আপনার অজান্তেই নানাভাবে আপনার ব্যক্তিগত জীবনে আড়ি পাতা হচ্ছে। আপনি কোথায় যাচ্ছেন, কী খাচ্ছেন, কী পরছেন এ সব কিছুই আপনার মাধ্যমেই আজকে বিভিন্ন সংস্থার ডেটা ব্যাঙ্কে স্টোর করা হচ্ছে। আর তার বিনিময়ে তারা রোজগার করছে মোটা টাকা। এ তো গেল বিপণনের কথা। এ ছাড়াও নানা অসত্‍ উদ্দেশ্য নিয়ে বহু মানুষ আপনার ব্যক্তিগত মুহূর্ত ‘চুরি’ করে ফেলে।

আপনি দেখতে না পেলেও আপনার চারপাশে এক অদৃশ্য জালে অসংখ্য মানুষ আপনার ব্যক্তিগত তথ্য জানতে সব সময় চেষ্টা করে যাচ্ছেন। কখনও হ্যাক করে, কখনও কম্পিউটারে মেলওয়্যার জাতীয় ভাইরাস ঢুকিয়ে আপনার কম্পিউটারের ফায়ারওয়াল ভাঙার চেষ্টা চলছে প্রতিনিয়ত।

এর থেকে পরিত্রানের উপায় কি হতে পারে তাহলে! যেটা মার্ক জাকারবার্গ এবং এফবিআইয়ের প্রধান জেমস কমি করেন সেটাই করতে পারেন, কম্পিউটারে বসার সময় একটি টেপ দিয়ে ওয়েবক্যামের লেন্স ঢেকে ফেলুন। তাহলে অনেক সমস্যার সমাধান করতে পারবেন।

জেমস কমি একটি কনফারেন্সে বক্তব্য রাখার সময় বলেছেন, ‘হ্যাঁ, আমি কম্পিউটার ব্যবহার করার সময় ওয়েবক্যামটি টেপ দিয়ে ঢেকে রাখি। তার জন্য অনেকে আমায় নিয়ে মজা করেন। তবে কিছু যায় আসে না। আপনারা রাতে দরজার তালা লাগান কেন? সুরক্ষার জন্য তাই তো! আমিও তাই। আমার হাতে প্রাথমিকভাবে যে ব্যবস্থা রয়েছে আমি সেটা ব্যবহারের চেষ্টা করি। আপনারা হয়তো জানেন না, আপনার অজান্তেই কোনও হ্যাকার চাইলে আপনার ওয়েবক্যাম থেকে আপনার অনেক গোপনীয় তথ্য দেখে ফেলতে পারে LIVE. আথচ আপনি কিচ্ছু টের পাবেন না। আপনার পাসওয়ার্ড, আপনার ব্যাঙ্কের তথ্য সব কিছু। তাই ও সব এড়ানোর জন্য ওয়েবক্যামটি ঢেকে রাখি।’

তিনি আরও জানিয়েছেন, এখন শুধুমাত্র কম্পিউটার নয়, ‘এমন অনেক যন্ত্র রয়েছে যার সাহায্যে নজরদারি খুব সহজেই চালানো যায়। উদাহরণ স্বরূপ তিনি উল্লেখ করেন, বহু দিন আগে NSA অপ্টিক নার্ভ অপারেশন নামে একটি পরীক্ষা চালিয়েছিল। তাতে ৫ মিনিট যে কোনও ইয়াহু ব্যবহারকারীর ইমেজ ক্যাপচার করা হত। ৬ মাস সময়ের মধ্যে ১৮ লক্ষ ব্যবহারকারীর নানা ব্যক্তিগত মুহূর্ত NSA-র হাতে চলে আসে। তাই দুর্ঘটনা ঘটার আগে সাবধান হওয়া অনেক ভালো’।

 

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.