সৃজনশীল তথ্য ও প্রযুক্তিবিষয়ক লেখকদের জন্য দেশে প্রথমবারের মতো ‘আর্টিকেল মনেটাইজেশন’ পদ্ধতিতে ওয়েব পোর্টাল চালু করেছে টেক টেকনিক লিমিটেড নামের প্রতিষ্ঠান। পোর্টালটির ঠিকানা: www.techtechnique.net (টেক টেকনিক ডট নেট) । আর্টিকেল মনেটাইজেশন প্রক্রিয়ায় মূলত লেখকদের প্রত্যেকটি লেখার পাঠক সংখ্যা ও লেখার জনপ্রিয়তার ভিত্তিতে স্বয়ংক্রিয়ভাবে লেখকদের লেখার সম্মানী নির্ধারিত হবে এবং যে কোন সময় লেখকরা তাদের সেই টাকা তার ব্যাংক একাউন্টে ট্রান্সফার করে নিতে পারবেন। সারা বিশ্বে ইউটিউব এরকম মোনেটাইজেশন পদ্ধতি ব্যবহার করে, তবে ইউটিউব শুধু অডিও-ভিডিও মনেটাইজ করে অন্যদিকে “টেক টেকনিক ডট নেট” শুধু লেখা বা আর্টিকেল মনেটাইজ করবে।এই পোর্টালটি মূলত তথ্যপ্রযুক্তিবিষয়ক লেখকদের জন্য। এখানে যে কেউ লেখালেখি করতে পারবেন। এই পোর্টালটির আরও বড় সুবিধা হচ্ছে এখানে একবার একটি লেখা লিখলে সেই লেখাটি যতদিন পাঠক পড়বে ততদিনই এটি থেকে আয় হতে থাকবে।

কীভাবে লিখবেন?
টেক-টেকনিক ডট নেট-এ লেখালেখির জন্য প্রথমেই আপনাকে “www.techtechnique.net”  সাইটে গিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। রেজিস্ট্রেশন করার পর ইমেইলে একটি ভেরিফিকেশন লিঙ্ক যাবে এবং এই লিঙ্কে ক্লিক করে একাউন্টটি ভেরিফাইড ও সচল করতে হবে। অত:পর আপনার একাউন্টে লগ-ইন করে আপনার প্রোফাইল অপশনে রাখা বিভিন্ন তথ্যগুলো (নাম, ঠিকানা, শিক্ষাগত যোগ্যতা, অভিজ্ঞতা, ব্যাংক একাউন্ট তথ্য, আপনার এক্সপার্ট  দিক)দিয়ে সম্পন্ন করতে হবে।

লেখার সম্মানী কত?
লেখার সম্মানী নির্ধারণ করার জন্য একটি বিশেষ পদ্ধতি অবলম্বন করা হয়েছে- তাহলো, লেখাটির জনপ্রিয়তা। লেখাটি কতজন পাঠক পড়লো, কতগুলো লাইক এবং কমেন্টস পড়লো এবং লেখার মান ইত্যাদি যাচাই করে স্বয়ংক্রিয়ভাবে সিস্টেম থেকে লেখকদের প্রাপ্য সম্মানী নির্ধারণ হবে। এবং লেখার জনপ্রিয়তার ও লেখকের লেখার পরিমাণ ইত্যাদি বিবেচনা করেও দেওয়া হবে অতিরিক্ত বোনাস।সব মিলিয়ে একটি লেখা যদি এক হাজার পাঠক পড়ে তবে সেই লেখাটি থেকে একজন লেখক এক হাজার পাঠককে পড়ানোর জন্য পাবেন নুন্যতম ২০টাকা থেকে ১০০ টাকা পর্যন্ত। এভাবে লেখার পাঠক সংখ্যা যত বাড়বে লেখকদের আয়ও তত বাড়বে। এমনকি কোন লেখায় কত টাকা অথবা সর্বমোট কত টাকা আয় হলো তা তাৎক্ষণিকভাবে প্রত্যেকেই যার যার একাউন্টে লগইন করেই দেখতে পারবেন।
তাই উক্ত লেখক যদি তার লেখাটি নিজেদের বন্ধু মহলে ছড়িয়ে দিতে পারেন তাহলেও তার পাঠক সংখ্যাও বাড়বে এবং আয়ও বাড়বে।

একবার লিখলে সারা জীবন আয়
এই আর্টিকেল মনেটাইজেশন প্রক্রিয়ায় একটি বিশেষ সুবিধা হলো- আপনার প্রতিটি লেখা যতদিন আমাদের পোর্টালে থাকবে  এবং যতবার পাঠক পড়বে ততবারই টাকা জমা হতে থাকবে।অর্থ্যাৎ আপনার অয়ের সুযোগ থাকবে সারা জীবনই।

লেখকরা টাকা কীভাবে পাবেন?
সম্মানী পাঠানোর জন্য আপাতত ব্যবহার করা হচ্ছে  B-Kash, Bank একাউন্ট (বাংলাদেশি) এবং Payza (দেশ/বিদেশ)এর মাধ্যমে।লেখকরা রেজিস্ট্রেশন করার সময় অথবা রেজিস্ট্রেশন করার পর যে কোন সময় তাদের প্রোফাইলে B-Kash,Bank কিংবা Payza এর তথ্য দিয়ে রাখতে পারবেন।প্রতি মাসের ১ তারিখে আগের মাসের চুড়ান্ত আয় যার যার প্রোফাইলে নির্ধারণ হয়ে যাবে।এখানে পুরো ব্যাপারটিই হচ্ছে একটি বিশেষ অটোমেশন সিস্টেমের মাধ্যমে।এখানে লেখালেখি কিংবা টাকা উত্তোলনের জন্য আমাদের সাথে কোন প্রকার যোগাযোগেরই প্রয়োজন নেই। সব ব্যবস্থা থাকবে লেখকদের নিজের নিয়ন্ত্রণেই। লেখকদের অ্যাকাউন্টে সর্বনিম্ন ৫০০ টাকা জমা হলে ‘রিকয়েস্ট পেমেন্ট’ অপশনে ক্লিক করে ‘ক্যাশ আউট’ করতে পারবেন তারা। বি-ক্যাশ হলে দুই দিনের মধ্যে এবং অন্য কোন মাধ্যম হলে ৭দিনের মধ্যে লেখকদের ব্যক্তিগত একাউন্টে টাকা পৌছে যাবে।

প্রোফাইল আপডেট রাখলে বাড়তি সুবিধা পাবেন লেখকরা
টেক টেকনিক প্রোফাইলিং সিস্টেম বেশ কিছু তথ্য দেওয়ার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে- এগুলো হলো- নাম, ঠিকানা, ইমেইল, মোবাইল, শিক্ষাগত যোগ্যতা, চাকুরী কিংবা অভিজ্ঞতা, আপনার এক্সপার্ট  দিক, ইত্যাদি। এই সবগুলো তথ্যের উপর ভিত্তি করে স্বয়ংক্রিয়ভাবে তৈরি হবে লেখকদের একটি বিশেষ প্রোফাইল। এবং এই প্রোফাইলের মাধ্যমে উক্ত লেখকদের কাজের সাথে সম্পৃক্ত বিভিন্ন কারিগরি কাজে ফ্রি-ল্যান্স কাজ করার সুযোগ করে দেওয়া হবে ।

শর্তাবলী

লেখালেখি করা ক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই কিছু শর্ত মেনে চলতে হবে।

১. অন্য কারও লেখা হুবুহু কপি করা যাবে না। কেউ যদি উপযুক্ত প্রমাণসহ কোন লেখার সত্ত্ব দাবী করে তাহলে তার উক্ত লেখাটি থেকে উপার্জিত আয় বাতিল করা হবে।
২. আপত্তিকর কোন লেখা পোস্ট করলে একাউন্টটির বাতিল হতে পারে
৩. রেজিস্ট্রেশন করার সময় অবশ্যই সঠিক ফোন নম্বর,  ইমেইল, ঠিকানা ও অন্যান্য তথ্য ব্যবহার করতে হবে।  কোন ভুয়া তথ্য এর প্রমাণ মিললে উপার্জিত সম্মানী কিংবা একাউন্টটি বাতিল হতে পারে।
৪. এই  পোর্টালের সকল আয় বাংলাদেশী টাকায়, এবং লেনদেনও হবে টাকায়। যদি কেউ বিদেশ থেকে টাকা পেতে চান সেক্ষেত্রে টাকা থেকে ডলারে কনভার্ট করে তা পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

যেকোন প্রয়োজনে পাঠক কিংবা লেখকরা যোগাযোগ করতে পারবেন এই ইমেইল ঠিকানায়: techtechnique.net@gmail.com

 

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.