কেমন হবে যদি আপনার স্মার্টফোনে 1TB গতিতে ডাউনলোড করতে পারে? কি বিশ্বাস হচ্ছে না, না?কথাটা শুনতে কাল্পনিক মনে হলেও পুরোপুরি সত্যি। তার কারন কিছুদিন আগে “ইউনিভার্সিটি অফ সুরেই’র” কয়েকজন গবেষক মিলে আবিষ্কার করেছে দুর্দান্ত গতির 5G ইন্টারনেট।

গবেষক দলের প্রধান “প্রফেসর রহিম তাফাজলি” জানিয়েছেন যে, গবেষণাগারে পরিক্ষা চলাকালীন তাঁরা এই গতি স্পর্শ করতে পেরেছেন। অর্থাৎ ল্যাব’এ পরিক্ষা চলাকালীন সময়ে তাঁরা 1Tbps স্পীডে ডাটা ট্র্যান্সফার করতে পেরেছে।

How-Fast-Is-5G-A-Speed-Comparison-Infographic

প্রোফেসর জানান তারাই নাকি সর্বপ্রথম দল যারা এই দুর্দান্ত গতি ছুঁতে সক্ষম হয়েছে। এবং আজ অবধি যত গতির পরিক্ষা চালানো হয়েছে তার মদ্ধে তাদেরটি সবথেকে সফল।

প্রোফেসর আরও জানান, গবেষণা চলাকালীন সময় তাঁরা ওয়্যার ট্রান্সফারের মাধ্যমে এই গতি ছুঁতে সক্ষম হয়েছে। এবং সেটি ছিল অপটিক ফাইবার ক্যাবল। এখন গবেষণা চলছে কিভাবে সেটি ওয়াইফাই কানেকশনের মাধ্যমে নেয়া যায়। তবে 5G  সেবাতে 50GB/s সংযোগ খুব সহজেই দেয়া সম্ভব কিন্তু 1Tbps একটু কঠিন হয়ে যায় কারন তখন সংযোগটি উন্মুক্ত অবস্থায় থাকে।

তিনি আরও বলেন, আগামী ২০১৭-১৮ সালের মদ্ধে তাদের ইউনিভার্সিটিতে 5G সেবা দেয়া শুরু করবে।

প্রফেসর রহিম তাফাজলিলের কাছে প্রশ্ন রাখা হয়েছিলো, কবে নাগাত 5G সেবা অন্যান্য দেশ বা আপনার দেশের জন্য চালু করা হবে?

উত্তরে তিনি বলেন, তাদের টিম চেষ্টা করে যাচ্ছেন, কিভাবে অতি দ্রুত পুরো পৃথিবী জুড়ে হাইস্পীড 5G সেবা চালু করা যায়। তবে আশা করা যাচ্ছে ২০২০ সাল নাগাত সবার জন্য 5G উন্মুক্ত করা হবে। এখানে উল্লেখ্য এ শুধু তারাই একমাত্র দল না যারা 5G নিয়ে কাজ করছে, তাদের মতো অন্যান্য অনেক দেশ বা প্রতিষ্ঠান চেষ্টা করছে কতো দ্রুত 5G সেবা পুরো পৃথিবী জুড়ে দেয়া যায়।

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.