বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন্স রেগুলেটরি কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ জানিয়েছেন, দেশে বর্তমানে ইন্টারনেটের গ্রাহক সংখ্যা ৬ কোটি ৩২ লাখ।

শনিবার গুলশানের ক্যাপিটাল রিক্রিয়েশন ক্লাবে সাইবার নিরাপত্তা বিষয়ক এক সেমিনারে তিনি এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, সেপ্টেম্বর মাসের হিসাব অনুযায়ী দেশে বর্তমানে ইন্টারনেটের গ্রাহক সংখ্যা ৬ কোটি ৩২ লাখ। দেশের তথ্যপ্রযুক্তির সেবা সংক্রান্ত বিষয়গুলোর বেশিরভাগই বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে সংযুক্ত। সাইবার নিরাপত্তা নিশ্চিত করা শুধু সরকারেরই কাজ নয়, বরং নিজ নিজ অবস্থান থেকে দেশের প্রত্যেক নাগরিকের এ ব্যাপারে ভূমিকা রাখা অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

তিনি বলেন, মূলত ইন্টারনেট জগতের কোনো বর্ডার (সীমানা) নেই এবং এখানে কারো একক মালিকানাও নেই। পুরো পৃথিবী এক। সুতরাং বিশ্বব্যাপী সাইবার অপরাধের ভয়াবহতা ব্যাপক। পৃথিবীর যেকোনো স্থান থেকে আক্রমণ করা সম্ভব। তাই সাইবার অপরাধ সম্পর্কে সচেতনতা তৈরি খুব গুরুত্বপূর্ণ।

‘সাইবার নিরাপত্তা সচেতনতা মাস-২০১৬’ উপলক্ষে গুলশানের একটি ক্লাবে দিনব্যাপী এই সেমিনার হয়। ‘সাইবার নিরাপত্তা- পূর্বাভাস; প্রস্তুতি; সুরক্ষা’ শীর্ষক সেমিনারের আয়োজন করে ইনফরমেশন সিস্টেমস অডিট অ্যান্ড কন্ট্রোল অ্যাসোসিয়েশনের (আইএসএসিএ) ঢাকা শাখা। এতে সভাপতিত্ব করেন আইএসএসিএ-এর ঢাকা শাখার প্রথম সভাপতি আলী আশফাক।

সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম থাকার কথা থাকলেও তিনি উপস্থিত ছিলেন না।

সেমিনারে প্রথম পর্বের আলোচনায় অংশ নেন বিটিআরসি চেয়ারম্যান, আই-সাকা ঢাকা শাখা সভাপতি এ কে এম নজরুল হায়দার, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) আইন বিভাগের চেয়ারম্যান ড. জুলফিকার আহমেদ প্রমুখ।

সেমিনারে বক্তারা বলেন, শুধু সরকার নয়, সাইবার নিরাপত্তায় প্রত্যেক নাগরিকের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ।

বিকেলে সেমিনার শেষে আইএসএসিএর বিভিন্ন পর্যায়ের কোর্স সম্পন্নকারী ৩৫ জন সদস্যের হাতে সনদ তুলে দেওয়া হয়।

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.