আবারো হাজির হলাম বিপ্রতে। সম্প্রতি ঘটে যাওয়া একটা আলোচিত বিষয় সবার জন্য শেয়ার করার জন্য মাউসের কিবোর্ডে হাত দেয়া। 🙂 কথা না বাড়িয়ে মূল কথায় আসি। গ্রাহক, অংশীদার ও ডেভেলপারদের নিয়ে লন্ডনে গত ২৬ ও ২৭ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হলো নকিয়ার বার্ষিক সম্মেলন ‘নকিয়া ওয়ার্ল্ড ২০১১’। উন্মোচিত হয়েছে নতুন একঝাঁক হ্যান্ডসেট। এসেছে নকিয়ার প্রথম উইন্ডোজ ফোনসহ নানা ঘোষনা।

অন্যান্য বছরের মতো এবারের নকিয়া ওয়ার্ল্ড নানা আয়োজনের মধ্যে অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রথম দিনে প্রতিষ্ঠানটির নকিয়ার প্রেসিডেন্ট ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা স্টিফেন ইলোপ আনুষ্ঠিকতার ঘোষনা দেন। এরপর গ্রাহক, অংশীদার ও ডেভেলপাররা প্রতিষ্ঠানটিতে কর্মরত থাকা অবস্থায় প্রাপ্ত অভিজ্ঞতার কথা শোনান। এরপরই আসে আয়োজনের মূল আকর্ষন ‘বিভিন্ন পণ্য ও সেবার উন্মোচন’। বরাবরের মতোই এবারো নিত্যনতুন ফোন, সার্ভিস ও অ্যাকসেসরিজ প্রদর্শনের কৌশল অব্যাহত ছিল। এরফলে নকিয়ার পোর্টফলিওতে বিশেষ করে নকিয়া লুমিয়া ৮০০ ও নকিয়া লুমিয়া ৭১০ যেনো নতুন এক সকালের সূচনা করেছে। এই প্রথমবারের মতো নকিয়ার স্মার্টফোনের সম্ভারে উইন্ডোজ ফোনের সুবিধা যোগ হয়েছে। যেগুলোতে একাধারে স্টাইলিশ, স্মার্ট মোবাইল ফোন, সুপেরিয়র নকিয়া ম্যাপস এবং মনস্টারসহ অন্যান্যদের সঙ্গে অংশীদারিভিত্তিক কো-ব্র্যান্ডেড অ্যাকসেসরিজ ইত্যাদি রয়েছে।

নকিয়া লুমিয়া ৮০০ সেটটির চমৎকার ডিজাইন যেমন মাথা ঘুরিয়ে দেওয়ার মতো তেমনি এটি ব্যবহারকারীকে সর্বোত্তম সামাজিকতা ও ইন্টারনেটের অভিজ্ঞতা দিতে সক্ষম। এতে ইমেজ ক্যাপাবিলিটি বা ছবি তোলা এবং সিগনেচারের নতুন অভিজ্ঞতাসহ নকিয়ার সুপরিচিত অন্যান্য সুবিধাবলীও রয়েছে। আর নকিয়া লুমিয়া ৭১০ হলো অত্যন্ত কালারফুল, অ্যাফোর্ডেবল ও নো-ননসেন্স স্মার্টফোন। যেটি বিশ্বব্যাপী অধিকসংখ্যক মানুষকে লুমিয়া এক্সপেরিয়েন্স দেবে।

নকিয়া আরো ৪টি নতুন ফোন নিয়ে এসেছে। স্টাইলিশ বা নান্দনিক ডিজাইনের এসব ফোন গ্রাহক বা ব্যবহারকারীদের সমৃদ্ধ সামাজিক অভিজ্ঞতা ও লোকেশন-অ্যাওয়্যার টেকনোলজি স্থান চিহ্নিতকরণ প্রযুক্তির সুবিধা দেবে। নকিয়া আশা ৩০০, নকিয়া আশা ৩০৩, নকিয়া আশা ২০০ এবং নকিয়া আশা ২০১ এই চারটি ফোন তৈরি করা হয়েছে নকিয়ার স্মার্টফোন ও ফিচার ফোনের মাঝামাঝি আদলে। যেগুলোতে ব্যবহারকারীরা কোয়ার্টি ও টাচ্ স্ক্রিনের অভিজ্ঞতাসহ সহজে ও দ্রুত ইন্টারনেট ব্রাউজিং, সমন্বিত সামাজিক নেটওয়ার্কিং, মেসেসিং বা বার্তা আদান-প্রদান এবং নকিয়া স্টোরের বিশ্বমানের অ্যাপ্লিকেশন্সসমূহ ব্যবহারে সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন।

স্টিফেন ইলোপ বলেন, ‘আমরা আট মাস আগে আমাদের নতুন কৌশলের কথা বলেছি। ওই কৌশলের আলোকে আমরা যে অগ্রগতি অর্জন করেছি সেটিই আজ উপস্থাপন করছি। আমরা স্মার্টফোন প্রবর্তন ও এর উন্নততর সংস্করণ নিয়ে আসাসহ নিত্যনতুন উদ্ভাবনের মাধ্যমে আমাদের সামগ্রিক পোর্টফলিও বা পণ্য-সেবার সম্ভারকে সমৃদ্ধ করে চলেছি। নকিয়া তার প্রতিশ্র“তি অনুযায়ীই কাজ করে যাচ্ছে এবং সাফল্যের ধারাবাহিকতায় ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে চলেছে। দ্বিতীয় দিনে অনুষ্ঠানের সূচনা করেন নকিয়ার সেলস বিভাগের এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট কলিন গাইল্স। তিনি জানান, আগামীতে গ্রাহকদের আরো বেশি নিত্যনতুন প্রযুক্তির সুবিধা দিতে নকিয়া কাজ করে যাচ্ছে। পরে পুরষ্কার বিতরনীর মধ্য দিয়ে শেষ হয় আনুষ্ঠানিকতা।

আসুন দেখে নিই নতুন হ্যান্ডসেটের ফিচারগুলো:

নকিয়া লুমিয়া ৮০০

ডিজাইন একেবারে মাথা ঘুরিয়ে দেওয়ার মতো চমৎকারিত্বে তৈরি করা হয়েছে নকিয়া লুমিয়া ৮০০ মোবাইল সেটটি। বিভিন্ন কালার বা রংয়ে (চায়ান বা নীল, ম্যাজেন্টা বা টকটকে লাল ও কালো) এটির ডিজাইন করা হয়েছে। এই সেটের মাধ্যমে সর্বোত্তম সামাজিক ও ইন্টারনেট সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন ব্যবহারকারীরা। এতে রয়েছে ওয়ান টাচ্ সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং, কণ্ট্যাক্টসমূহের সহজ গ্র“পিং, সমন্বিত যোগাযোগের উপায়, ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার ৯ প্রভৃতি সুবিধা। এর অন্যান্য বৈশিষ্ট্যগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো: ৩.৭ ইঞ্চির অ্যামোল্ড ক্লিয়ারব্যাক কার্ভড ডিসপ্লে, হার্ডওয়্যার অ্যাকসিলারেশন ও গ্রাফিক্স প্রসেসর। নকিয়া লুমিয়া ৮০০ মোবাইল ডিভাইসটিতে আছে প্রথম সারির কার্ল জেসিস অপটিকসভিত্তিক ইনস্ট্যান্ট-শেয়ার ক্যামেরা এক্সপেরিয়েন্স নেওয়ার সুযোগ, এইচডি ভিডিও প্লেব্যাক, ১৬ গিগাবাইট ইন্টারনাল ইউজার মেমোরি এবং গান ও ছবির জন্য ২৫ গিগাবাইট ফ্রি স্কাইড্রাইভ স্টোরেজ। ট্যাক্স ও ভর্তুকি ছাড়া নকিয়া লুমিয়া ৮০০ মোবাইল ফোন সেটটির খুচরা দাম প্রাক্কলন করা হয়েছে প্রায় ৪২০ ইউরো।

নকিয়া লুমিয়া ৭১০

সুনির্দিষ্ট উদ্দেশ্যকে সামনে রেখেই নকিয়া লুমিয়া ৭১০ মোবাইল ফোন সেটটি তৈরি করা হয়েছে। এটি হলো একটি অত্যন্ত কালারফুল, অ্যাফোর্ডেবল ও নো-ননসেন্স স্মার্টফোন। এতে আছে এক্সচেঞ্জেবল ব্যাক কাভার এবং এটির মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী গ্রাহকেরা হাজার হাজার অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে লুমিয়া এক্সপেরিয়েন্স নিতে পারবেন। ব্যবহারকারী বা গ্রাহকদের ইনস্ট্যান্ট সোশ্যাল অ্যান্ড ইমেজ শেয়ারিং এবং আইই৯-এর সাহায্যে ইন্টারনেট ব্রাউজিংয়ের সর্বোত্তম অভিজ্ঞতা দেওয়ার চিন্তা-ভাবনা থেকেই নকিয়া লুমিয়া ৭১০-এর ডিজাইন করা হয়েছে। কালো, সাদা, সাদাকালো, চায়ান, গোলাপী বা লাল বা বেগুনি এবং হলুদ প্রভৃতি রংয়ে তৈরি করা হয়েছে এই সেট। নকিয়া লুমিয়া ৮০০ মোবাইল ডিভাইসটির মতো নকিয়া লুমিয়া ৭১০ মোবাইল ফোন সেটেও হার্ডওয়্যার অ্যাকসিলারেশন ও গ্রাফিক্স প্রসেসরসহ ১.৪ গিগা হার্টজ প্রসেসর রয়েছে। মোটামুটি সহনীয় দামে উচ্চ কার্যকারিতাসম্পন্ন এই পাওয়া যাবে। ট্যাক্স ও ভর্তুকি ছাড়া নকিয়া লুমিয়া ৭১০ মোবাইল ফোন সেটটির খুচরা দাম প্রাক্কলন করা হয়েছে প্রায় ২৭০ ইউরো।

উল্লেখিত দুটি স্মার্টফোনেই সিগনেচার নকিয়া এক্সপেরিয়েন্সসহ উইন্ডোজ ফোন, নকিয়া ড্রাইভ, বিনামূল্যে পরিপূর্ণ পারসনাল নেভিগেশন ডিভাইস (পিএনডি), টার্ন-বাই-টার্ন নেভিগেশন, নিবেদিত ইন-কার-ইন্টারফেইস প্রভৃতি রয়েছে। সেই সঙ্গে নকিয়া মিউজিকের জন্য আছে বিনামূল্যে মিক্সরেডিও (গরীজধফরড়) শুনার ব্যবস্থা। বিশ্বব্যাপী এ ধরনের শত শত চ্যানেল রয়েছে। যেগুলো সাধারণত স্থানীয় মিউজিকই পরিবেশন করে থাকে। চলতি বছরের শেষ দিকে নকিয়ার লুমিয়া ব্যবহারকারী গ্রাহকেরাও বৈশ্বিক ক্যাটালগভুক্ত লাখ লাখ ট্র্যাক বা গান থেকে পারসনালাইজড চ্যানেল সৃষ্টি করতে পারবেন। সেই সঙ্গে তাঁরা পরিপূর্ণ বিনোদনের জন্য সরাসরি স্থানীয় চ্যানেলগুলো উপভোগ করতে এবং বিষয়টি সামাজিক নেটওয়ার্কের মাধ্যমে অন্যদেরও জানাতে পারবেন। এছাড়া চলতি বছরের শেষ দিকে নকিয়ার মিউজিক সফটওয়্যার আপডেট করা হলে তখন গ্রাহকেরা কনসার্টের টিকিট কেনারও সুযোগ পাবেন।

এছাড়া নকিয়া আগামী ২০১২ সালের গোড়ার দিকে আমেরিকায় এবং একই বছরের প্রথমার্ধে চীনের মূল ভূখন্ডের জন্য নতুন কিছু পণ্যের পোর্টফলিও প্রবর্তনের পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে। এরমধ্যে বিদ্যমান পণ্যসমূহের বাইরে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে ডব্লিউসিডিএমএ ও এইচএসপিএ কাভারেজ। এছাড়াও নকিয়া নির্দিষ্ট কিছু স্থানীয় বাজারের প্রয়োজন বা চাহিদা অনুযায়ী এলটিই ও সিডিএমএ পণ্য প্রচলনের পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে।

নকিয়া আরো যেসব ঘোষণা দিয়েছে:

১. নকিয়া ম্যাপে এখন ইয়াহু! ম্যাপসমূহও পাওয়া যাবে। যা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডা থেকে শুরু করা হয়েছে।

২. স্মার্টফোনের সাহায্যে এনএিফসিভিত্তিক টিকিটিং সলিউশন্সের জন্য নিউ ইয়র্ক মেট্রোপলিটন ট্রানজিট অথরিটির সঙ্গে একটি চুক্তি সম্পাদন করা হয়েছে। সে অনুযায়ী চলতি ২০১১ সাল শেষ হওয়ার আগেই স্মার্টফোনের সাহায্যে নিউ ইর্য়র্কের আঞ্চলিক কমিউটার ট্রেনের টিকিট কাটার সুযোগ পাবেন জনগণ।

নকিয়া সম্পর্কে

বিশ্বের টেলিযোগাযোগ খাতে এখন নকিয়া হচ্ছে একটি অন্যতম শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠান। যেটির পণ্য অর্থাৎ মোবাইল ফোন দুনিয়াজুড়ে মানুষের দৈনন্দিন জীবনের অপরিহার্য অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে। বর্তমানে প্রতিদিন ১ দশমিক ৩ বিলিয়ন বা ১৩০ কোটি মানুষ নকিয়া ফোন ব্যবহার করে পরস্পরের সঙ্গে সাধারণ কথাবার্তা বলা থেকে শুরু করে নিজেদের মধ্যে বিভিন্ন অভিজ্ঞতা ও তথ্য বিনিময় করেন। প্রযুক্তিগত উৎকর্ষতা ও নিত্যনতুন ডিজাইন উদ্ভাবনের বৈশিষ্ট্যই নকিয়াকে বিশ্বের একটি অন্যতম স্বীকৃত ব্র্যান্ড হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করে তুলেছে।

comments

5 কমেন্টস

  1. I simply want to tell you that I’m new to blogging and site-building and certainly loved your website. Likely I’m likely to bookmark your site . You absolutely come with impressive stories. Kudos for sharing your blog.

  2. *I really got into this article. I found it to be interesting and loaded with unique points of interest. I like to read material that makes me think. Thank you for writing this great content.

  3. I do believe all the concepts you have introduced for your post. They’re very convincing and will certainly work. Still, the posts are very brief for newbies. May just you please prolong them a bit from next time? Thank you for the post.

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.