ভাইবার

শুরুটা হয়েছিল ২০১০ সালের ডিসেম্বরে, ২ তারিখে। ইজরায়েলি একটি কোম্পানি, ভাইবার মিডিয়া, প্রথমে ভয়েস ওভার ইন্টারনেট প্রটোকল এর মাধ্যমে এই মেসেজিং সিস্টেমের সাথে পৃথিবীবাসীর পরিচয় ঘটায়। কিন্তু কয়েক বছর পরই একটি জাপানিজ কোম্পানি “রাকুটেন” এটি কিনে নেয়।

ভাইবারঃ যোগাযোগের অনন্য মাধ্যম
                                  ভাইবারঃ যোগাযোগের অনন্য মাধ্যম 

এই মেসেজিং অ্যাপটি হচ্ছে পৃথিবীর সবচাইতে বেশি ডাউনলোডেড হওয়া অ্যাপগুলোর মাঝে অন্যতম। এটি তার নানারকম আপডেট হবার মাধ্যমে গ্রাহকদের নতুন নতুন ফিচার ও সুবিধা প্রদান করে এসেছে। গত ডিসেম্বরের ২২ তারিখে ভাইবার সর্বশেষ আপডেটেড করা হয় এবং আপডেটেড ফাইলের সাইজ ১২.৯২ মেগাবাইট। নতুন ফিচারে ব্যবহারকারী ৩০ সেকেন্ডের একটি ভিডিও তৈরি করতে পারবেন। এছাড়াও অনলাইন কন্টেন্ট আপনি চ্যাটে পাঠাতে পারবেন। চ্যাট গ্রুপে এখন ২৫০ জন সদস্য যোগ করা যাবে।

ভাইবার ব্যবহারকারীরা নতুন ফিচার ব্যবহার করলে পুরনো ফিচার যে আর ব্যবহার করতে পারবেন না এমনটি কিন্তু নয়। তারা পুরনো নানা ফিচারও ব্যবহার করতে পারবেন। এছাড়াও হিডেন চ্যাট অপশনে আপনি নিজের চ্যাট চাইলে লুকাতে পারবেন। এছাড়াও এনক্রিপশনের মাধ্যমে আপনি আপনার বন্ধুর সাথে আলাপচারিতা সুরক্ষিত রাখতে পারবেন।

এন্ড্রয়েড, স্মার্টফোন কিংবা ট্যাবলেটে ভাইবার ইন্সটল করা খুব সহজ। প্লে স্টোর থেকে সহজেই এটি ডাউনলোড করতে পারবেন আপনি। তাহলে শুরু করে দিন বন্ধুদের সাথে রাজ্যের আলাপন ও প্রয়োজনীয় আলাপ।
সূত্রঃ neurogadget.net

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.