১৯৭১ সালে প্রথম মাইক্রোপ্রসেসরের আবিষ্কারটি ছিল প্রযুক্তি জগতের অন্যতম মাইলফলক। যে সময় Intel-4004 নামে একটি 4-bit এর মাইক্রোপ্রসেসর আবিষ্কৃত হয়। যার ক্লক স্পিড ছিল মাত্র 108KHz। বর্তমানে Intel® Core™ i7 আমাদের হতে চলে এসেছে যাতে 3.46GHz ক্লকের ছয়টি কোর রয়েছে।সামগ্রিক ভাকে এ যেন এক ডিজিটাল বিবর্তন। আর আমরা এর ধারক এবং বাহক। আমাদের হতেই হয়তবা রচিত হবে সামনের দিনের এই বিবর্তনের গতিপথ। হয়তবা আমাদেরও সময় এসে গেছে এই বিবর্তনকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেবার।

…………………………………………………………………………

img1ইলেকট্রনিক্স হল প্রকৌশল বিদ্যার এমন একটি শাখা যেখানে ভ্যকিউম টিউব, গ্যাস টিউব,  সেমিকন্ডাক্টর বা অর্ধপরিবাহী পদার্থের মধ্যদিয়ে ইলেকট্রনের প্রবাহ সম্পর্কিত বিষয়াবলী আলোচিত হয়। ইলেকট্রনিক্স যুগের সূচনা ঠিক কখন হয় তা পুরোপুরি সঠিকভাবে জানা না গেলেও মোটামটিভাবে ১৯০৪ সালে ভ্যকিউম টিউব আবিষ্কারের ঘটনাটিকেই বর্তমানে ইলেকট্রনিক্সর সুচনাকাল বলে ধরে নেয়া হয়। এর পর ১৯১২ সালে ক্যাসকেডিং অ্যামপ্লিফায়ার, অসিলেটর; ১৯১৭ সালে হেটারোডাইন রেডিও রিসিভার; ১৯১৮ সালে মাল্টিভাইব্রেটর; ১৯২৭ সালে ফিডব্যাক অ্যামপ্লিফায়ার সহ বিভিন্ন যন্ত্রাংশ আবিষ্কারের মাধ্যমে পরিণত হতে থাকে ইলেকট্রনিক্স।

img2১৯৪৭ ট্রানজিস্টর আবিষ্কারের মাধ্যমে ইলেকট্রনিক্সের আধুনিক যুগের সূচনা হয়। এর আগে পর্যন্ত বিশেষ করে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পূর্ববর্তী সময় পর্যন্ত বিভিন্ন ইলেকট্রনিক্স যন্ত্রপাতি তথা রেডিও, এমপ্লিফায়ার ইত্যাদি তৈরি করা হত ভ্যকিউম টিউব দিয়ে, ফলে এ সকল যন্ত্রপাতির আকৃতি ছিল অনেক বড় এবং এগুলোকে পরিচালনা করার জন্য অনেক বেশি বিদ্যুৎ খরচ করতে হত। এ সময় ইলেকট্রনিক্সকে বলা হত বেতার প্রকৌশল।

img3১৯৪৭ সালের ২৩ শে ডিসেম্বর ড: জন বার্ডেন এবং ড: ওয়ালটন ব্রাটেইন গেবেষণাগারে প্রথম ট্রানজিস্টরের বিবর্ধন ক্রিয়া ব্যাখ্যা করেন। ১৯৪৮ সালের ৩০ জুন সংবাদ সম্মেলনে যখন ট্রানজিস্টর আবিষ্কারের কথা ঘোষণা করেন, তারপর কিছু সংখ্যক সংবাদপত্রে বিষয়টি একটি সাধারণ ঘটনা রূপেই ছাপা হয়।কিন্তু বিষয়টি মোটেই কোন সাধারণ ব্যপার ছিল না। ১৯৫৬ সালে ড: জন বার্ডেন এবং ড: ওয়ালটন ব্রাটেইন এবং ড: উইলিয়াম ব্রাডফোর্টকে এই ট্রানজিস্টর আবিষ্কার এবং সেমিকন্ডাক্টরের কার্যপ্রণালীর তত্বীয় ব্যখ্যা প্রদানের জন্য নবেল পুরস্কার প্রদান করা হয়।

img5১৯৫৯ সালে সমন্বিত বর্তনী বা (integrated circuit or IC) আবিষ্কারের মাধ্যমে ইলেকট্রনিক্স টেকনোলজি একটি সীমাহীন উচ্চতায় পৌছে যা আজকের ডিজিটাল যুগকে স্বাগতম জানিয়েছিল। পরবর্তী সময়ে ১৯৫৮ সালে JFET (Junction field effect transistor), ১৯৬০ সালে img6MOSFET (Metal Oxide Semiconductor field effect transistor), ১৯৬৪ সালে অপারেশনাল এ্যামপ্লিফায়ার, ১৯৬৭ সালে ROM, ১৯৭০ সালে RAM, ১৯৭৬ সালে সৌরকোষ, ১৯৯০ সালে LED সহ অসংখ্য ডিভাইসের আবির্ভাব সময়ের পথ-পরিক্রমায় ইলেকট্রনিক্সকে করেছে সমৃদ্ধ। আর আমরা পৌছে গেছি এমন এক জগতে যেখানে ইলেকট্রনিক্স কল্পনাকেও হার মানায়।

এছাড়া ১৯৭১ সালে প্রথম মাইক্রোপ্রসেসরের আবিষ্কারটি ছিল প্রযুক্তি জগতের অন্যতম মাইলফলক। যে সময় Intel-4004 নামে একটি 4-bit এর মাইক্রোপ্রসেসর আবিষ্কৃত হয়। যার ক্লক স্পিড ছিল মাত্র 108KHz। বর্তমানে Intel® Core™ i7 আমাদের হতে চলে এসেছে যাতে 3.46GHz ক্লকের ছয়টি কোর রয়েছে ।

img4

সামগ্রিক ভাকে এ যেন এক ডিজিটাল বিবর্তন। আর আমরা এর ধারক এবং বাহক। আমাদের হতেই হয়তবা রচিত হবে সামনের দিনের এই বিবর্তনের গতিপথ।হয়তবা আমাদেরও সময় এসে গেছে এই বিবর্তনকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেবার।

comments

12 কমেন্টস

  1. ধন্যবাদ আপনাকে।আচ্ছা আপনার এই সাইট http://www.technologybd.comটি কি বন্ধ করে দিয়েছেন।আমি অনেক দিন চেষ্টা করতেছি কিন্তু ঢুকতে পারি নাই।

    • আউয়াল ভাই ধন্যবাদ, আসলে হোস্টিং গত সমস্যার কারণে মাঝে মাঝেই সাইটা বন্ধ থাকত, সাথে আরো কিছু নতুন সমস্যা দেখা দিয়েছে। তাই বেশ কিছুদিন ধরেই সাইটটা বন্ধ আছে । এজন্য আমি আন্তরিকভাবে দুঃখিত। হয়তবা একটু সময় লাগতে পারে, আবার যে কোন সময় সাইটটাকে দেখতে পেতে পারেন। দেখাযাক কত তারাতারি আবার চালু করতে পারি।

  2. ভাই আনেক ধন্যবাদ তথ্যবহুল এই পোষ্ট করার জন্য:lol::lol:ভাই আপনার সাথে কথা বলার জন্য আমি প্রায় ৫০০ টাকা খরচ করছি শুধু ফোনেই:cry: হয়তো মনে করবেন আমি মিথ্য কথা বলছি আপনার ফোন নাম্বারটা আমাকে ইমেইল করে দিয়েন প্লিজ :cry:mahmudemran25@yahoo.com:-?আমার ফোন নাম্বার হলো01937454922,01739419745

    • ইমরান ভাই ধন্যবাদ, প্রথমেই আপনার কাছে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি যে, আমার সাথে যোগাযোগ করার জন্য আপনি অনেক কষ্ট করেছেন। আমার মেইল এড্রেস ashimkumar50@yahoo.com

  3. সুন্দর পোষ্ট , তবে জানার তো শেষ নেই একারনে আরেকটু বিস্তারিত তথ্য দিলে এই অধমের বূঝতে সুবিধা হতো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.