বাংলাদেশে প্রথম বারের মতো আয়োজিত যুব প্রতিবন্ধীদের নিয়ে জাতীয় আইসিটি প্রতিযোগিতা ২০১৬।শনিবার সকাল ৯টার রাজধানী ঢাকার ইউনিভার্সিটি অফ এশিয়া প্যাসিফিক গ্রীণ রোডের ক্যাম্পাসে প্রযোগিতার উদ্বোধন করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব শ্যাম সুন্দর সিকদার।তিনি বলেন, বিগত ৭ বছর সরকার তথ্য ও প্রযুক্তি খাতে নানাবিধ উদ্যোগ গ্রহন করে সফলতা অর্জন করেছে।এছাড়া প্রতিবন্ধী তথ্য ও প্রযুক্তি খাতে এগিয়ে নেওয়ার জন্য আইসিটি বিভাগ যুব প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের নিয়ে  বিনামূল্যে আইসিটি প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা হাতে নিয়ে তথ্য ও প্রযুক্তি প্রতিযোগিতা ২০১৬ আয়োজন করেছে।পাশাপাশি কর্মসংস্থানেরও সরকার সহায়তা প্রদান করছে।

_MG_0851সমাপণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

আয়োজনদের পক্ষ থেকে জানানো হয়, বাংলাদেশ সরকারের আইসিটি বিভাগ দেশে প্রথমবারের মতো যুব প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের নিয়ে আইটি প্রতিযোগিতার আয়োজন করতে যাচ্ছে।এ প্রতিযোগিতা দেশের যুব প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মধ্যে আইসিটি চর্চা ব্যাপকভাবে সম্প্রসারণ ঘটাবে এবং বর্তমান সরকার প্রতিশ্রুত ডিজিটাল বাংলাদেশের উপযুক্ত মানব সম্পদ হিসেবে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের প্রস্তুতির ক্ষেত্রে অত্যন্ত সহায়ক হবে।বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) দেশীয় এনজিও সেন্টার ফর সার্ভিসেস অ্যান্ড ইনফরমেশন অন ডিজঅ্যাবিলিটি(সিএসআইডি) ও ইউনিভার্সিটি অফ এশিয়া প্যাসিফিক এর সঙ্গে যৌথভাবে এই প্রতিযোগিতা আয়োজন করছে। করচে ইউনিভার্সিটি এশিয়া পাসিফক এর সংগে প্রতিজতিতাই করচে আয়োজন  করসে ক্যাটাগরি এসজিয়া বরতমান  প্রতিযোগিতা অফ এশিয়া বেক্তিদে প্রতিশ্রত ডিজিটাল বাংলাদেশে রপজুক্ত মানব হিসেবে প্রতিবন্দি বেক্তিদের দেশিও এঞ্জিয় সেন্তের ফোর সংগে ক্তেন্ত্রে সহায়ক হবে।অপছিত সমাপনি অন্সথানে বিভাগের প্রতিমন্ত্রি জুনায়েদ আহমেদ পলক বরতমান সহায়ক ইনফর্মেশন অন বাংলাদেশ প্রতিজহিকা

আয়োজকদের পক্ষ থেকে জানানো হয়, সারা দেশে থেকে আগত মোট ৫২জন প্রতিযোগিতাটি চারটি ক্যাটাগরিতে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহন করবে।ক্যাটাগরিগুলো হলো ক. দৃষ্টি প্রতিবন্ধী খ. শারীরিক প্রতিবন্ধী গ. বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধী এবং ঘ নিউরো ডেভেলপমেন্ট প্রতিবন্ধী (অটিস্টিক বা অটিজম)।সবগুলো ক্যাটাগরিতে প্রতিযোগিরা মাইক্রোসফট ওয়ার্ড, এক্সেল, পাওয়ার পয়েন্ট ও ইন্টারনেট-এই চারটি বিষয়ে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহন করবেন।প্রত্যেক ক্যাটাগরিতে সেরা প্রথম তিনজনকে পুরষ্কার হিসেবে দেওয়া হবে যথাক্রমে ৩০, ২০ও ১০ হাজার টাকা এবং ক্রেস্ট ও সার্টিফিকেট।বিজয়ী প্রতিযোগিদের মধ্য হতে দক্ষতার ভিত্তিতে আগামী ২০১৬ সালের নভেম্বর মাসে চীনে অনুষ্ঠেয় আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের সুযোগ প্রদান করা হবে।

এছাড়া অংশগ্রহণকারীদের মধ্য হতে দক্ষতার ভিত্তিতে নির্বাচিত প্রার্থীদের বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল পরিচালিত উচ্চতর কোর্সে বিনা ফিতে অংশগ্রহনের সুযোগ দেয়া হবে।সকল অংশগ্রহনকারীকে আইসিটি বিভাগ ওবিসিসি আয়োজিত চাকরি মেলায় অংশগ্রহণের সুযোগ দেয়া হবে।

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.