মধ্যে Lamborghini Reventon, McLaren F1, Bugatti Veyron and Pagani Zonda Cinque  সুতরাং বুঝতেই পারছেন স্পীড নিয়ে তেমন কোন সমস্যাই হবে না।

Need_For_Speed_2010

নিড ফর স্পীড  এর এই গেমটিতে প্রথম বারের মতন অনেক কিছু কে পরিচয় করিয়ে দেয়া হয়েছে। যেমন; নিড ফর স্পীড  এর অন্যান্য গেম গুলো খেলবার সময় যখন পুলিশ আপনাকে তাড়া করে, মনে হত না, আমি যাদি পুলিশ হতে পারতাম……… ইশ……। চিন্তা নাই, নিড ফর স্পীড  হট পারস্যুট ২০১০ গেমে আপনি আপনার ক্যারিয়ার পুলিশ এবং স্পীড রেসার দুভাবেই চালিয়ে যেতে পারবেন। যখন মনে হবে, রেস খেলতে খেলতে বিরক্ত ধরে গেছে তখন পুলিশ হয়ে অন্য রেসার দের তাড়া করুন। যখন মনে হবে না এবার একটু পুলিশের তাড়া খেতে হবে, তখন রেসার হয়ে খেলুন।

আবার এই প্রথম বারের মতন নিড ফর স্পীড  হট পারস্যুট ২০১০ গেমে রেসার এবং পুলিশ দুই জনের জন্যই অস্ত্রের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

রেসার দের জন্যঃ

স্পাইক স্ট্রিপ,

ই এম পি,

টারবো,

সিগন্যাল জ্যামার

পুলিশ দের জন্যঃ

স্পাইক স্ট্রিপ,

ই এম পি,

রোড ব্লক,

হেলিকপ্টার.

গেইমটি খেলবার জন্য আপনার দরকার হবে (কমপক্ষে);

  • উইন্ডোজ এক্সপি
  • কোর ২ ডুও ১.৮ গিগাহার্জ অথবা এ এম ডি এথলন এক্স২ ৬৮, ২.৪ গিগাহার্জ প্রসেসর,
  • ১.৫ গিগাবাইট র‍্যাম উইন্ডোজ এক্সপির জন্য এবং ২ গিগা র‍্যাম, ভিস্তা অথবা উইন্ডোজ সেভেনের জন্য।
  • এক্সটার্নাল (আলাদা গ্রাফিক্স কার্ড লাগাতে হবে।) গ্রাফিক্স কার্ড লাগবে ২৫৬ মেগেবাইট এর যা শেডার মডেল ৩ সমর্থন করে।

নিড ফর স্পীড সিরিজের গেইমগুলোর মধ্যে এটি একটু ভিন্ন এই গেইমটির স্কোর ৯০% এর বেশি এবং ইতোমধ্যে এটি বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। আশা করব গেমটি আপনারা খেলবেন এবং দয়া করে গেমটি খেলে কেমন লাগল আমাদের কে জানাবেন।

comments

33 কমেন্টস

  1. হুম… খেলতে হইবো মনে হইতেছে। আমাজন এ গ্রাফিক্স কার্ড এর অর্ডার দিলাম। ২-৩ দিনের মধ্যে পামু আশা করি 🙂 জটিল কিছু গেমের নাম দেন রিয়াজ ভাই। থার্ড পারসন শুটার বা এডভেঞ্চার হইলে ভাল।

  2. আমার পিসিতে মনে হয় চলবে না। যাই হোক, শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ।

  3. আমার বিল্টইন গ্রাফিক্স কার্ড, দুই জিবি র‌্যাম আর ডুয়েল কোর প্রসেসর। নিড ফর স্পিড কোনটা ভালো চলবে? আমার এমন কোনো এডিশন দরকার যেটাতে পুলিশের হয়ে রেসারদের চেসিং করা যায়। রেসার হওয়ার যে পুলিশ হতেই বেশি মজা। 😉

    • ভাই, নিড ফর স্পীড হট পারস্যুট ২০১০ ছাড়া আর কোন ভার্সনেই আপনি পুলিশ হয়ে খেলতে পারবেন না (অনলিনে মুডের কথা আলাদা …) ডুয়েল কোর প্রসেসর এ আপনার স্পীড কত ??? বর্তমানের গেম গুলো চালাবার জন্য গ্রাফিক্স কার্ড মাস্ট … 🙁

      • ভাই, আমার পিসি তে কি চলবে ? আমার পিসিতে আছে,

        2.8 GHz Core 2 Duo Processor (3MB L2 Cache)
        2 GB DDR 2 RAM
        Built-In 1GB Graphics Card (Pixel Shader 3.0) (RAM Sharing Graphics)…..

        প্লিজ, একটু জানাবেন……।

        • আমি দুঃখিত ভাই। চলবে না …… তবে একবার চেষ্টা করে দেখতে মনে হয় ক্ষতি নাই 🙂 , দেখুন না চলে কিনা ………… কিন্তু চালাবার সময়, অপশন্‌স থেকে ভিডিও সেটিংস্‌ গুলো লো করে নিতে ভুলবেন না ……

        • এইটায় চলার কথা। কারণ pixelshader সহ গ্রাফিক্স কার্ড আছে।

  4. আমি এই গেম টা খেলেছি এবং আমার কাছে এইটা এনএফএস শিফট এর পর সবচেয়ে কঠিন ভার্সন মনে হয়েছে। এই গেম এ জিততে ভাল কন্ট্রোল জানা আবশ্যক। আর নাইট্রাস অক্সাইড এবং হ্যান্ডব্রেক এর টাইমিং ভাল হতে হয়। বিশেষত টাইম ট্রায়ালে। এই গেম টা নিয়ে আমার লেখার ইচ্ছা ছিল, কিন্তু আপনি-ই লিখে ফেললেন তাই আর কি করার। এই গেমটায় অনেক বিষয় ছিল যেগুলো উল্লেখ করা হয়নাই।

    • সানি ভাই লিখে ফেলুন …… হুম আমারো মনে হচ্ছে আরো কিছু তথ্য দিলে ভালো হত। যেমন আমি আমার এখানে বিভিন্ন ধরনের রেস টাইপ এর কথা কিছুই লিখি নাই … লিখা উচিত ছিল।

  5. বছর বছর upgrade এর ঝামেলা আর নাই…২০০৯ এ xbox360 কিনেছি…মনে হয়না ২০১৪/১৫ এর আগে আর কোন খরচ করতে হবে…

      • Upgrade করার দরকার নেই দেখেই বলছি/game গুলো কিন্তু console এর জন্নই মুলত বের করা হয়। pc গেমার দিন দিন কিন্তু কমে আসছে।

        • ভাই, আমি আশায় আছি, যেদিন কন্সোলে কীবোর্ড আর মাউস ব্যবহার করা যাবে, আমি সে দিন কন্সোল কিনব (ঠিক জানি না ব্যবহার করা যায় কি না !!) … আমার কাছে এখনো কীবোর্ড মাউস দিয়ে খেলতেই বেশ লাগে … মুভমেন্ট এবং এইমিং টা পারফেক্ট হয় …

          • পিসি গেমিং ডেড হবেনা। এইটা ঠিক কনসোলে আপগ্রেডিং এর ঝামেলা নাই। কিন্তু পিসি গেমিং একেবারে থেমে যাবেনা। এই জেনারশনের কন্সোলের লাইফ টাইমের শেষে আসতে দিন তখন দেখবেন কেমন বাড়ে পিসি টাইটেল। এই জিনিষটা সবসময় হয়।ব্যাপার না। কন্সোল ডেভেলপিং এ পাইরেসি কম হয় এই কারণে ডেভেলপারদের আগ্রহ বেশী। আর রিয়েল টাইম রেন্ডারিং এর যত নতুন টেকনিক আছে সব পিসিতে পরীক্ষা করে নেয়। পিসি গেমাররাই আগে মারাত্নক গ্রাফিক্স দেখে পরে কন্সোলে তা যায়। যেমনঃ ডিএক্স ১১। কন্সোল তো এখনো ডিএক্স ৯ ব্যবহার করে। ২০১২ অথবা ২০১৩ এর আগে তাই থাকবে। আজকের যত বাঘা বাঘা ডেভেলপার আছেন তাদের অনেকেই উঠে আসছে পিসি গেম মডিং করে। ডেভেলপাররা (Epic Games, Valve, DICE, Id Tech, Crytek etc) তাদের গেমের মডিফিকেশন টুল ছেড়ে দেয় এবং সেই মড কমিনিটি থেকেই অনেক সুন্দর সুন্দর মড পরে পুর্ণাঙ্গ গেম (যেমন Counter Strike) বের হয়ে আসে…যেটা কন্সোলে জীবনেও সম্ভব না।
            বিঃদ্রঃ মনে করবেন না আমি কন্সোল গেমিং দেখতে পারিনা। আমিও কন্সোল গেমিং এর দারুণ ভক্ত। কমেন্টটা বড় হয়ে গেছে। ক্ষমা করবেন 🙂

  6. আপনি তাহলে console e COD সিরিজ এর নতুন game গুলো খেলে দেখবেন। আলাদা করে aim assist option দেয়া থাকে…aim একদম নিখুত হয়।
    mouse/keyboard এর কথা জেতা বল্লেন,পুরটাই অভ্যাস এর ব্যাপার…আমার এখন pc তেই সমস্যা হয়।

      • বিভিন্ন ধরনের মডেল আছে।তবে average 30-35000 এ পেয়ে যাবেন।Hard disk ছাড়া গুলোর দাম কম।অগুলো তে 256mb memory card দেয়া থাকে।আপ্নি ্যদি online or xboxlive এ না খেলেন তাহলে আসলে hard disk দরকার নেই।

  7. Somebody please Battlefield series নিয়ে লিখে….especially Battlefield 3…have been waiting for this forever!!!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.